Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০২-১২-২০১৬

আর্থিক কেলেঙ্কারিতে নাম জড়াল কপিল দেবের

আর্থিক কেলেঙ্কারিতে নাম জড়াল কপিল দেবের

নয়াদিল্লি, ১২ ফেব্রুয়ারী- আর্থিক কেলেঙ্কারিতে জড়াল কপিলদেবের নাম৷ উত্তর প্রদেশের দুর্নীতিগ্রস্ত এক প্রাক্তন চিফ ইঞ্জিনিয়ারের ৩২ কোটি টাকার সংস্থা তিনি কিনেছিলেন ৬ কোটিরও কমে! এমনই অভিযোগ বিশ্বজয়ী অধিনায়কের বিরুদ্ধে৷ অভিযোগ অস্বীকার করেছেন কপিল৷

১৯৮৩-র বিশ্বকাপ জয়৷ দেশের ক্রিকেটকে রূপকথার মুহূর্ত উপহার দিয়েছিলেন তিনি৷ কপিলদেব নিখাঞ্জ৷ আর, ৩২ বছর পর? ভারতের বিশ্বজয়ী অধিনায়কের নাম জড়াল আর্থিক কেলেঙ্কারিতে৷

কোটি কোটি টাকা ঘুষ নিয়ে টেন্ডার বণ্টনের অভিযোগে ইতিমধ্যেই গ্রেফতার হয়েছেন উত্তর প্রদেশ সরকারের প্রাক্তন চিফ ইঞ্জিনিয়ার যাদব সিংহ৷ সেই আর্থিক দুর্নীতির তদন্তে নেমেই তদন্তকারীদের চক্ষু চড়কগাছ! তাঁরা জানিয়েছেন, যাদব সিংহের ৩২ কোটি টাকার সংস্থা নিতান্তই কানা-কড়ির দরে কিনেছিলেন ভারতের অন্যতম সেরা এই ক্রিকেটার৷ ৩২ কোটির সংস্থা কিনেছিলেন ৬ কোটিরও কমে!

আয়কর বিভাগ জানিয়েছে, যাদব সিংহের যাবতীয় কালো টাকা মূলত তিনটি সংস্থার হাতে যেত৷ প্রথম সংস্থার মালিক ছিলেন যাদব ও তাঁর স্ত্রী কুসুমলতা৷ দ্বিতীয়টি ছিল রাজেন্দ্র মিনোচা, রাজেশ মিনেচা ও তাঁর স্ত্রী নম্রতা মিনোচার মালিকানাধীন ৷ তৃতীয়টি ছিল মীনু ক্রিয়েশনস্-এর নামে৷

আয়কর বিভাগকে দেওয়া বয়ানে মিনোচা দম্পতি জানিয়েছেন, তাঁদের নামে মোট ১০ টি সংস্থা ছিল৷ ২০১৩-তে তাঁদের দুটি সংস্থার শেয়ার চারজনের নামে হাতবদল হয়৷ ১ লক্ষ ৫৫ হাজার ৫০০ টি শেয়ার দেওয়া হয় কপিলদেবের নামে৷ তাঁর স্ত্রী রোমী দেবের নামে বণ্টন করা হয় ৫১ হাজার ৫০০ টি শেয়ার৷ এছাড়া দীপরাজ সিংহ শেঠি ও দেবেন্দ্রজিত্‍ সিংহ শেঠি নামে দুই ব্যক্তিকে ১ লক্ষ ৩ হাজার ৫০০ টি করে শেয়ার দেওয়া হয়৷

অর্থাৎ‍, প্রায় অর্ধেক শেয়ারই ছিল কপিলদেবের পরিবারের নামে৷ যার আর্থিকমূল্য ৩২ কোটিরও বেশি৷ অথচ, ওই শেয়ার বাবদ তিনি মিনোচাদের দিয়েছিলেন মাত্র ৫ কোটি ৭৯ লক্ষ ৬০ হাজার টাকা! কিন্তু, কেন? যাদব সিংহের কালো টাকা সাদা করতেই কি লেনদেন? উঠছে প্রশ্ন৷

কপিলদেব অবশ্য যাবতীয় অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছেন৷ তাঁর দাবি, ‘আমি যাদব সিংহকে চিনি না৷ তাঁর কোনও সংস্থা আমি কিনিওনি, তাঁকে বিক্রিও করিনি৷ যে সংস্থার কথা বলা হচ্ছে, তার যাবতীয় ব্যাঙ্কঋণ আমি শোধ করেছি৷ ওই সংস্থা থেকে ইস্তফা দিয়েছি৷ আমি ও আমার স্ত্রী নিজেদের অংশের শেয়ার বিক্রিও করে দিয়েছি।’ তবে, কোটি কোটি টাকার আর্থিক কেলেঙ্কারিতে দেশের অন্যতম ক্রিকেট-মহানায়কের নাম জড়িয়ে যাওয়ায় শোরগোল ক্রিকেট মহলে৷

ক্রিকেট

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে