Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০২-২৬-২০১৬

সোমালীয় সেনাঘাঁটি হামলা: নিহত কেনীয় সেনাসংখ্যা ১৮০

সোমালীয় সেনাঘাঁটি হামলা: নিহত কেনীয় সেনাসংখ্যা ১৮০

নাইরবি, ২৫ ফেব্রুয়ারী- সোমালিয়ার দক্ষিণাঞ্চলী সেনাঘাঁটি আল-আদে গত মাসে জঙ্গি গোষ্ঠি আল-শাবাবের এক হামলায় কেনিয়ার কমপক্ষে ১৮০ জন সেনা নিহত হয়েছিল বলে জানিয়েছে সোমালীয় প্রেসিডেন্ট হাসান শেখ মোহাম্মদ। তবে এ তথ্যকে অসত্য বলে মন্তব্য করেছে কেনিয়ার সেনাবাহিনী। নিহত সেনাদের সংখ্যা আরো বেশি হবে বলে দাবি তাদের।

ওই হামলার পর আল-শাবাব জানিয়েছিল, তারা প্রায় ১০০ জন কেনীয় সেনাকে হত্যা করেছে। তবে কেনিয়ার পক্ষ থেকে আল-শাবাবের হামলায় নিহতের সঠিক কোনো সংখ্যা জানানো হয়নি। যদি ওই হামলায় ১৮০ জন সেনা নিহত হওয়ার তথ্য সঠিক হয় তবে গত এক দশকের মধ্যে এটাই হবে আল-শাবাবের সবচেয়ে ভয়াবহ হামলা।  

এর আগে গত বছরের এপ্রিলে কেনিয়ার উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় গারিসা বিশ্ববিদ্যালয়ে জঙ্গি গোষ্ঠিটির দিনব্যাপী হামলায় মারা গিয়েছিল ১৪৮ জন। এখন পর্যন্ত এটাকেই আল-শাবাবের ভয়াবহতম হামলা মনে করা হয়।  

আল আদের হামলায় কেনিয়ার সেনাদের এক স্মরণসভায় নিজের উপস্থিত থাকার যৌক্তিকতা বর্ণনা করতে গিয়ে সোমালিয়ার একটি টেলিভিশন চ্যানেলকে দেয়া এ সাক্ষাৎকারে ১৮০ কেনীয় নিহত হওয়ার ওই তথ্য জানান হাসান শেখ মোহাম্মদ।

ওই স্মরণসভায় উপস্থিত থাকার কারণে নিজ দেশের সেনাদের চেয়ে কেনীয় সেনাদের জন্য শেখ মোহাম্মদ বেশি উদ্বিগ্ন বলে তার প্রতি অভিযোগ করে কেনিয়ার অনেক নাগরিক। তবে ওই স্মরণবভায় নিজের উপস্থিতিকে ‘গুরুত্বপূর্ণ’ বলে মন্তব্য করেছেন সোমালিয়ার প্রেসিডেন্ট।

দেশটির একটি বেসরকারি টেলিভিশনকে দেয়া সাক্ষাৎকারে তিনি জানান, ওই হামলায় নিহতের সংখ্যা ১৮০ থেকে ২০০’র মধ্যে হবে। তিনি বলেন, ‘ওই সেনাদের আমাদের দেশের শান্তির জন্যই এখানে পাঠানো হয়েছিল।’ 

এদিকে কেনীয় সেনাবাহিনীর মুখপাত্র কর্নেল ডেভিড অবনিয় জানিয়েছেন, কেনীয় সেনাদের নিহতের সংখ্যা নিয়ে সোমালিয়ার প্রেসিডেন্টের দেয়া তথ্য অসত্য। বিষয়টি স্পষ্ট করতে তথ্যের উৎস প্রকাশের দাবি জানান তিনি।  

কর্নেল অবনিয় বলেন, ‘নিহতের সংখ্যা কমিয়ে বলা বন্ধ করতে হবে। পরিসংখ্যানটি সঠিক নয়। তাদের সম্মান এবং মর্যাদার সাথে স্মরণ করা উচিৎ।’ 

উল্লেখ্য, ওই হামলার পর নিহতের সংখ্যা ২২৪ জন বলে দাবি করেছিল কেনিয়া। এতে আল-শাবাব ১৯৯৮ সালে কেনিয়ার মার্কিন দূতাবাসে হামলায় আল কায়েদার ব্যবহৃত বোমার চেয়ে তিনগুন শক্তিশালী বোমা ব্যবহার করে বলে জানায় কেনিয়া। 

সোমালিয়াতে শান্তি রক্ষার কাজে বর্তমানে আফ্রিকার ইউনিয়নের ২২ হাজার সেনা মোতায়েন আছে। এর মধ্যে কেনিয়ার আছে চার হাজার। সোমালিয়াতে আল-শাবাব নিজেদের আল কায়েদার অংশ বলে দাবি করে।

আফ্রিকা

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে