Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৩-০১-২০১৬

লঙ্কানদের হারিয়ে ফাইনালে ভারত

লঙ্কানদের হারিয়ে ফাইনালে ভারত

ঢাকা, ০১ মার্চ- শুরুটা বাংলাদেশের বিরুদ্ধে সহজ জয়ে। দ্বিতীয় ম্যাচে বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারেনি চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী পাকিস্তান। তৃতীয় ম্যাচে মঙ্গলবার নড়বড়ে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধেও অপ্রতিরোধ্য ভারত। খুব সহজেই লঙ্কানদের হারিয়েছে ধোনি শিবির। টানা তিন জয়ের সুবাদে প্রথম দল হিসাবে এশিয়া কাপের ফাইনালে উঠল ভারত। তাও এক ম্যাচ হাতে রেখেই। লিগ পদ্ধতির শেষ ম্যাচে ভারতের প্রতিপক্ষ আরব আমিরাত। যেখানে দাপিয়ে জয় পাবে ভারত, তা সহজেই অনুমিত।

মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে টসে হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৯ উইকেটে ১৩৮ রান করে শ্রীলঙ্কা। জবাবে ১৯.২ ওভারেই ৫ উইকেট খুইয়ে জয়ের বন্দরে পৌছায় ধোনি শিবির। শুরুতে ধাওয়ান ও রোহিতকে হারালেও কোহলি, রায়না ও যুবরাজের ব্যাটে শেষ হাসি হাসে টিম ইন্ডিয়াই। অন্যদিকে তিন ম্যাচে টানা দুই হারে বিদায় প্রায় নিশ্চিত গতবারের চ্যাম্পিয়ন শ্রীলঙ্কার। প্রায় বলা হচ্ছে এ কারণে, এখনও হিসাব নিকাশে তাদের ফাইনালে যাওয়ার সুযোগ রয়েছে।

তবে বুধবার পাকিস্তানকে হারাতে পারলে কোন হিসাব ছাড়াই ফাইনালে ভারতের মোকাবেলা করবে স্বাগতিক বাংলাদেশ। কিন্তু বাংলাদেশ হেরে গেলে হিসাব চূড়ান্ত হবে লিগ পদ্ধতির শেষ ম্যাচে আগামী চার মার্চ। যেখানে মুখোমুখি হবে পাকিস্তান ও শ্রীলঙ্কা। বুধবার যদি বাংলাদেশের বিরুদ্ধে পাকিস্তান জেতে, আর শেষ ম্যাচে যদি পাকিস্তানকে হারাতে পারে শ্রীলঙ্কা, সে ক্ষেত্রে বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও শ্রীলঙ্কার পয়েন্ট হবে সমান চার। তখন নেট রান রেটের বিবেচনায় ফাইনালে যাবে একটি দল।

১৩৯ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই শিখর ধাওয়ানের মূল্যবান উইকেট ভারত। দলীয় ১১ রানের মাথায় নুয়ান কুলাসেকারার বলে লঙ্কান উইকেটরক্ষক দিনেশ চান্দিমালের হাতে ক্যাচ তুলে দেন তিনি। ৩ বলে মাত্র ১ রান করতে সক্ষম হন শিখর। কিছুক্ষণ পর সাজঘরে ফিরলেন আরেক ওপেনার রোহিত শর্মা। তিনিও শিকার সেই কুলাসেকারার। রোহিত অবশ্য দলে কিছু অবদান রেখে গেছেন। চামারা কাপুগেদারার হাতে ক্যাচ তুলে দেয়ার আগে ১৪ বলে তিনটি চারের সাহায্যে করেন ১৫ রান।

এরপর তৃতীয় উইকেটে ঘুরে দাঁড়ায় ভারত। এই জুটিতে ৫৪ রান দলের স্কোরশিটে যোগ করেন বিরাট কোহলি ও সুরেশ রায়না। ২৬ বলে দুটি চারে ২৫ রান করে রায়না সাজঘরে ফেরেন শানাঙ্গার বলে কুলাসেরার তালুবন্দী হয়ে। কোহলি তখনও অবিচল। চতুর্থ উইকেটে ভারতের টেস্ট অধিনায়ক ফের ৫১ রানের জুটি গড়েন যুবরাজ সিংয়ের (২৫) সঙ্গে। কোহলির এই দুটি জুটিই ম্যাচের ভাগ্য নির্ধারণ করে দেয়। ৪৭ বলে ৫৭ রানে অপরাজিত থেকে দলকে জিতিয়ে মাঠ ছাড়েন কোহলি। তার মূল্যবান ইনিংসটি ছিল ৭টি চারে সাজানো। ম্যাচসেরাও নির্বাচিত হন বিরাট কোহলি। টিম ইন্ডিয়ার অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি অপরাজিত ছিলেন ৪ বলে একটি ছক্কায় ৭ রানে। শ্রীলঙ্কার পক্ষে সেরা বোলার নুয়ান কুলাসেকারা। ২১ রান খরচায় নেন দুই উইকেট। একটি করে উইকেট দখলে নেন রঙ্গনা হেরাথ, থিসারা পেরেরা ও শানাঙ্গা।

এর আগে টসে হেরে ব্যাট করতে নামা শ্রীলঙ্কার শুরুটাও ভালো হয়নি। দলীয় ৬ রানের মাথায় দিনেশ চান্দিমালকে হারিয়ে ফেলে তারা। ভারতের অভিজ্ঞ পেসার আশিস নেহরার বলে মহেন্দ্র সিং ধোনির হাতে ক্যাচ তুলে দেন চান্দিমাল। প্যাভিলিয়নের পথ ধরার জন্য তর সইল না ওয়ান ডাইনে নামা সিহান জয়সুরিয়ারও। তিনি শিকারে পরিণত হন ভারতের তরুণ পেসার জসপ্রিত বুমরাহর। ১৫ রানে দুই উইকেট হারিয়ে বেশ চাপে পড়ে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নরা। এদিন ফর্মহীনতায় ভুগতে থাকা তিলকরত্নে দিলশান উইকেটে থিতু হওয়ার চেষ্টা করেন। কিন্তু ভারতের অলরাউন্ডার হার্দিক পান্ডের জন্য তা পারলেন না। দিলশান বিদায় নিলেন ব্যক্তিগত ১৮ রানের মাথায়। ১৬ বল মোকাবিলা করে দুটি চারে এ রান করেন তিনি।

এরপর দলকে টানেন চামারা কাপুগেদারা। ৩২ বলে তিনটি চারের মারে ৩০ রান করে বুমরাহর বলে পরাস্ত হন তিনি। শ্রীলঙ্কার পক্ষে এটাই ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ রানের ইনিংস! অধিনায়ক অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুসও পারলেন না নিজের নামের প্রতি সুবিচার করতে। ১৯ বলে তিনটি চারের সাহায্যে করেছেন ১৮! দলকে বিপদের মুখে ঠেলে দিয়ে হার্দিক পান্ডের শিকার হয়ে সাজঘরে ফেরেন লঙ্কান অধিনায়ক। মিলিন্দা সিরিবর্ধনের ব্যাট থেকে আসে ২২ রান। রবিচন্দ্রন অশ্বিনের বলে সুরেশ রায়নার হাতে ক্যাচ তুলে দেন তিনি।

শেষ দিকে ব্যাট হাতে ঝড় তোলেন থিসারা পেরেরা। মাত্র ৬ বলে দুটি চার ও একটি ছক্কায় ১৭ রান করেন তিনি। দুর্ভাগ্য তার! অশ্বিনের বলে ধোনির কাছে স্টামিংয়ের শিকার হন তিনি। ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতার দিনে ব্যাট হাতে লড়াই করেন বোলার নুয়ান কুলাসেকারা। রানআউটে কাটা পড়ার আগে ৯ বলে দুটি চারে করেন ১৩ রান। ভারতের পক্ষে দুটি করে উইকেট নিয়েছেন  রবিচন্দ্রন অশ্বিন, জসপ্রিত বুমরাহ ও হার্দিক পান্ডে। ২৩ রান দিয়ে এক উইকেট পকেটে পুরেছেন আশিস নেহরা।

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে