Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 1.0/5 (2 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print

আপডেট : ০১-১১-২০১৬

মেট্রোরেলের ডিপো নির্মাণে ঝুঁকিতে আট স্থাপনা

মেট্রোরেলের ডিপো নির্মাণে ঝুঁকিতে আট স্থাপনা

ঢাকা, ১১ জানুয়ারি- ভারতের মুম্বাইয়ে এই বছর যাত্রা শুরু করা মেট্রোরেল, ঢাকায়ও একই আদলেই তা হচ্ছে। রাজধানীর মেট্রোরেল প্রকল্পের জন্য উত্তরায় ডিপো নির্মাণের সময় ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে ছোট-বড় আটটি স্থাপনা। উত্তরা তৃতীয় পর্বে ৫৯ একর জায়গা হবে ঢাকার বহু প্রতীক্ষিত এ প্রকল্পের ডিপো।

প্রকল্প পরিচালক মো. মোফাজ্জেল হোসেন বলেন, উচ্চমাত্রার ভূমিকম্প প্রতিরোধে ডিপো নির্মাণে ‘স্যান্ড কনসেপসন পাইলিং’ করা হবে। এ সময় প্রচণ্ড কম্পন সৃষ্টি হবে। ডিপো এলাকায় মাটি নরম হওয়াতে বালি দিয়ে পাইলিং করার বিকল্প নেই।

প্রকল্প বাস্তবায়নে প্রায় ২২ হাজার কোটি টাকা লাগবে, যার ১৬ হাজার ৫৯৫ কোটি টাকা দেবে জাপানের রাষ্ট্রায়ত্ত উন্নয়ন সংস্থা, জাইকা; বাকি ৫ হাজার ৩৯০ কোটি টাকা জোগাবে সরকার। সরকারের অগ্রাধিকারমূলক এ প্রকল্প নির্ধারিত সময় ২০১৯ সালে বাস্তবায়িত রাস্তার মাঝ বরাবর উপর দিয়ে মোট ২৪ জোড়া মেট্রোরেল চলাচল করবে রাজধানীতে। উত্তরা থেকে শুরু হয়ে মিরপুর-ফার্মগেইট হয়ে মতিঝিল পর্যন্ত যাবে এই ট্রেন, সময় লাগবে ৪০ মিনিটেরও কম।

প্রকল্প পরিচালক জানান, মাটির মান ভালো না হওয়ায় ডিপো এলাকায় প্রায় ৩০ একর জায়গায় ৮০ থেকে ১২০ ফুট মাটি তুলে বালি দিয়ে বিশেষ ধরনের পাইলিং বা স্যান্ড কনসেপশন পাইলিং করা হবে। এই পাইলিংয়ের পর তা ভালো মাটি দিয়ে ভরাট করা হবে। এরপর ৩০ একর জায়গায় তৈরি হবে ডিপোর ভারি স্থাপনা।মোফাজ্জেল হোসেন বলেন, ডিপোর মূল অংশে এ পাইলিং করার সময় কম্পনের জন্য আশপাশের আটটি স্থাপনা ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে।

পাইলিং এলাকার ১৮ মিটারের মধ্যকার এসব স্থাপনার মধ্যে একটি কলেজের তিনতলা ভবন ও একটি আবাসিক এলাকার দুটি ভবন রয়েছে। ভবন ক্ষতিগ্রস্ত হলে ক্ষতিপূরণ দেওয়ার ব্যবস্থা রয়েছে জানিয়ে প্রকল্প পরিচালক বলেন, জাইকার নির্দেশিকা অনুযায়ী এ ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে। মেট্রোরেল প্রকল্পের ডিপো নির্মাণে ঠিকাদার নিয়োগ প্রক্রিয়া খুব শিগগির শুরু হবে বলেও তিনি জানান।

রাজধানীতে মেট্রোরেল রুট নির্মাণে ইতোমধ্যে অ্যালাইনমেন্ট ও ১৬টি স্টেশনের নকশা চূড়ান্ত হয়েছে। শেষ হয়েছে প্রকল্প এলাকার বিভিন্ন স্থানে চালানো ভূ-তাত্ত্বিক জরিপ। ডিটেইল ডিজাইনের কাজ শেষে হবে ২০১৬ সালের অগাস্টে।

প্রতিটি মেট্রোরেলে ছয়টি কোচ থাকবে। প্রতি স্কয়ার মিটারে আটজনের হিসাবে ব্যস্ততম সময়ে ১৮০০ যাত্রী চলাচল করতে পারবে এই ট্রেনে। মেট্রোরেলের ১৬টি স্টেশন হবে- উত্তরা (উত্তর), উত্তরা (সেন্টার), উত্তরা (দক্ষিণ), পল্লবী, মিরপুর-১১, মিরপুর-১০, কাজীপাড়া, তালতলা, আগারগাঁও, বিজয় সরণি, ফার্মগেইট, সোনারগাঁও, জাতীয় জাদুঘর, দোয়েল চত্বর, জাতীয় স্টেডিয়াম এবং বাংলাদেশ ব্যাংক এলাকায়।

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে