Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০২-০২-২০১৬

‘বিরল আউট’ ঘিরে আলোচনায় যুব বিশ্বকাপ

‘বিরল আউট’ ঘিরে আলোচনায় যুব বিশ্বকাপ

ঢাকা, ০২ ফেব্রুয়ারী- ওয়েস্ট ইন্ডিজ-জিম্বাবুয়ের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচটি নিষ্পত্তি হয়েছে ‘বিরল’ এক আউটে। অদ্ভুত সেই আউট ঘিরে বিশ্বক্রিকেটের আলোচনার কেন্দ্রে এখন বাংলাদেশের যুব বিশ্বকাপ। শেষ ওভার বল করতে এসেছিলেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের কিমো পল। কোয়ার্টার ফাইনালে যেতে জিম্বাবুয়ের দরকার ৩ রান। কেউ আউট হলেই ম্যাচ শেষ। পল আম্পায়ারকে অতিক্রম করে লাফ দেন। কিন্তু বল ডেলিভারি না করে লাগিয়ে দেন নন-স্ট্রাইক প্রান্তের স্টাম্পে! সমস্বরে আবেদন। তৃতীয় আম্পায়ার টিভি রিপ্লেতে দেখলেন, নন স্ট্রাইকিং প্রান্তে থাকা জিম্বাবুইয়ান ব্যাটসম্যান রিচার্ড এনগাভারা ক্রিজের বাইরে চলে গিয়েছিলেন বল ডেলিভারির আগেই। স্ট্যাম্পে যখন লাগানো হলো, ব্যাট মাত্রই সীমা অতিক্রম করেছে। রান আউট!

এমন উত্তেজনার ম্যাচ, বিশ্বকাপে থাকা না-থাকা নির্ধারণ হবে যে ম্যাচে, তার এমন সমাপ্তি অনেকে মানতে পারছেন না! ক্রিকেটে এমন আউট খুব বিরল। ক্রিকেটের পরিভাষায় যে আউটগুলোকে বলা হয় ‘মানকাডেড’। টেস্ট আর ওয়ানডে মিলিয়ে যে আউট হয়েছে মাত্র আটবার।

১৯৪৭ সালের ১৩ ডিসেম্বর অস্ট্রেলিয়া সফরে গিয়ে ভারতের ভিনু মানকড় দুবার (প্রস্তুতি ম্যাচ ও পরে সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টে) অস্ট্রেলিয়ার বিল ব্রাউনকে এভাবে আউট করেছিলেন। এ কারণেই এই আউটের এমন নাম। ক্রিকেটের আইনে এটি আউট। কারণ এই আউটের নিয়ম না থাকলে নন স্ট্রাইকিং প্রান্তের ব্যাটসম্যান তো বল ডেলিভারির আগেই অনেকটা পথ এগিয়ে থেকে অন্যায় সুবিধা নিতে পারত। যদিও মানকাডেড আউট হওয়ার সময় ব্যাটসম্যানের অন্যায় সুবিধা নিতে চাওয়ার বদলে মুহূর্তের অসতর্কতাই বেশি করে দেখা যায়। তাই এই আউট ক্রিকেটীয় চেতনার সঙ্গে যায় কি না, এ নিয়ে সব সময় বিতর্ক হয়। হচ্ছে আজও। এমন অদ্ভুত উপায়ে অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ থেকে বাদ যেতে হওয়ায় জিম্বাবুয়ে ম্যাচ শেষে ওয়েস্ট ইন্ডিজের খেলোয়াড়দের সঙ্গে হাতও মেলায়নি। হু হু কান্নায় ভেঙে পড়েছে জিম্বাবুয়ের অনেকে। টুইটারে সাবেক ও বর্তমান ক্রিকেটাররা পক্ষে-বিপক্ষে লিখছেন। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সর্বশেষ এমন আউটের শিকার হওয়া ইংল্যান্ডের জস বাটলার টুইট করে লিখেছেন, ‘যা দেখলাম তা বিশ্বাস হচ্ছে না। এটা লজ্জাজনক।’

ইয়ান মরগান উইন্ডিজ যুবাদের ভীতু বলে সম্বোধন করে টুইটে লেখেন, ‘ওয়েস্ট ইন্ডিজ যুবাদের বিব্রত হওয়া উচিত।’ তবে টিনোবেস্ট কিন্তু ঠিকই উত্তরসূরিদের পাশে দাঁড়িয়েছেন, ‘দারুণ খেলেছো ওয়েস্ট ইন্ডিজ অনূর্ধ্ব-১৯ দল। এমন ছেঁচা ধরা রাখো!’

জনপ্রিয় ধারাভাষ্যকার হার্শাভোগলে লিখেছেন, ‘অবাক করার বিষয় হচ্ছে যখন ব্যাটসম্যান বোলারকে পিটায় তখন ক্রিকেটের চেতনা আলোচনায় আসে না, কিন্তু বোলার মানকাডেড করলে সেটা আলোচিত হয়...।’

ক্রিকেট

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে