Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০১-১৪-২০১৬

সিলেটে ১৯৭ কোটি টাকার কারাগারের উদ্বোধন জুলাইয়ে

রফিকুল ইসলাম কামাল


সিলেটে ১৯৭ কোটি টাকার কারাগারের উদ্বোধন জুলাইয়ে

সিলেট, ১৪ জানুয়ারি- সিলেট শহরতলির বাদাঘাটে সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগার নির্মাণের কাজ দ্রুত এগিয়ে চলেছে। অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের অগ্রাধিকারমূলক এ প্রকল্পের প্রায় ৮০ শতাংশ কাজই শেষ হয়েছে। ১৯৭ কোটি টাকা টাকা ব্যয়ে অত্যাধুনিক এই কারাগার নির্মাণ করা হচ্ছে। ২০১১ সালের ১১ আগস্ট নির্মাণ কাজ শুরু হওয়া সিলেট কেন্দ্রীয় কারগারের নির্মাণকাল ছিল ২০১৫ সালের জুন পর্যন্ত। কিন্তু এ সময়ের মধ্যে শেষ হয়নি নির্মাণ কাজ। কাজ শেষ করার মেয়াদ প্রায় এক বছর বাড়িয়ে চলতি বছরের জুলাইয়ে কাজ শেষে উদ্বোধন হওয়ার কথা রয়েছে।

সিলেট নগরীর প্রাণকেন্দ্র বন্দরবাজার সংলগ্ন ধোপদিঘিরপাড়ে দেশের প্রাচীনতম সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারের অবস্থান। ধারণ ক্ষমতা কম হওয়ায় এবং কারাগারটি জরাজীর্ণ হয়ে পড়ায় তা স্থানান্তর করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। ২০১০ সালে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদে (একনেক) সিলেট কারাগার স্থানান্তর প্রকল্প পাশ হয়। পরবর্তীতে প্রকল্পের লে-আউট প্ল্যান প্রণয়ন করে সিলেট গণপূর্ত বিভাগ। তাদের অধীনেই সিলেট শহরতলির বাদাঘাটে নতুন কারাগারের নির্মাণ কাজ চলছে। প্রায় ৩০ একর ভূমির উপর ১৯৭ কোটি টাকা ব্যয়ে কারাগারের নির্মাণ কাজ শুরু হয় ২০১১ সালের ১১ আগস্ট। প্রকল্প শেষ হওয়ার সময় ছিল ২০১৫ সালের জুন পর্যন্ত। কিন্তু নানা জটিলতায় এ সময়ের মধ্যে শেষ হয়নি কাজ। পরে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান হাবিব কন্সট্রাকশন, কৈশলী কন্সট্রাকশন, জেড কন্সট্রাকশন, ঢালি কন্সট্রাকশন ও জেবি কন্সট্রাকশন কোম্পানির আবেদনে চলতি বছরের জুলাই পর্যন্ত প্রকল্পটি শেষ করার মেয়াদ বাড়ানো হয়।

বর্তমানে দ্রুতগতিতে চলছে কারাগার নির্মাণের কাজ। জুলাইয়ের মধ্যে নির্মাণ কাজ শেষ করে সেখানে কারাগার স্থানান্তর করতে নির্দেশ দিয়েছেন অর্থমন্ত্রী। গত সোমবার তিনি কারাগার নির্মাণ কাজ পরিদর্শন করেন। 

সিলেট গণপূর্ত অধিদফতর সূত্র জানায়, নির্মিতব্য কেন্দ্রীয় কারাগারের ধারণক্ষমতা ২ হাজার। তবে ভবিষ্যতে তা ৪ হাজারে উন্নীত করা হবে। কারাগারে মোট ৬৪টি ভবন রয়েছে। তন্মধ্যে ২৮টি বহুতল, বাকিগুলো একতলা ভবন। এছাড়া স্টিল স্ট্রাকচারড ভবন রয়েছে ৪টি। কারাগারে পুরুষ বন্দিদের জন্য ৬ তলাবিশিষ্ট চারটি ভবন এবং মহিলা বন্দিদের জন্য ৪ তলাবিশিষ্ট একটি ভবন রয়েছে। কারাগারের মধ্যে রয়েছে একটি মসজিদ, একটি স্কুল, তিনটি ওয়াচ টাওয়ার, একটি ক্যান্টিন ও একটি গ্যারেজ। আছে হাসপাতাল, সেল, কারা কর্তৃপক্ষের জন্য ১৩০টি ফ্ল্যাট, গার্ড হাউস, ফুড গোডাউন, ফুয়েল গোডাউন প্রভৃতি।

সিলেট গণপূর্ত অধিদফতরের নির্বাহী প্রকৌশলী একেএম জিল­ুর রহমান জানান, দ্রুতগতিতে কারাগার নির্মাণের কাজ এগিয়ে চলেছে। কারাগারের ৬৪টি ভবনের মধ্যে শুধুমাত্র ৪টি ভবনের নির্মাণ কাজ বাকি। এগুলোর নির্মাণ কাজ চলছে। এছাড়া কারাগারের চারপাশে উঁচু সীমানা প্রাচীর ও অভ্যন্তরীণ সীমানা প্রাচীর নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে।

এদিকে কারাগারের জন্য সংযোগ সড়ক নির্মাণ নিয়ে জটিলতা তৈরী হয়েছে। ব্যক্তি মালিকানাধীন ভূমি সংক্রান্ত জটিলতায় সংযোগ সড়ক নির্মাণ কাজে দেরি হচ্ছে। তবে সোমবার অর্থমন্ত্রী কারাগার পরিদর্শনকালে সংযোগ সড়ক নির্মাণ কাজের বিষয়ে আলোচনা করেছেন। বাদাঘাট থেকে শহরতলির তেমুখী পর্যন্ত সংযোগ সড়ক নির্মাণ করার কথা বলেছেন তিনি।

প্রসঙ্গত, বর্তমান সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগার দেশের প্রাচীনতম কারাগারগুলোর মধ্যে অন্যতম। ১৭৮৯ সালে ধোপাদিঘিরপাড় এলাকায় আসামের কালেক্টর জন উইলিয়াম প্রায় ১ লাখ ভারতীয় রুপি ব্যয়ে ২৪.৬৭ একর জমির ওপর এ কারাগারটি নির্মাণ করেন। তৎকালীন আসাম রাজ্যের একমাত্র টিবি হাসপাতাল ছিল এ কারাগারেই।প্রশাসনিক প্রয়োজন এবং বন্দি আধিক্যের কারণে ১৯৯৭ সালে কারাগারটি কেন্দ্রীয় কারাগারে উন্নীত করা হয়। বর্তমানে বন্দি ধারণক্ষমতা ১২শ হলেও কারাগারে দ্বিগুণের বেশি বন্দি রয়েছে। এ কারণেই বাদাঘাটে নির্মাণ করা হচ্ছে নতুন কেন্দ্রীয় কারাগার।

সিলেট

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে