Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 2.0/5 (3 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print

আপডেট : ০১-৩১-২০১৬

বাণিজ্য সম্প্রসারণের তাগিদ প্রধানমন্ত্রীর

বাণিজ্য সম্প্রসারণের তাগিদ প্রধানমন্ত্রীর

ঢাকা, ৩১ জানুয়ারি- দেশের ব্যবসায়ীদের বাণিজ্য সম্প্রসারণে নতুন নতুন বাজার খোঁজার পরামর্শ দিয়ে, আগামীর চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় বাণিজ্য সম্প্রসারণ ও নতুন বাজার সৃষ্টি করতে সরকারের পাশাপাশি ব্যবসায়ীদের এগিয়ে আসার তাগিদ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বর্তমানে ৭২৯টি পণ্য ১৯২টি দেশে রফতানি হচ্ছে। ২০০৫-২০০৬ অর্থবছরে রফতানি আয় ছিল ১০ দশমিক ৫৩ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। বর্তমানে ৩২ দশমিক ২ বিলিয়ন মার্কিন ডলারে উন্নীত হয়েছে। রিজার্ভ পৌঁছেছে ২৭ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের উপরে। আগামীর চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় বিশ্ব বাজারে বাংলাদেশি পণ্যের নতুন বাজার সৃষ্টি করতে হবে।

বিকেলে চট্টগ্রামের আগ্রাবাদে দেশের একমাত্র বিশ্ববাণিজ্য কেন্দ্রের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ আহ্বান জানান। 

দেশের ব্যবসা-বাণিজ্যসহ সামগ্রিক উন্নয়নে সরকারের নেয়া নানা পদক্ষেপের কথা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাঙালি জাতি যে কোনো চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে পারে। আমরা যখন ক্ষমতায় আসি তখন বিশ্ব অর্থনীতি ছিল মন্দা। সবাই বলেছিল রফতানি বাণিজ্য কমবে। আমি বলেছিলাম কমবে না। বিরোধী দলের জ্বালাও-পোড়াও কর্মসূচির মধ্যেও আমাদের রফতানি বেড়েছে। পদ্মাসেতু ছিল আমাদের বড় চ্যালেঞ্জ। সেই চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করে পদ্মাসেতু নির্মাণ করছি।

দেশীয় ও আন্তর্জাতিক ব্যবসা-বাণিজ্যের ক্ষেত্রে নিজেদের পণ্য ও সেবার মান এবং উৎপাদনশীলতা বাড়ানোর তাগিদ দিয়ে প্রধানমন্ত্রী ব্যবসায়ীদের উদ্দেশ্যে বলেন, পণ্যের ব্রান্ডিং ও পণ্য আকর্ষণীয় করার দিকে মনোযোগ দিতে হবে। রফতানি বহুমুখী করতে নতুন নতুন বাজার খোঁজে বের করে কোন দেশে কোন পণ্যের চাহিদা বেশি তা খোঁজে বের করতে হবে।

প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যে গুরুত্ব পায় সাম্প্রতিক গ্যাস সংকটের বিষয়টিও। তিনি বলেন, এ সংকট দূর করতে চেষ্টা করছে সরকার। এজন্য বেশকিছু উদ্যোগেরও কথাও তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী বলেন, চট্টগ্রামের গ্যাস সংকট কাটাতে ত্রিপুরা থেকে গ্যাস আমদানির পরিকল্পনা করছে সরকার। চট্টগ্রামকে বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে কর্ণফুলির নিচে টানেল নির্মাণসহ বিভিন্ন পদক্ষেপের কথা জানান প্রধানমন্ত্রী। এসময় বন্দরের সক্ষমতা বৃদ্ধিতে তার সরকারের নেয়া উদ্যোগের কথাও জানান তিনি। 

বিএনপি-জামায়াত জোটের সমালোচনা করে আওয়ামী লীগ নেত্রী শেখ হাসিনা বলেন, তারা মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেনে নিতে চায়না। আমরা যে স্বাধীন হয়েছি, এটি তাদের বিশ্বাস হয়না। আমরা শান্তি ও উন্নয়নে বিশ্বাস করি। আর বিএনপি আন্দোলনের নামে বাংলাদেশের মানুষকে পুড়িয়ে মেরেছে।

প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, আজ সবার হাতে মোবাইল, থ্রিজি চালু হয়েছে। শিগগির ফোরজি চালু হবে। গ্রামে বসে সারা বিশ্বের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারছে। ভারত-ভুটান-নেপালের সঙ্গে যোগাযোগ ব্যবস্থা সহজ করা হয়েছে। ৫ হাজার ২৭৫টি ডিজিটাল সেন্টারের মাধ্যমে ২০০ ধরনের সেবা দেওয়া হচ্ছে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত, বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ, সংসদ সদস্য ও চট্টগ্রাম চেম্বারের সাবেক সভাপতি এমএ লতিফ, চট্টগ্রাম চেম্বার সভাপতি মাহবুবুল আলম প্রমুখ বক্তব্য দেন। 

পরে বিকেলে বিকেল ৫টা ১০ মিনিটে বন্দরনগরীর আগ্রাবাদে ওয়ার্ল্ড সেন্টারের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী। এর আগে বেলা সাড়ে ১২টার দিকে চট্টগ্রাম সেনানিবাসে ইস্ট বেঙ্গল রেজিমেন্টের ৯ম টাইগার্স পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রী।

পরে বিকেল ৪টা ১৫ মিনিটে প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু এভিনিউ’র (অক্সিজেন-কুয়াইশ বাইপাস) কুয়াইশ পয়েন্টে এক অনুষ্ঠানে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (সিডিএ)অধীনে বাস্তবায়নাধীন প্রায় ৫ হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে ৬ প্রকল্পের উদ্বোধন ও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন তিনি।

শনিবার সকাল ১১টা ৪৫ মিনিটে হেলিকপ্টার যোগে চট্টগ্রাম সেনানিবাসে এসে পৌঁছান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সন্ধ্যা ৬টা ৫০ মিনিটে বাংলাদেশ বিমানের একটি বিশেষ উড়োজাহাজে চড়ে ঢাকার উদ্দেশ্য রওয়ানা হন তিনি।

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে