Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০২-০৫-২০১৬

বায়ুশূন্য চাঁদে যুক্তরাষ্ট্রের উড়ন্ত পতাকা

বায়ুশূন্য চাঁদে যুক্তরাষ্ট্রের উড়ন্ত পতাকা

ওয়াশিংটন, ০৫ ফেব্রুয়ারি- একটা সফল অভিযান আরও দূরের পথ পাড়ি দেওয়ার স্বপ্ন দেখায়। সফলভাবে মহাশূন্য অভিযানের পর সোভিয়েত বিজ্ঞানীদের দৃষ্টি পড়ে চাঁদের ওপর। চাঁদে নভোযান পাঠানোর বন্দোবস্ত করেন তারা। ১৯৫৯ সালে ১৩ সেপ্টেম্বর সর্বপ্রথম চাঁদের মাটিতে অবতরণ করে রুশ মহাকাশযান লুনা-২। রচিত হয় নতুন ইতিহাস। মানুষ স্বপ্ন দেখে আরও বড় ইতিহাস গড়ার।

মহাকাশে রাশিয়ার সাফল্য ঈর্ষা জাগায় যক্তরাষ্ট্রের বিজ্ঞানীদের। প্রথম সফল মহাকাশ যান তৈরি করে তারা। তাদেরকে টেক্কা দিয়ে একের পর এক অক্ষয় কীর্তি গড়ে যাচ্ছে রুশরা! তারাও উঠে পড়ে লাগে। শুরু হয় স্নায়ু যুদ্ধ। কে কার আগে চাঁদে মানুষ পাঠাবে! অবশেষে রুশদের টেক্কা দিয়ে তিনজন আরোহী নিয়ে চাঁদের দিকে এগিয়ে চলে মার্কিন মহাকাশ যান অ্যাপোলো-১১। ভাগ্যবান তিন নভোচারী হলেন নীল আর্মস্ট্রং, এডউইন বাজ অলড্রিন এবং মাইকেল কলিন্স।

১৯৬৯ সালের ১৬ জুলাই নাসার কেপ কেনেডি স্পেস সেন্টারে তিন নভোচারীকে নিয়ে চাঁদের অভিমুখে যাত্রা করে অ্যাপলো-১১। ২০ জুলাই গ্রিনিচ সময় রাত ৮টা ১৮ মিনিটে চাঁদের মাটিতে পা রাখেন নীল আর্মস্ট্রং। চাঁদের মাটিতে পা রেখেই আর্মস্ট্রং বলেন, ‘এটা একজন মানুষের জন্য ক্ষুদ্র একটি পদক্ষেপ, কিন্তু মানব জাতীর জন্য বিশাল অগ্রযাত্রা।’ এর ঠিক বিশ মিনিট পর নামেন অলড্রিন। মূল মহাকাশযানকে কক্ষপথে রেখে ‘ঈগল’ নামের এক খেয়াযানে করে চাঁদে নামেন দুই নভোচারী। কলিন্স চাঁদের বুকে নামেন নি। তিনি মূল স্পেসশিপে চড়ে চাঁদের কক্ষপথ প্রদক্ষিণ করেন।

আর্মস্ট্রং আর অলড্রিন চাঁদের বুকে ওড়ান আমেরিকার পতাকা। হয়তো ভাবছেন চাঁদে বাতাস নেই। তো পতাকা উড়ল কী করে?

আসলে পতাকার দণ্ডের ওপর দিকে লম্বভাবে হাতের মতো আরেকটা চিকন দণ্ড লাগানো হয়েছিল। মূল দণ্ডের গায়ে পতাকা যেভাবে বাধা হয় সেভাবেই বাঁধা হয়েছিল। অন্য দুটির গায়ে পতাকার ওপর দিকটা সেলাই করে দেওয়া হয়েছিল। তাই পতাকা চাঁদের মাটিতেও সোজাভাবে মেলে ছিল।
 
প্রায় আড়াই ঘণ্টা পর আর্মস্ট্রং আর অলড্রিন মূল মহাকাশযানে ফিরে আসেন। চাঁদে অভিযানের পুরো ঘটনাটা টেলিভিশনে দেখানো হয়। সারাবিশ্বের ৬০ কোটি লোক একসাথে সেই দৃশ্য দেখেন।এরপর আরও পাঁচবার মানুষ চাঁদে গেছে। তবে ১৯৭২ সালের পর আর কোনও মানুষ চাঁদের বুকে পা রাখেনি।

শুধু আমেরিকা আর ইউরোপ নয়, চন্দ্র বিজয়ে শামিল হয়েছে আমাদের প্রতিবেশী দেশগুলোও। ২০০৮ সালের ১৪ নভেম্বর ভারতের চন্দ্রযান এমআইপি চাঁদের বুকে অবতরণ করে। ২০০৯ সালের ১ মার্চ চীনের নভোযান চ্যাং-১ চাঁদের মাটি স্পর্শ করে।

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে