Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 1.2/5 (5 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০২-১২-২০১৬

চীনের অর্থনীতি বিষয়ে কিছু বিচিত্র তথ্য

চীনের অর্থনীতি বিষয়ে কিছু বিচিত্র তথ্য

২০১৬-তে চীনের স্টক মার্কেটে কিছুটা হইচই হয়েছে। বিশ্লেষকরা এ নিয়ে আশাবাদ ব্যক্ত করতে পারছেন না। তবে স্টক মার্কেট চীনের অর্থনীতির পুরোধা নয়। দেশটির অর্থনীতি বেশ বিচিত্র। দেশ এবং অর্থনীতি সম্পর্কে কিছু অদ্ভুত তথ্য জেনে নিন।

১. ইতালি এবং ভ্যাটিকান সিটিতে মোট যত খ্রিষ্টান থাকেন, তার চেয়ে বেশি খ্রিষ্টান জনসংখ্যার বাস চীনে। অথচ ইতালির ৮০ শতাংশ মানুষ খ্রিষ্টান। আর চীনের ৫.১ শতাংশ খ্রিষ্টানের বাস।

২. চীনে খাওয়ার কাজে প্রতি ৩ বছরে যে পরিমাণ  ডিসপোজেবল চপস্টিক ব্যবহার করা হয় তা যদি পৃথিবীর সবার মাঝে বিলিয়ে দেওয়া যায়, তবে প্রত্যেকে ৩২ জোড়া করে চপস্টিক পাবেন।

৩. চীনের জিডিপি আইল্যান্ড অব ডোমিনিকার চেয়ে ১৯ হাজার ৭৫৮ গুন বেশি। অথচ দুই দেশের জিডিপি পার ক্যাপিটা প্রায় সমান।

৪. আয়ারল্যান্ডে যত মানুষ বাস করে, তার চেয়ে বিশি সংখ্যক চাইনিজ শিশু সিগারেট ও অন্যান্য তামাক পণ্য ব্যবহার করে। চীনের প্রায় ৮৯ লাখ ৩৭ হাজার শিশু তামাকে আসক্ত।

৫. চীনে বছরে যে পরিমাণ ইন্সট্যান্ট নুডলস খাওয়া হয় তা দিয়ে গোটা ইউরোপীয় মহাদেশ টানা ৫২ দিন ধরে খাওয়ানো যাবে। ২০১৪ সালে চীনে ৪৪.৪ বিলিয়ন প্যাকেট ইন্সট্যান্ট নুডলস খাওয়া হয়।

৬. চীনের সাংহাই টাওয়ার পৃথিবীর দ্বিতীয় উচ্চতম ভবন। এর উচ্চতা ২ হাজার ৭৩ ফুট। কিংবদন্তি বাস্কেটবল খেলোয়াড় মাইকেল জর্ডানের উচ্চতা ৬ ফুট ৬ ইঞ্চি। ৩১৯ জন মাইকেল জর্ডার যদি একজনের ওপর অন্যজন দাঁড়ান হবে সাংহাই টাওয়ারের সমান উচ্চতা হবে তাদের।

৭. চীনে প্রতিবছর যে পরিমাণ আইসক্রিম খাওয়া হয় তা দিয়ে ২ হাজার ৩৪৪টি অলিম্পিক সাইজ সুইমিং পুল ভরে ফেলা যাবে।

৮. গত বছর চীনের এক ডেভেলপার প্রতিষ্ঠান মাত্র ১৯ দিনে ৫৭ তলা ভবন বানিয়ে ফেলে। এই ভবনে রয়েছে ৮০০টি অ্যাপার্টমেন্ট। এতে বাস করেন ৪ হাজার মানুষ।

৯. পৃথিবীর প্রতি ২টি শুকরের মধ্যে একটি থাকে চীনে। বছরের প্রত্যেকে গড়ে ৩৯ কেজ শুকরের মাংস খান।

১০. গোটা চীনে একটি টাইম জোন রয়েছে। যদিও তা আমেরিকার সমান প্রায়। এ কারণে উত্তর-পশ্চিমাংশের উরুমকুই, জিয়াংজিয়ানের মানুষ মধ্যরাতে সূর্যাস্ত দেখেন। আবার সকাল ১০টায় সূর্য ওঠে।

১১. প্রাচীন চীনে বল দিয়ে একটি খেলার চর্চা ছিল। ফিফার মতে এটি আজকের ফুটবল খেলা। অথচ চীন এ খেলায় খুবই পিছিয়ে।

১২. আমেরিকান ব্র্যান্ড গোল্ডম্যান স্যাচেস প্রস্তুত করে চীনের  একটি লিজিং প্রতিষ্ঠান। তবে আমেরিকান ব্র্যান্ডের হং কং-ভিত্তিক মুখপাত্র জানান, চীনের এই ব্র্যান্ডটির সঙ্গে আমেরিকান গোল্ডম্যান স্যাচেসের কোনো সম্পর্ক নেই। সূত্র : বিজনেস ইনসাইডার

জানা-অজানা

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে