Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 1.0/5 (1 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print

আপডেট : ০৩-০১-২০১৬

সৌর বিদ্যুৎ উৎপাদনে জার্মানির সহযোগিতা চায় বাংলাদেশ

সৌর বিদ্যুৎ উৎপাদনে জার্মানির সহযোগিতা চায় বাংলাদেশ

ঢাকা, ০১ মার্চ- বিশ্বের সবচেয়ে বেশি সৌর বিদ্যুৎ উৎপাদনকারী দেশ জার্মানি। ২০২০ সাল নাগাদ নবায়নযোগ্য জ্বালানি থেকে দেশটি প্রায় ৩৫ শতাংশ বিদ্যুৎ উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে। তাই সৌর বিদ্যুৎ উৎপাদনে জার্মানির সহযোগিতা চেয়েছে বাংলাদেশ।

বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন বাংলাদেশে নিযুক্ত জার্মান রাষ্ট্রদূত ড. থমাসের নেতৃত্বে ৬ সদস্যের প্রতিনিধি দল। এ সময় প্রতিমন্ত্রী ওই প্রতিনিধি দলের সঙ্গে সহযোগিতার বিষয়টি জানান। প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা সোলার পার্ক করতে যাচ্ছি, কেননা আগামীর জ্বালানি হবে নবায়নযোগ্য জ্বালানি। এ বিষয়ে জার্মানি সহযোগিতা করতে পারে।’

জার্মানির বিভিন্ন কোম্পানি দেশের অনেক প্রকল্পে কাজ করছে। এদের কিছু কিছু প্রকল্প বাস্তবায়নে বেশি সময় নিচ্ছে। এ প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, ‘অহেতুক সময় ক্ষেপণ বন্ধ করা প্রয়োজন। আমরা ২০১৮ সালের মধ্যেই সারাদেশে বিদ্যুতায়নের উদ্যোগ নিয়েছি। এ জন্য দ্রুতগতিতে নির্ধারিত কাজ শেষ করতে হবে।’

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘জার্মান আমাদের পরীক্ষিত বন্ধু। মানবসম্পদ উন্নয়ন, প্রশিক্ষণ, প্রযুক্তি, লোড ডেসপাচ সেলার, ডিজিটালাইজেশন, ইপিসি, বিদ্যুৎ কেন্দ্র স্থাপন, ট্রান্সমিশন ইত্যাদি ক্ষেত্রে জার্মান আমাদের অংশিদারিত্বের ভিত্তিতে সহায়তা করতে পারে। জার্মানের কাছে আমরা কারিগরি ও অর্থিক সহযোগিতার সাথে সাথে বাংলাদেশে বিনিয়োগও চাচ্ছি।’

প্রতিমন্ত্রী নবায়নযোগ্য জ্বালানির উৎপাদন ও ব্যবহারে জার্মানির উন্নয়ন সংস্থা জিআইজেড-কে বাস্তবধর্মী উদ্যোগ নেয়ারও অনুরোধ করেন।
 
তখন জার্মান রাষ্ট্রদূত বলেন, ‘জার্মান কোম্পানি সিমেন্স সেই ৬০ দশক থেকেই বাংলাদেশে কাজ করছে। প্রকল্প বাস্তবায়নে বিলম্ব কাম্য নয়। ছোট ছোট বিষয়গুলো পরিহার করাই বাঞ্ছনীয়। জার্মান বাংলাদেশের অবকাঠামো নির্মাণসহ জ্বালানি খাতে বিনিয়োগ করতে আগ্রহী।’

তিনি বলেন, ‘আমরা উভয়পক্ষ মিলে একটি ‘ওয়ার্কিং গ্রুপ’ গঠন করতে পারি।’ এসময় রাষ্ট্রদূত, জার্মান দূতাবাসের উন্নয়ন সহযোগিতা বিভাগের প্রধান একহার্ড হেনকে ফোকাল পয়েন্ট হিসেবে পরিচয় করিয়ে দেন এবং বলেন, ‘এ সংক্রান্ত কোনো অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি সৃষ্টি হলে ফোকাল পয়েন্ট দ্রুত ব্যবস্থা নেবে।’

তখন অন্যদের মাঝে বাংলাদেশের জার্মানির রাষ্ট্রীয় ব্যাংকিং গ্রুপ কেএফডব্লিউ’র বাংলাদেশ চ্যাপ্টারের পরিচালক ডেভিড কোনজ, জিআইজেড’র প্রোগ্রাম ম্যানেজার ডেভিড হ্যানকক ও পিডিবির চেয়ারম্যান শামসুল হাসান মিয়া উপস্থিত ছিলেন।

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে