Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print

আপডেট : ০২-২৯-২০১৬

সপ্তাহ ৩ পর কাটা হবে বৃক্ষমানবের বাম হাতের ‘শিকড়’

সপ্তাহ ৩ পর কাটা হবে বৃক্ষমানবের বাম হাতের ‘শিকড়’

ঢাকা, ২৯ ফেব্রুয়ারী- অদম্য ইচ্ছাশক্তি আর চিকিৎসকের ক্ষুরধার চিকিৎসা সেবায় ক্রমেই সুস্থতার পথে এগিয়ে যাচ্ছেন বৃক্ষমানব (ট্রি-ম্যান) আবুল বাজনদার। ইতোমধ্যে তার ডান হাতে সফল অস্ত্রোপচার হয়েছে। কেটে ফেলা হয়েছে সেই হাতের ‘শিকড়’গুলো। সুস্থতার পথে আরো একধাপ এগিয়ে নিতে সপ্তাহ তিন পর আবুলের বাম হাতে অস্ত্রোপচারের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন গঠিত মেডিকেল টিম। ওইসময় তার বাম হাতের ‘শিকড়’গুলোও কেটে ফেলা হবে।

সোমবার চিকিৎসকদের এক বৈঠকে নেয়া এ সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন ওই টিমের সমন্বয়ক ডা. সামন্ত লাল সেন।

বৈঠক প্রসঙ্গে ঢামেক হাসপাতালের বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের সমন্বয়ক ডা. সামন্ত বলেন, ‘পরবর্তী অস্ত্রোপচারের বিষয়ে সকালে মেডিকেল টিমের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এতে টিমের নয় সদস্যই উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকে আগামী তিন সপ্তাহ পর আবুলের বাম হাতে অস্ত্রোপচারের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।’

তবে কতো তারিখ বা কি বারে এ অস্ত্রোপচার করা হবে তা এখনো নির্দিষ্ট করা হয়নি। দিন নির্ধারণ হলে তা গণমাধ্যমকে জানিয়ে দেয়া হবে বলেও জানিয়েছেন ডা. সামন্ত। ঢামেক হাসপাতালের বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের পরিচালক অধ্যাপক আবুল কালামের নেতৃত্বে অধ্যাপক রায়হানা আউয়াল ও অধ্যাপক মো. সাজ্জাদ খন্দকারসহ ৯ সদস্যের একটি চিকিৎসক দল আবুলের ডান হাতের অস্ত্রোপচার সম্পন্ন করেন।

ডান হাতের পর বাম হাতে এ অস্ত্রোপচারের জন্য মানসিকভাবে কতোটুকু প্রস্তুত বৃক্ষমানব? বিষয়টি জানতে আবুল বাজনদারের সঙ্গেই যোগাযোগ করা হয়। হাসপাতালের বিছানায় শুয়ে থাকা বৃক্ষমানব বলেন, ‘আমি এখন ভালো আছি। যদিও ডান হাতে অস্ত্রোপচারের পর ড্রেসিংয়ের আগে কিছুটা ব্যাথা ও যন্ত্রণা অনুভব হচ্ছিল। তবে সর্বশেষ ২৭ তারিখে (২৭ ফেব্রুয়ারি) যে ড্রেসিং করা হয়েছে, তারপর থেকে আর কোনো যন্ত্রণা অনুভব করছি না। এখন হাতটি নাড়াচাড়া করতেও কোনো সমস্যা হচ্ছে না। আপনাদের দোয়ায় আমি ভালো আছি। এখন বা হাতে অস্ত্রোপচারের জন্য আমি প্রস্তুত আছি।’

এর আগে ২০ ফেব্রুয়ারি ‘বৃক্ষমানব’ আবুল বাজনদারের প্রথম অস্ত্রোপচার সফলভাবেই সম্পন্ন হয়। ডান হাতের দুই আঙ্গুলে অস্ত্রোপচারের কথা থাকলেও পুরো পাঁচটি আঙ্গুলেরই অস্ত্রোপচার করা হয় প্রথম দফায়। কেটে ফেলা হয় তার ডান হাতে গজানো ‘শিকড়’র মতো দেখতে আঁচিলগুলো। দ্বিতীয় দফায় অস্ত্রোপচারের মধ্য দিয়ে সম্পন্ন হয় বিরল রোগে আক্রান্ত বৃক্ষমানব আবুল বাজনদারের ডান হাতের চিকিৎসা। এর মাধ্যমে সম্পূর্ণ অপসারণ করা হয়েছে তার ডান হাতে গজানো ‘শিকড়’গুলো। যদিও তার অন্তত ১৩ থেকে ১৫টি অস্ত্রোপচার করতে হবে বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন।

এদিকে চিকিৎসকদের ধারণা, আবুল ‘এপিডার্মোডিসপ্লাসিয়া ভেরাসিফরমিস’ রোগে আক্রান্ত। রোগটি ‘ট্রি-ম্যান’ (বৃক্ষমানব) সিনড্রম নামে পরিচিত। হিউম্যান প্যাপিলোমা ভাইরাসের সংক্রমণের কারণে এ রোগ হয়। গত ১০ বছর ধরে আবুল এই রোগে ভুগছেন। তার হাত ও পায়ের আঙুলগুলো গাছের শিকড়ের মতো হয়ে গেছে এবং দিনে দিনে তা বাড়ছিলো।

ডা. আবুল কালাম জানান, আবুলের বায়োপসি পরীক্ষায় ক্যানসারের কোনো অস্তিত্ব পাওয়া যায়নি। তারা অস্ট্রেলিয়া ও যুক্তরাজ্যের চিকিৎসকদের সঙ্গে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রাখছেন। আবুলের প্রথম অপারেশনের ব্যাপারে তিনি বলেন, ‘পাঁচটি আঙুলের বর্ধিত অংশ ফেলে দেয়ার পর তার কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা যায়নি। বরং স্বাভাবিক প্রক্রিয়ায় হাত দ্রুত ভালো হয়ে উঠছে।’

তিনি বলেন, ‘আমরা আশা করছি ছয় মাসের মধ্যে তাকে পুরোপুরি সুস্থ করা সম্ভব হতে পারে। এর থেকে বেশি সময়ও লাগতে পারে। তবে যতোদিনই লাগুক ততোদিনই আবুল এখানেই থাকবে। কারণ সে এতো দরিদ্র যে তাকে খুলনা পাঠালে সে আর ঢাকায় আসতে পারবে না।’

খুলনার পাইকগাছা থানার সরল গ্রামের আবুল বাজনদার গত ৩০ জানুয়ারি ঢামেক হাসপাতালে ভর্তি হন। অপারেশনের মাধ্যমে বিশ্বের তৃতীয় বৃক্ষমানব আবুল সুস্থ হলে বাংলাদেশের জন্য তা হবে একটি মাইলফলক। তাকে স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে আনতে নয় সদস্যের গঠিত মেডিকেল বোর্ড সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে