Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 3.0/5 (5 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print

আপডেট : ০৩-০৩-২০১৬

দ্বিতীয় ধাপেও ৬১ ইউপিতে প্রার্থী নেই বিএনপির

দিপান্বিতা চামেলী


দ্বিতীয় ধাপেও ৬১ ইউপিতে প্রার্থী নেই বিএনপির

ঢাকা, ০৩ মার্চ- প্রথমবারের মতো দলীয় প্রতীকে কয়েক ধাপে অনুষ্ঠেয় ইউপি নির্বাচন আগামী ২২ মার্চ থেকে শুরু হচ্ছে। ২২ মার্চ শুরু হয়ে ৪ জুন পর্যন্ত ছয় ধাপে ৪ হাজার ২৭৫টি ইউপিতে ভোটগ্রহণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। 

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত প্রথম দুই ধাপের তফসিল ঘোষণার পর অর্ধশতাধিক ইউপিতে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী নেই আ. লীগের। দেশের বৃহৎ রাজনৈতিক দল বিএনপি প্রার্থীরা বাধার মুখে অনেক ইউপিতে মনোনয়নপত্র দাখিল করতে পারেননি। দলটির পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে আরো বেশ কিছু ইউপিতে বিএনপি প্রার্থীদের প্রার্থিতা প্রত্যাহারে চাপ দেয়া হচ্ছে।

এদিকে আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনের প্রথম ধাপে অন্তত ৬০ জন আওয়ামী লীগ প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় অনানুষ্ঠানিকভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। দ্বিতীয় ধাপে ১৩ ইউপিতে কোনো প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী নেই আওয়ামী লীগের। এছাড়া প্রথম ধাপে ৭০ ইউপি’র পর দ্বিতীয় ধাপেও ৬১ ইউপিতে প্রার্থী নেই বিএনপি’র। আগামী ৩১ মার্চ দ্বিতীয় ধাপে সাড়ে ছয়শ’ ইউপিতে ভোটগ্রহণের কথা রয়েছে। গত ২ মার্চ বুধবার দ্বিতীয় ধাপের মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার শেষ দিন ছিল।

আওয়ামী লীগের প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র জমা দিতে বাধার অভিযোগের মধ্যে দ্বিতীয় ধাপেও বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতার নজির অব্যাহত থাকলো। এ ধাপের ইউপিগুলোর মধ্যে ৬১ ইউপিতে বিএনপি প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র জমা পড়েনি। ইসির জনসংযোগ পরিচালক এসএস আসাদুজ্জামানের পাঠানো মনোনয়নপত্র জমা সংক্রান্ত তথ্য পর্যাললোচনা করে দেখা যায়, ১৫টি দল দ্বিতীয় ধাপে প্রার্থী দিয়েছে।

এর আগে প্রথম ধাপেও ৭০টি ইউপিতে বিএনপি প্রার্থীরা মনোনয়নপত্র জমা দেয়নি। ২ মার্চ প্রথম ধাপের ৭৩৪ ইউপিতে প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ সময় ছিল। এর মধ্যে ৬০টিরও বেশি ইউপিতে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন ক্ষমতাসীন দলের প্রার্থীরা।

ইসির উপ-সচিব সামসুল আলম জানান, দ্বিতীয় ধাপের ৬৪৪ ইউপিতে চেয়ারম্যান, সাধারণ ও সংরক্ষিত সদস্য পদে মনোনয়নপত্র জমাদান শেষ হয়েছে ২ মার্চ (বুধবার)। এতে চেয়ারম্যান পদে ৩ হাজার ১০৮ জন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। এর মধ্যে দলীয় প্রার্থী আছে এক হাজার ৫৫৫ জন এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী আছে এক হাজার ৫৫৩ জন। দলীয় প্রার্থীদের মধ্যে আওয়ামী লীগের প্রার্থী রয়েছে ৬৪৫ ইউপিতে ও বিএনপি’র প্রার্থী রয়েছে ৫৮৭ ইউপিতে।

তিনি জানান, ১৩টি ইউপিতে একজন করে (আ.লীগ) প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। এছাড়া দুটি ইউপিতে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির দু’জন করে প্রার্থী রয়েছে। দ্বিতীয় ধাপে বাজিতপুরের দিঘীরপাড়; গোপালগঞ্জের বোড়াশী, বৌলতলী, দুর্গাপুর, কাঠি; জয়পুরহাটের ধলাহার, দোগাছী, জামালপুর; ভোলা সদরের কাচিয়া ও মাদারীপুরের ঝাউদীসহ ১৩ ইউপিতে আওয়ামী লীগের কোনো প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী নেই।

এছাড়া ৬১ ইউপিতে বিএনপির কোনো প্রার্থী নেই। এগুলো হলো- কোটালীপাড়ার আমতলী, বান্ধাবাড়ী, হিরণ, কলাবাড়ী, কুশলা, পিঞ্জুরী, রাধাগঞ্জ, রামশীল, সাদুল্লাপুর, শুয়াগ্রাম; গোপালগঞ্জের চন্দ্রদিঘলিয়া, গোবরা, গোপীনাথপুর, জালালাবাদ, কাজলিয়া, করপাড়া, লতিফপুর, মাঝিগাতি, নিজরা, পাইককান্দি, রঘুনাথপুর, সাহাপুর, সাতপাড়, সুকতাইল, উরফি; চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডর ৫নং ইউপি; জামালপুরের বাঁশচড়া, রাণীশংকৈলের ধর্মগড়; ফুলবাড়ীর আলাদিপুর, বিরামপুরের দিওড়, পলিপ্রয়াগপুর; ফরিদপুর উপজেলার ফরিদপুর; মাদারীপুরের বাহাদুরপুর, ছিলারচর, ধুরাইল, কলিকাপুর, শিরখারা, দুধখালী, কেন্দুয়া, মুস্তফাপুর; সিরাজদিখানের চিত্রকোর্ট, রাজনগর; পীরগঞ্জের শ্যানেরহাট; কোম্পানিগঞ্জের তেলিখাল, ইছাকলস, বাজিতপুরের দিঘীরপাড়; গোপালগঞ্জের বোড়াশী, বৌলতলী, দুর্গাপুর, কাঠি; জয়পুরহাটের ধলাহার, দোগাছী, জামালপুর; ভোলা সদরের কাচিয়া ও মাদারীপুরের ঝাউদী।

আওয়ামী লীগের দু’জন করে প্রার্থী রয়েছেন গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ার হিরণ ইউপিতে এবং দিনাজপুরের কাহারোল উপজেলার সুন্দরপুর ইউপিতে বিএনপির দু‘জন করে প্রার্থী রয়েছেন।

এদিকে প্রধান দুই দল ছাড়াও দ্বিতীয় ধাপে প্রার্থী দিয়েছে- জাতীয় পার্টি, জাসদ, বিকল্পধারা, ওয়ার্কার্স পার্টি, ইসলামী আন্দোলন, জেপি, এনপিপি, ইসলামী ফ্রন্ট, সিপিবি, জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম, ইসলামিক ফ্রন্ট, বাংলাদেশ ন্যাপ ও জাকের পার্টি।

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে