Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০১-২২-২০১৬

কম্পিউটারে নয়, সুস্থ থাকতে হাতে লিখুন

কম্পিউটারে নয়, সুস্থ থাকতে হাতে লিখুন

কলকাতা, ২২ জানুয়ারি- ডিপ্রেসন, অ্যাটেনসন ডেফিসিট, অ্যাংজাইটি ডিসওর্ডার-এই সমস্যাগুলো থেকে মুক্তির জন্য সাধারণত ফাস্ট ফুড বর্জন, নিয়মিত যোগা ও কাউন্সেলিং করানোর পরামর্শ দেন সাইকোলজিস্টরা৷ কিন্তু আপনি কি জানেন নিয়মিত হাতে লিখেও এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যায় ? কলকাতা ইন্সটিটিউড অফ গ্রাফোলজির কর্তারা জানাচ্ছেন, নিয়মিত সুসামঞ্জস্য ও ছন্দমেলানো হাতের লেখার অভ্যাসেও এই সমস্যাগুলো থেকে মুক্তি পাওয়া যায়৷ এমনকি, বৈজ্ঞানিক উপায়ে হাতের লেখা গ্যাসটিক-আলসার, ব্লাড প্রেসার, ডায়াবেটিসের মতো সমস্যা থেকেও মুক্তি দেয় ৷

হাতের লেখা থেকে মানুষের চরিত্র সম্পর্কে যেমন ধারণা পাওয়া যায় আবার থেকে মানুষের চরিত্রের বদল ঘটাতে পারে হাতের লেখা৷ শুধু তাই নয়, অনেক রোগ-ব্যাধির থেকেই মুক্তি দেয় হাতের লেখা৷ তবে সেটা অবশ্যই হতে হবে বৈজ্ঞানিক উপায়ে৷ সম্প্রতি কলকাতা প্রেস ক্লাবে আয়োজিত পেরেন্টিং, মেন্টাল হেলথ ও অ্যাংজাইটি ডিসওর্ডারের উপর একটি আলোচনাসভায় এই এই দাবী করেছেন কলকাতা ইনস্টিটিউড অফ গ্রাফোলজির কর্তারা৷ সংস্থার ডিরেক্টর মোহন বোস বলেন, কম্পিউটার, মোবাইলের দৌলতে হাতে লেখার অভ্যাস প্রায় অনেকেই ছেড়ে দিয়েছেন৷ তার বড় প্রভাব পরছে আমাদের মস্তিষ্কে৷ সেখান থেকেই ডিপ্রেসন, অ্যাটেনসন ডেফিসিট, অ্যাংজাইটি ডিসওর্ডার, ফ্রাস্টেশন –এই ধরনের সমস্যায় আক্রান্ত হচ্ছেন অধিকাংশ মানুষ৷

আলোচনাসভায় উঠে এসেছে যে, শিশুদের মধ্যেও এই সমস্যা দেখা যাচ্ছে৷ রিসার্চে দেখা দেখা গিয়েছে, এখনকার অধিকাংশ শিশুই আউটডোর গেম ছেড়ে ইলেকট্রনিক গেজেটসের প্রতি বেশি আকৃষ্ট৷ এই প্রবনতাই বাচ্চাদের মস্তিষ্ককে ক্ষতিগ্রস্থ করছে৷ এর প্রভাব পরছে তাঁদের মানসিক গঠনে, পড়াশোনায়, হাতের লেখায়৷ তাঁরা জানিয়েছেন, জন্মের পর সাত বছর পর্যন্ত মানুষের মস্তিষ্কের কোষগুলো দ্রুত বাড়ে৷ সেই সময় বৈদ্যুতিন মাধ্যমের সাউন্ড, লাইট কোষগুলির সঙ্গে ট্রেন্ড হয়ে যায়, ফলে বাচ্চাদের পড়ার সময় মনোসংযোগ কমে যায়৷ গ্রাফোলজিস্টরা জানাচ্ছেন, ওষুধ খেয়ে কিংবা যোগা করে এই সমস্যাগুলো থেকে যেমন মুক্তি পাওয়া যায় সেরকম বৈজ্ঞানিক ভাবে হাতে লিখেও সুস্থ থাকা যায়৷ অনেকেই এই উপায়ে সুস্থ হচ্ছেন বলে দাবী করেন তাঁরা৷

কলকাতা ইনস্টিটিউড অফ গ্রাফোলজির কর্তাদের বক্তব্য, খিটখিটে মেজাজ, আত্মহত্যার প্রবনতা, অবসাদ থেকে মুক্তি এমনকি কোনও ব্যক্তির দুর্বল জায়গাগুলোকেও হাতের লেখা দিয়ে ঢেকে দেওয়া যায়৷ এবিষয়ে একটি বইও প্রকাশ করেছেন তাঁরা৷এছাড়াও, পড়ুয়াদের হাতের লেখার উপর বিশেষ প্রশিক্ষণ দেওয়ার জন্য বিভিন্ন স্কুলে সচেতনমূলক কর্মসূচী নেওয়া হয়েছে৷

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে