Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০২-০৪-২০১৬

শনির বলয় রহস্য  

শনির বলয় রহস্য

 

আমাদের সৌর জগতের আটটি গ্রহ। তার মধ্যে চারটি গ্রহে রয়েছে বলয়- বৃহস্পতি, নেপচুন, ইউরেনাস ও শনি। এর মধ্যে বৃহস্পতি, নেপচুন এবং ইউরেনাসের চারপাশ দিয়ে যে বলয় রয়েছে সেটা খুব একটা উজ্জ্বল না। শুধুমাত্র শনির বলয়ই হচ্ছে ব্যতিক্রম। এটা সবচেয়ে বেশি উজ্জ্বল। যে কারণে এই বলয় মানুষের মনে সৃষ্টি করেছে রহস্যের বলয়। হয়তোবা এই কারণেই শনি গ্রহের বলয় আবিষ্কৃত হয়েছিল সবার আগে। ইতালির জ্যোতির্বিদ গ্যালিলিও হচ্ছেন প্রথম ব্যক্তি যিনি নিজের আবিষ্কৃত দূরবীক্ষণ যন্ত্র দিয়ে এই বলয় আবিষ্কার করেছিলেন। তবে দুঃখজনক ব্যাপার হচ্ছে, তিনি এই বলয়কে ততটা পরিষ্কার ভাবে দেখতে পারেন নি যাতে বোঝা যায়, ঠিক কী আছে এই উজ্জ্বল বলয়। শনির বলয় গঠিত হয়েছে আবার পাঁচটি ছোট-বড় বলয়ের সমন্বয়ে এবং এই পাঁচ বড় বলয় আবার গঠিত হয়েছে অসংখ্য ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র বলয়ের সমন্বয়ে। কিন্তু ঠিক কী দিয়ে তৈরি হয়েছে এই বলয় সেটাই হচ্ছে রহস্য? 

বলয় তৈরি হয়েছে বরফ এবং ধূলিকণা দিয়ে। এর সমন্বিত ব্যাস হচ্ছে ২ লাখ ৭০ হাজার কিমি। মূল বলয়ের যে পাঁচটি উপ বলয় রয়েছে সেগুলোর নামকরণ করা হয়েছে ভেতরের থেকে বাইরের দিকে যথাক্রমে সি, বি, এ, এফ এবং জি বলয় হিসেবে। এ সব উপ বলয়ের সবগুলো কিন্তু উজ্জ্বল না। কয়েকটি রয়েছে খুবই পাতলা। যে কারণে পৃথিবী থেকে দেখাও কষ্টসাধ্য। পাঁচ বলয়ের মধ্যে সবচেয়ে বড় এবং উজ্জ্বল বলয় হচ্ছে, বি-বলয়। আবার এটা একইসাথে সবচেয়ে বেশি আলো নিরোধক এবং অস্বচ্ছও। যে কারণে মহাশূন্য যান থেকে যে সব ছবি তোলা হয়েছে তাতে এই বি বলয়কে প্রায়ই কালো দেখা গেছে। বিজ্ঞানীরা এই বি-বলয়ের ব্যাপারে খুবই আগ্রহী।


কালো বি-বলয়

সম্প্রতি বিজ্ঞানীরা প্রথমবারের মত এই বি-বলয়ের ওজন নির্ণয় করার চেষ্টা করেছেন। নির্ণয়ের পর দেখা গেছে, আগে যতটা মনে করা হতো এই বলয়ের উপাদানগুলোর ওজন আসলে ততটা না। গবেষক দলটি আবিষ্কার করেছেন, বলয়ের যে জায়গাগুলো অস্বচ্ছ, সে জায়গাগুলো হালকা। এটা একটা বিস্ময়কর আবিষ্কার। কারণ, বি-বলয়ের সব জায়গা একরকম না। কোনো কোনো জায়গা স্বচ্ছ আবার কোনো জায়গা অস্বচ্ছ। উদাহরণ স্বরূপ বলা যায়, ময়লা পানির ওজন পরিষ্কার পানির থেকে বেশি। কারণ ময়লা পানিতে মিশে থাকে কিছু বাড়তি ময়লা উপাদান এবং অণু পরমাণু। কিন্তু শনির বলয়ের ক্ষেত্রে হচ্ছে উল্টোটা। স্বচ্ছ জায়গাগুলো যেখানে হালকা হওয়ার কথা ছিল, সেখানে অসচ্ছ জায়গা হচ্ছে হালকা।              

তাছাড়া বি-বলয়ের সামগ্রিক ভরও পাওয়া গেছে আমাদের ধারণার থেকে কম। যদিও বি-বলয়ের কিছু কিছু স্থানের ঘনত্ব পার্শ্ববর্তী এ-বলয়ের থেকে ১০ গুণ বেশি তার পরও এটা এ-বলয়ের থেকে মাত্র ২ থেকে ৩ গুণ ভারী। এই গবেষণাটি সম্প্রতি প্রকাশ পেয়েছে ‘ইকারাস’ জার্নালে। বি-বলয়ের ভর বোঝার জন্য বিজ্ঞানীরা বলয়ের আভ্যন্তরীণ পদার্থগুলোর ভেতরে যে ক্ষুদ্র বলয় রয়েছে সেগুলোকে পরীক্ষা নিরীক্ষা করেছেন। পদার্থগুলোর এই ক্ষুদ্র বলয়কে তারা বলছেন ‘স্পাইরাল ডেনসিটি ওয়েব’। এদের ক্ষুদ্র বলয় সৃষ্টির কারণ হচ্ছে শনির মধ্যাকর্ষণ শক্তি তাদেরকে টেনে ধরছে। 


বড় বলয়ের ভেতরের এই ক্ষুদ্র পদার্থগুলোর যে প্রত্যেকটি আলাদা আলাদা বলয় রয়েছে সেগুলোর কাঠামো ভিন্ন। কাঠামো আলাদা হওয়ার কারণ তাদের ভর আলাদা এবং সেই কারণে তাদের প্রতি শনির আকর্ষণ বলও আলাদা। সর্বোপরি এই কাঠামো জানার পরে বিজ্ঞানীরা ভর নির্ণয় করতে পেরেছেন। ফলাফলে দেখা যায়, বি বলয়ের ‘সারফেস মাস ডেনসিটি’ প্রতি বর্গ সেন্টিমিটারে ৪০ থেকে ১৪০ গ্রাম। সোজা কথায় বলতে গেলে, এই ভর হচ্ছে প্রতি বর্গ সেন্টিমিটারে একটা কলার ওজনের সমান। 

যুক্তরাষ্ট্রের আইডাহো বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক এবং এই গবেষণার প্রধান লেখক ম্যাথিউ হেডম্যান বলেন, ‘বলয়ের ভিন্ন ভিন্ন স্থানের একই পরিমাণ পদার্থের সচ্ছতা কেন ভিন্ন হচ্ছে সেটা এখান থেকে পরিষ্কার হয়েছে। এটা হয়তো হতে পারে প্রত্যেক পদার্থের আকার কিংবা ঘনত্বের সাথে সম্পর্কিত একটা কিছু অথবা এটা হতে পারে ভিন্ন আকৃতির বলয়ের সাথে সম্পর্কিত একটা কিছু।’


শনির বলয়ের ভিন্নতা

শনির গ্রহের মূল বলয়ের ভিতরকার এই অতি ক্ষুদ্র বলয়কে যত বেশি করে বোঝা যাবে, গ্রহের বয়স নির্ণয়ে সেটা তত বেশি সাহায্য করবে। কারণ ক্ষুদ্র বলয়ের কারণে এরা মহাজাগতিক ধূলিকণা আকর্ষণ করবে খুব দ্রুত, যতক্ষণ পর্যন্ত না শুন্য স্থান পূর্ণ হয়।            

মার্কিন মহাকাশ সংস্থা নাসার বিজ্ঞানী লিনডা স্পিলকার বলেন, ‘প্রথমবারের মত বি-বলয়ের ওজন নির্ণয়ের সফলতায় শনির বলয় রহস্যভেদে আমরা এক ধাপ এগিয়ে গেছি। এই বলয় এতোই চমৎকার এবং জমকালো যে, কিভাবে এটা গঠিত হয়েছিল তার রহস্য ভেদ না করে আমরা কিছুতেই নিবৃত হতে পারছি না।’ 

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে