Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০২-০৫-২০১৬

কেউ যাতে গণমাধ্যমের কাজে হস্তক্ষেপ করতে না পারে: রাষ্ট্রপতি

কেউ যাতে গণমাধ্যমের কাজে হস্তক্ষেপ করতে না পারে: রাষ্ট্রপতি

ঢাকা, ০৫ ফেব্রুয়ারি- বাইরের কেউ যাতে গণমাধ্যমের কাজে হস্তক্ষেপ করতে না পারে সে ব্যাপারে সজাগ থাকতে বলেছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ।

শুক্রবার সকালে রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে ইংরেজি দৈনিক 'দ্য ডেইলি স্টার'- এর রজত জয়ন্তী উপলক্ষে আলোচনায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য প্রদানকালে রাষ্ট্রপতি এ আহ্বান জানান।

রাষ্ট্রপতি বলেন, সংবাদপত্রের বিরুদ্ধে আক্রমণ গণতন্ত্রের জন্যও মারাত্মক হুমকি। তাই সাংবাদিকদের ঐক্যবদ্ধভাবে এই অপশক্তিকে মোকাবিলা করে দেশকে এগিয়ে নেওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

সেইসাথে সমালোচনা যাতে ‘একপেশে’ না হয়ে গঠনমূলক হয়, সে বিষয়েও তিনি সাংবাদিকদের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন।

তিনি বলেন, ‘সেলফ সেন্সসরশিপকে কাজে লাগাতে হবে। বাইরের কেউ যাতে গণমাধ্যমের ব্যাপারে হস্তক্ষেপ করতে না পারে সে ব্যাপারে সজাগ থাকতে হবে।’

রাষ্ট্রপতি বলেন, গণতান্ত্রিক ধারা অব্যাহত রাখতেও গণমাধ্যমকে কাজ করতে হবে।

‘সকল গণমাধ্যম বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ প্রকাশ করে জাতির উন্নয়নে সর্বদা সচেষ্ট থাকবে। দেশের গণতন্ত্র ও সাংবিধানিক ধারা অব্যাহত রাখতে তারা আরও তৎপর হবে’ বলেন রাষ্ট্রপতি।

গণমাধ্যমকর্মীদের উদ্দেশে রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘মনে রাখতে হবে, স্বাধীনতা মানে যা ইচ্ছে তা করা বা যথেচ্ছাচার নয়। একজনের স্বাধীনতার জন্য অন্যের স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ করার অধিকার কেউ কাউকে দেয়নি। তাই দায়িত্ব পালনকালে আপনাদেরকে সচেতন হতে হবে।’ 

তিনি বলেন, সংবাদপত্রে সরকার, এমনকি রাষ্ট্রপতির সমালোচনা করতেও বাধা নেই। কিন্তু তা যেন তথ্যভিত্তিক হয়।  কোনোভাবেই যেন একপেশে না হয়। গঠনমূলক সমালোচনা সরকার পরিচালনা ও জাতিগঠনে সঠিক সিদ্ধান্ত গ্রহণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে।

ধর্মের অপব্যবহার রোধেও সংবাদ মাধ্যমকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়ে আবদুল হামিদ বলেন, ‘ধর্মকে ব্যবহার করে কেউ যাতে অশুভ কিছু করতে না পারে সে ব্যাপারেও গণমাধ্যমকে ভূমিকা নিতে হবে। সংবাদপত্রসহ সকল গণমাধ্যমকে ঐক্যবদ্ধভাবে জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড মোকাবেলায় কাজ করতে হবে।’

তিনি বলেন, ধর্মীয় সম্প্রীতির বাংলাদেশে সকল ধর্মের মানুষ স্বাধীনভাবে নিজ নিজ ধর্ম পালন করে এবং প্রতিটি ধর্মীয় উৎসব সার্বজনীনভাবে পালিত হয়।

বাংলাদেশের উন্নয়নের ‘অগ্রযাত্রা’ এগিয়ে নিতে গণমাধ্যমের ভূমিকার কথা তুলে ধরে রাষ্ট্রপতি হামিদ বলেন, ‘উন্নয়নের এ যাত্রাকে আরও এগিয়ে নিতে আপনাদেরও এগিয়ে আসতে হবে। সাদাকে সাদা আর কালোকে কালো বলার সৎ সাহসই পারে একজন সাংবাদিককে পেশাগত উৎকর্ষের শীর্ষে নিয়ে যেতে।’

অনুষ্ঠানের এক পর্যায়ে বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদানের জন্য দেশের খ্যাতনামা ২৪ বিশিষ্ট নাগরিকের হাতে পদক তুলে দেন রাষ্ট্রপতি। প্রতিষ্ঠান হিসেবে মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরকেও দেয়া হয় বিশেষ সম্মাননা।

মিডিয়া ওয়ার্ল্ডের চেয়ারপারসন রোকেয়া আফজাল রহমানের সভাপতিত্বে অন্যদের মধ্যে ইমেরিটাস অধ্যাপক আনিসুজ্জামান, ভারতের বিশিষ্ট সাংবাদিক কুলদীপ নায়ার, থাইল্যান্ডের দ্য নেশন মাল্টিমিডিয়া গ্রুপের সম্পাদনা ও ব্যবস্থাপনা পর্ষদের প্রধান উপদেষ্টা সুথিচাই সাই ইয়ুন, ভারতের দ্য হিন্দু গ্রুপ অব পাবলিকেশন্সের চেয়ারম্যান এন রাম অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন।

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে