Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 1.0/5 (1 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০১-২৪-২০১৬

নেতাজি রাশিয়াতে ছিলেন, ফাইল আনা হোক: মমতা

আশরাফ ইসলাম


নেতাজি রাশিয়াতে ছিলেন, ফাইল আনা হোক: মমতা

কলকাতা, ২৪ জানুয়ারি- ভারত স্বাধীনতা আন্দোলনের রহস্যময় ব্যক্তিত্ব আজাদ হিন্দ ফৌজের নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু সংক্রান্ত ১০০টি গোপন ফাইল প্রকাশ করলেও নেতাজি সম্পর্কে এখনও অনেক তথ্য আড়ালে রয়ে গেছে বলে মনে করেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। একই সঙ্গে তিনি নেতাজির রাশিয়া অবস্থানকালে সেখানে কি কি করেছেন সেসব নতিপত্র আনার জন্য উদ্যোগ গ্রহণ করারও দাবি করেছেন।

শনিবার উত্তরবঙ্গে তিনি বলেন, নেতাজি রাশিয়াতেই ছিলেন। রুশ সরকার ফাইল প্রকাশ করলেই সেই তথ্য সামনে আসবে। এ সময় তিনি আরও দাবি করেন, ভারতের স্বাধীনতা আন্দোলনে অবদানের জন্য নেতাজিকে জাতীয় নেতা ঘোষণা করা হোক। কলকাতার সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজার পত্রিকা এক প্রতিবেদনে এমন তথ্যই জানিয়েয়েছে।

প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, রাজ্য সরকারের হাতে থাকা নেতাজি সংক্রান্ত ৬৪টি গোপন ফাইল আগেই প্রকাশ্যে এনেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কেন্দ্রের হাতে যে সব গোপন নথি ওই বিষয়ে রয়েছে, তাও প্রকাশ করা উচিত বলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দাবি তুলেছিলেন তখনই।

প্রধানমন্ত্রীর দফতর, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক ও বিদেশ মন্ত্রকের হাতে থাকা মোট ১০০টি গোপন ফাইল প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি শনিবার প্রকাশ করেছেন। কিন্তু মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাতে সন্তুষ্ট নন। এই সব ফাইল থেকে নেতাজির অন্তর্ধান সম্পর্কে সব কিছু জানা যাবে না বলে তিনি মনে করছেন।

উত্তরবঙ্গ সফররত মুখ্যমন্ত্রী এ দিন সকালে বলেন, ‘নেতাজি গবেষকরা বলছেন, নেতাজি রাশিয়াতে ছিলেন। আমি কেন্দ্রের কাছে দাবি জানাচ্ছি, রাশিয়া থেকে ফাইল আনা হোক।’ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কথায়, রাশিয়া থেকে ফাইল আনালে বোঝা যাবে ৭৫ বছর আগে দেশ ছেড়ে যাওয়ার পর নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর শেষ পর্যন্ত কী হয়েছিল। নেতাজির দেহাবশেষ বলে যা জাপানের রেনকোজি স্মৃতিমন্দিরে রাখা রয়েছে, তার ডিএনএ পরীক্ষা করা হল না কেন, মমতা এ দিন সে প্রশ্ন তোলেন। অবশ্য চিতাভষ্মের ডিএনএ পরীক্ষা হওয়া কী করে সম্ভব, সে প্রসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী কোনও মন্তব্য করেননি। রেনকোজি থেকে চিতাভষ্ম দেশে ফেরোনার দাবিও তোলেন তিনি। তিনি আরও বলেন, ‘আমরা তো সব ফাইল প্রকাশ করেছি। কেন্দ্রও সব ফাইল সামনে আনুক। প্রধানমন্ত্রী রাশিয়া গিয়েছিলেন। নেতাজি সংক্রান্ত ফাইল তিনি রাশিয়ার কাছে চেয়েছেন কি না জানি না। মানুষ সেটা জানতে চায়।’

কেন্দ্রের প্রকাশ করা ১০০টি ফাইলে যে সব তথ্য রয়েছে, তা থেকে এখনও নেতাজি অন্তর্ধান সংক্রান্ত বিষয়ে কোনও বিতর্কিত বিষয় সামনে আসেনি। তবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যে তাইহোকু বিমান দুর্ঘটনা মানতে নারাজ, তা কিন্তু দিনকয়েক আগেও তিনি স্পষ্ট করেছেন। তিনি নেতাজির পরিজনদের উপস্থিতিতেই সম্প্রতি একটি অনুষ্ঠানে বলেন, ‘তাইহোকুতে নেতাজির মৃত্যু হয়েছিল বলে আমি মানি না।’

এদিকে মমতা ব্যানার্জি এক টুইটার বার্তায় জানিয়েছেন, ‘নেতাজিকে জাতীয় নেতার স্বীকৃতি দিতে। তিনি সে সম্মান পাওয়ার অধিকারী।’ তিনি বলেছেন, ‘আমরা বিশ্বাস করি এসব নথিপত্রের মাধ্যমে নেতাজি সম্পর্কে সত্যটা প্রকাশ পাবে। তরুণ সম্প্রদায় ও আগামী প্রজন্মর জন্য আমাদের উচিত সত্যকে তুলে ধরা।’ সাবেক কংগ্রেস প্রেসিডেন্ট ও গান্ধীর খুব কাছের মানুষ নেতাজি তৎকালীন ফরমোজা ও বর্তমান তাইওয়ানে বিমান দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন কথিত আছে।

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে