Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৩-০১-২০১৬

মার্কিন নির্বাচনে ‘সুপার টুয়েসডে’ কেন গুরুত্বপূর্ণ

আরাফাত পারভেজ


মার্কিন নির্বাচনে ‘সুপার টুয়েসডে’ কেন গুরুত্বপূর্ণ

ওয়াশিংটন, ০১ মার্চ- আজ মঙ্গলবার জুড়ে শুরু হতে যাচ্ছে মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ১২টি অঙ্গরাজ্যের সর্ববৃহৎ ভোটাভুটি। প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে মঙ্গলবারের এই ভোট অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কারণ এই দিনেই সবচেয়ে বেশি সংখ্যক অঙ্গরাজ্যের ভোটাররা অংশ নেবে তাদের নিজ নিজ রিপাবলিকান এবং ডেমোক্র্যাট প্রেসিডেন্ট প্রার্থীদের মধ্যে বাছাই করার জন্য। যে কারণে এই দিনকে বলা হচ্ছে ‘সুপার টুয়েসডে’ বা ‘বিশেষ মঙ্গলবার’।

এই ভোটের উপরে বেশিরভাগ প্রেসিডেন্ট প্রার্থীদের ভবিষ্যৎ নির্ভর করছে। এখান থেকেই প্রতিযোগিতা অনেক সরু হতে শুরু করবে। বাদ পড়তে শুরু করবেন প্রার্থীরা।

রিপাবলিকান দলে মোট পাঁচজন প্রেসিডেন্ট মনোনয়ন প্রত্যাশী রয়েছে : ডোনাল্ড ট্রাম্প, টেড ক্রুজ, বেন কার্সন, জন কাজিক এবং মার্ক রুবিও। কোনো সন্দেহ যে, আজকের ভোটই এদের ভবিষ্যৎ নির্ধারণ হয়ে যাবে।

সুপার টুয়েসডেতে রিপাবলিকান এবং ডেমোক্র্যাট উভয়ই তাদের প্রতিনিধি জড়ো করবে। রিপাবলিকানদের রয়েছে ৫শ’ ৯৫ জন প্রতিনিধি এবং ডেমোক্র্যাটদের ১ হাজার ৪ জন।   


ডোনাল্ড ট্রাম্প

কিন্তু দলের থেকে মনোনয়ন পেতে হলে রিপাবলিকানদের দরকার ১২শ’ ৩৭ জন প্রতিনিধি এবং ডেমোক্র্যাটদের দরকার ২ হাজার ৩শ’ ৮৩ জন প্রতিনিধি। কাজেই এই দিনটি নির্বাচনের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটা দিন।  

এই বছর সুপার টুয়েসডেতে যোগ দিয়েছে বাড়তি কয়েকটি অঙ্গরাজ্য। অ্যালাব্যামা, আরকানসাস এবং টেক্সাস যোগ দিয়েছে এবং মিনেসটা অঙ্গরাজ্য তাদের প্রাইমারি ঠিক করেছে একই দিনে।  

সংক্ষেপে বলতে গেলে এর সাথে যুক্তরাষ্ট্রের অনেকগুলো রাজ্য এবং রাজনীতি জড়িত রয়েছে। কাজেই সমস্ত প্রার্থীরা এখান থেকেই তাদের অর্থনীতিক ও সাংগঠনিক ক্ষমতা বুঝতে পারবে।

ডেমোক্র্যাটদের জন্য এটা মানসিক চাপ সামলাতে পারার একটা অগ্নি পরীক্ষা। যেমন বার্নি স্যানডার্স তার প্রতিকূল প্রচারণার পর এখন আসল পরীক্ষার মুখোমুখি হচ্ছেন। এই নির্বাচন তার জন্য অত্যন্ত মানসিক চাপের বিষয়।   


বার্নি স্যানডার্স

সুপার টুয়েসডের মত প্রথম সারির নির্বাচনেই ভোটাররা সাধারণত হিলারি ক্লিনটনের মত অর্থনৈতিকভাবে বহুল সমর্থিত প্রার্থীতে সমর্থন দেয়।

এদিকে রিপাবলিকানদের মধ্যে ডোনাল্ড ট্রাম্প, টেড ক্রুজ, এবং মার্ক রুবিওই সবচেয়ে বেশি এগিয়ে আছেন। ক্রুজের জন্মস্থান টেক্সাসে একটি প্রাথমিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে মার্চের ১ তারিখে। তাছাড়া ক্রুজের পেছনে রয়েছে ইভাঞ্জেলিক খ্রিস্টানদের একটা বড় সমর্থন।

ডোনাল্ড ট্রাম্পের উপরে সবার নজর। তিনি বর্তমানে সবাইকে প্রভাবিত এবং দমিত করছেন। সাম্প্রতিক জরিপে তার পেছনে সমর্থন রয়েছে ৩৭ দশমিক ৫ শতাংশ। এবং রুবিও খুব সম্ভবত শেষপর্যন্ত আপোস করবেন।

নির্বাচনের অন্য যে কোনো দিনের তুলনায় সুপার টুয়েসডেতে সবচেয়ে বেশি প্রতিনিধি পাওয়া যায়। প্রার্থীরা কি পরিমাণ ভোট পাবেন তার উপরে ভিত্তি করে প্রতিনিধি পাবেন তারা।

অ্যালাব্যামা অঙ্গরাজ্যে রিপাবলিকানরা ৫০ জন প্রতিনিধির জন্য সংগ্রাম করবেন। স্যানডার্স এবং ক্লিনটন লড়বেন ৬০ জন প্রতিনিধির জন্য।

তবে উভয় দলের প্রার্থীদের জন্য সবচেয়ে বড় জয় অপেক্ষা করছে টেক্সাসে। সেখানে রিপাবলিকানদের জন্য রয়েছেন ১৫৫ জন এবং ডেমোক্র্যাটদের জন্য ২৫২ জন প্রতিনিধি।  

সুপার টুয়েসডে প্রার্থীদের তহবিল বৃদ্ধির জন্যও একটা বড় পরীক্ষা। এর উপর ভিত্তি করেই দাতারা অর্থ সরবরাহ করবেন প্রার্থীদের। এখন পর্যন্ত টেড ক্রুজ বেশি জনপ্রিয় রয়েছে ডোনারদের মধ্যে। ফেব্রুয়ারিতে তার তহবিল রুবিওর চেয়ে দ্বিগুণ আকারের ছিল।

সুপার টুয়েসডে লড়াইয়ের জন্য গত মাসে ক্রুজ সংগ্রহ করেছিল ১৮ লাখ মার্কিন ডলার। অথচ রুবিও সংগ্রহ করেছিল এর মাত্র অর্ধেক সাড়ে সাত লাখ ডলার।

আগে থেকেই সবাই জানে যে, রিপাবলিকান প্রার্থীর সংখ্যা আকারে অনেক ছোট হয়ে যাবে এই ভোটে। কার্সন কিংবা কাইজাক, অথবা দুজনেই দৌড়ে হেরে তল্পিতল্পা গোটাতে হবে।

বাকি যারা থাকবে তাদের জন্য মার্চের ১৫ তারিখে অপেক্ষা করবে ফ্লোরিডা, ইলিনয়েস, উত্তর ক্যারোলিনা এবং মিসোরির মত আরও বড় নির্বাচন। নিউইয়র্কে ভোট হবে এপ্রিলের ১৯ তারিখে। এরপর আরেকটি যৌথ রাজ্যের নির্বাচন হবে জুনের ৭ তারিখে। তবে সামনের সব কিছুই আসলে অপেক্ষা করছে সুপার টুয়েসডের উপর। দেখা যাক, কে দৌড়াবেন ওভাল অফিসের দিকে, আর কেই বা ফিরে যাবেন ঘরে।

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে