Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০২-১১-২০১৬

বাংলাদেশকে নতুন অর্জনের হাতছানি

বাংলাদেশকে নতুন অর্জনের হাতছানি

ঢাকা, ১১ ফেব্রুয়ারী- এবার অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের প্রতিটি ম্যাচ শেষে বিজয়ী দলের সেলফি তোলার দৃশ্যটা হচ্ছে দেখার মতো। সেলফি স্টিক হাতে একঝাঁক উচ্ছল প্রাণের বাঁধভাঙা আনন্দ, কী যে সুন্দর দৃশ্য! বাংলাদেশের দর্শকদের কাছে বেশি করেই উপভোগ্য হচ্ছে দৃশ্যটি। এখন পর্যন্ত সেলফি স্টিকটা ‘হাতছাড়া’ হয়নি মেহেদী হাসান মিরাজদের! আজ ম্যাচ শেষেও স্টিকটা নিজেদের কাছে রাখতে পারবেন বাংলাদেশের যুবারা?

ম্যাচটা যদি ‘বড়’দের হতো, পাল্লাটা ওয়েস্ট ইন্ডিজের দিকেই ঝুঁকে থাকত। যদিও ক্রমেই বিক্রম হারাতে থাকা ক্যারিবীয়দের হারানোর স্বপ্ন নিয়েই মাঠে নামতেন মাশরাফিরা। তারপরও নামের ভারটা একটু হলেও এগিয়ে রাখত ওয়েস্ট ইন্ডিজকে। কিন্তু ‘ছোট’দের ক্রিকেটে ওসব খাটে না। আর যুব ওয়ানডের পরিসংখ্যানে বাংলাদেশ এগিয়ে আছে স্পষ্ট ব্যবধানে। মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে আজকের সেমিফাইনালে ক্যারিবীয় যুবাদের বিপক্ষে তাই বাংলাদেশকে ফেবারিট মানতে অসুবিধা নেই।

সাম্প্রতিক সাফল্য আর ঘরের মাঠের সুবিধা—সব দিক দিয়েই এগিয়ে আছেন মেহেদীরা। যুব ওয়ানডেতে এখন পর্যন্ত ১৭ বার মুখোমুখি হয়ে ১২ বার জিতেছে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯। যুব বিশ্বকাপে দুই দলের পরিসংখ্যানটাও অনুপ্রাণিত করবে বাংলাদেশকে। তিনবার মুখোমুখি হয়ে দুবার জিতেছে বাংলাদেশ। তা ছাড়া বিশ্বকাপের আগে তিন ম্যাচের সিরিজে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ধবলধোলাইয়ের স্মৃতিটা তো টাটকাই।

যদিও প্রতিপক্ষকে সমীহ করে বাংলাদেশ গত কদিনে একই কথা আওড়ে আসছে, ‘প্রতিটি ম্যাচই নতুন’, ‘ওয়েস্ট ইন্ডিজ ভালো খেলেই সেমিফাইনালে উঠেছে’ ইত্যাদি। এসব যে শুধু কথার কথা নয়, সেটির প্রমাণ মিলবে ওয়েস্ট ইন্ডিজের পারফরম্যান্সেই।

তাদের আক্রমণের মূল শক্তি পেস বোলিং। কিন্তু স্পিনবান্ধব কন্ডিশনে সেমিফাইনালে উঠে শিরোপা জয়ে নিজেদের সম্ভাবনাটাও তুলে ধরেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। গতি আর নিয়মিত উইকেট শিকারে নিজেকে আলাদাভাবে চিনিয়েছেন ফাস্ট বোলার আলজারি জোসেফ। ৪ ম্যাচে ৯ উইকেট নিয়ে ক্যারিবীয়দের সফলতম বোলার তিনিই। টুর্নামেন্টে তাঁর গতির কাঁটা ১৪০ পেরিয়েছে বেশ কবার! এই বিশ্বকাপে তিনিই সবচেয়ে গতিসমৃদ্ধ বোলার।

অ্যান্ডি রবার্টস, জোয়েল গার্নার, মাইকেল হোল্ডিং, ম্যালকম মার্শাল, কার্টলি অ্যামব্রোস, কোর্টনি ওয়ালশদের এই উত্তরসূরি যে বাংলাদেশকে চিন্তায় ফেলেছেন, সেটি পরিষ্কার যুবাদের কোচ মিজানুর রহমানের কথাতেও। কাল সংবাদ সম্মেলনে বেশ কবার উচ্চারিত হলো জোসেফের নাম। তবে নিজেদের ‘হোমওয়ার্কের’ ওপরও আস্থা আছে মিজানুরের, ‘বিশ্বকাপের আগে ওদের সঙ্গে তিন ম্যাচের একটা সিরিজ খেলেছিলাম। জোসেফ নামে তাদের একটা গতিময় বোলার আছে। আমাদের খেলোয়াড়েরা ভালোভাবেই জানে, সে কতটা জোরে বল করতে পারে। আমরাও প্রস্তুত। শুধু সে নয়, অন্য বোলারদের জন্যও প্রস্তুত আমরা।’

অধিনায়ক মেহেদী তো ক্যারিবীয় পেসারদের চ্যালেঞ্জটা উন্মুখ, সরাসরিই বলে দিলেন, ‘আমাদের গতির বলই খেলতে বেশি ভালো লাগে। কম গতির বল খেললে মিস টাইমিংয়ের আশঙ্কা থাকে। বেশি গতির বোলারদের খেলতে আমরা সব সময়ই আত্মবিশ্বাসী থাকি।’

ওয়েস্ট ইন্ডিজের পেস বোলিং নিয়ে যদি ভাবতে হয় বাংলাদেশকে, তবে তাদেরও ভাবতে হবে মেহেদীদের স্পিন আক্রমণ নিয়ে। বিশ্বকাপের আগে তিন ম্যাচের সিরিজে বাংলাদেশের স্পিন-বিষে কীভাবে নীল হয়েছিলেন ক্যারিবীয় যুবারা, তাঁদের তা ভুলে যাওয়ার কথা নয়। মেহেদী তাই মনে করেন, ম্যাচের চেহারা বদলে দিতে বড় ভূমিকা থাকবে স্পিনারদের, ‘আমাদের দলে ভালো স্পিনার আছে। ওয়েস্ট ইন্ডিজের ব্যাটসম্যানদের সম্পর্কে জানি, তারা কী করতে পারে। মনে হয় স্পিনাররা ভালো বোলিং করলে ওরা দাঁড়াতে পারবে না। আমাদের ব্যাটসম্যানরাও অনেক ভালো। তারা ভালো রান করে দিলে স্পিনারদের জন্য কাজটা সহজ হয়ে যাবে।’

ওয়েস্ট ইন্ডিজের পেস বোলিং কিংবা তাদের টপ অর্ডার ব্যাটিং তো বটেই, বাংলাদেশ আরেকটি বিষয় নিয়েও একটু ভাবতে পারে মাঠে নামার আগে। ওয়েস্ট ইন্ডিজ যুব বিশ্বকাপের সেমিফাইনাল খেলেছে তিনবার। একমাত্র ফাইনালটি খেলেছে ২০০৪ সালে, সেটিও আবার বাংলাদেশের মাটিতেই। আর বাংলাদেশ সেখানে বিশ্বকাপের মতো বড় মঞ্চে এই প্রথম নামছে সেমিফাইনালে খেলতে। শেষ চারের উত্তেজনা আর রোমাঞ্চ নীরবে যে চাপটা তৈরি করবে, সেটি সামলাতে পারবেন তো মেহেদীরা? বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল অবশ্য একে চাপ হিসেবে নিচ্ছে না। সেমিফাইনালকে তারা ভাবছে নতুন উচ্চতায় ওঠার সোপান।

ক্রিকেট

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে