Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 3.0/5 (3 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০১-০৬-২০১৬

দ্বিতীয় জিহাদি জন কি বঙ্গসন্তান , প্রশ্ন ব্রিটেনে

দ্বিতীয় জিহাদি জন কি বঙ্গসন্তান , প্রশ্ন ব্রিটেনে

লন্ডন, ০৬ জানুয়ারি- সে দিন হাসতে হাসতে হিথরো থেকে প্যারিসের উড়ান ধরেছিল সে , সঙ্গে সন্তানসম্ভাবা স্ত্রী ও তিন সন্তান৷ ছবির শহরে দারুণ সময় কাটিয়ে তার পর আসল গন্তব্যে পৌঁছনো৷ সিরিয়া --- তত দিনে যা ইসলামিক স্টেটের সাম্রাজ্যে পরিণত হয়েছে৷ ১৫ মাস আগে সেখানে পৌঁছে সে পুরো দমে নেমে পড়ে খলিফাতন্ত্র গড়তে৷ আর তার মাঝেই একটা ছবি সে টুইটারে পোস্ট করে --- এক হাতে তার সদ্যোজাত চতুর্থ সন্তান ও অন্য হাতে অ্যাসল্ট রাইফেল৷ সে ছবিতে শোরগোল পড়ে যায় সর্বত্র৷ তার ঠিকুজি বের করতে গিয়ে জানা যায় তার নাম সিদ্ধার্থ ধর , ব্রিটেনের ধর্মান্তরিত মুসলিম৷ যার জেরে আইএসের জঙ্গিতন্ত্রে সে পরিচিত আবু রুমায়সাহ নামে৷তা হলে কি এই ইঙ্গ -বঙ্গ সন্তানকে ১৫ মাস আগে জামিন দেওয়াই কাল হয়েছিল ? এখন ব্রিটিশ গোয়েন্দা ও গুপ্তচর বাহিনীকে সে প্রশ্নটাই সব থেকে বেশি ভাবাচ্ছে৷ কারণ সম্প্রতি আইএস যে ভিডিয়ো প্রকাশ করেছে , তাতে দেখা গিয়েছে ব্রিটিশ ধরনে কথা বলা এক জিহাদিকে৷ তাকে 'নয়া জিহাদি জন ' বলে উল্লেখ করা হচ্ছে৷ তার সঙ্গে খুব বেশি অমিল নেই সে দিনের সিদ্ধার্থের৷

কোনও সম্ভাবনাই উড়িয়ে দিতে পারছেন না তদন্তকারীরা৷ ভিডিয়োর জিহাদির সঙ্গে যত রকম ভাবে সম্ভব সিদ্ধার্থর গলার আওয়াজ ও চেহারা মেলানোর চেষ্টা করা হচ্ছে৷ কী ভাবে ? এই ভিডিয়োয় তার সর্বাঙ্গ কালো পোশাকে ঢাকা৷ এমনকি চোখ বাদে মাথা ও মুখও পুরোটা ঢাকা৷ সেভাবেই সে হুমকি দিয়েছে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরনকে৷ 'হোয়াইট হাউসের চাকর , ইহুদিদের চর ... তোমার মতো একটা ফালতু লোকের কথা আমাদের শুনতে হচ্ছে৷ একটা ছোট্ট দ্বীপ গোটাকয় প্লেন নিয়ে আমাদের সর্বশক্তিধর ইসলামিক স্টেটকে ভয় দেখাচ্ছে , দেখছি আমেরিকার ব্যর্থতা থেকে তুমি কিছুই শেখোনি৷ তুমি আসলে একটি মহামূর্খ৷ আমাদের পায়ের তলায় পুরো ব্রিটেন থাকবে৷ আর ব্রিটিশ সেনা যারা এই যুদ্ধে শরিক , তাদের সন্তানদেরও এই মূল্য চোকাতে হবে ...!' তার পরেই দেখা যায় ব্রিটিশ চরের মাথায় গুলি করে সে খুলি উড়িয়ে দেয়৷

এই ভিডিয়ো দেখিয়েই এখন সিদ্ধার্থর মা , বোন , প্রাক্তন সহকর্মী , এক সময়ের বন্ধু সবার কাছ থেকে চেষ্টা করা হচ্ছে কণ্ঠস্বর মেলানোর৷ উত্তর লন্ডন থেকে তার বোন কণিকা ধর যেমন বললেন , 'এটা ও ! তা যদি হয় আমি নিজে ওকে গুলি করে মেরে ফেলব৷ কিন্ত্ত এখনও আমার ব্যাপারটা বিশ্বাস হচ্ছে না৷ হ্যাঁ, গলার আওয়াজে খানিকটা মিল আছে , তা ঠিক ... কিন্ত্ত .. না না , কর্তৃপক্ষ আগে প্রমাণ দিক এই লোকটাই আমার দাদা৷ ' এক তথ্যচিত্র নির্মাতা , যিনি তাঁর তথ্যচিত্রে সিদ্ধার্থর সাক্ষাত্কার নিয়েছিলেন , সেই রব লিচ বলছেন , 'হ্যাঁ, এটা ওরই গলা৷ আমার কোনও ভুল হচ্ছে না৷ এই দ্বিতীয় জন ধর -ই৷ ' সিদ্ধার্থর মা সবিতা অবশ্য ঠিক বুঝতে পারছেন না৷ 'ও তো খুবই লাজুক ও নিরীহ প্রকৃতির ছেলে .. ও জঙ্গি ! মানুষের মাথা কাটছে ! আমি নিজেই কিছু বুঝতে পারছি না তো৷ সিরিয়া যাওয়ার আগে ওকে শেষ দেখেছিলাম , তা প্রায় বছর দু'য়েক তো হবেই৷ '

তবে সবিতা যে দাবিই করুন না কেন , নয়া জিহাদি জনের পরিচয় নিয়ে এক রকম নিশ্চিত সন্ত্রাস বিষয়ে বিশেষজ্ঞ রাফায়েলো পান্টুসি৷ তাঁর কথায় , 'এই ভিডিয়োয় ওই জিহাদি যে ভাবে কথা বলছে , তার সঙ্গে ব্রিটেনের নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন অল -মুহাজিরোর আবু রুমায়সাহর গলার হুবাহু মিল৷ আর ওর যা উচ্চারণ , তাতে মনে হচ্ছে ও লন্ডনেরই৷ জিহাদি জন পশ্চিম লন্ডনের এক বখাটে ছোকরা , কিন্ত্ত এ তা নয়৷ ভাষাজ্ঞান যা চোস্ত তাতে তো মনে হয় বেশ শিক্ষিত৷ ' বিশেষজ্ঞদের এই মতামতের উপরেই গোয়েন্দা ও তদন্তকারীরা বেশি ভরসা করছেন৷ কারণ , সিরিয়ায় গিয়ে আইএসে নাম লেখানোর আগেও সিদ্ধার্থ জঙ্গি কার্যকলাপের সঙ্গেই যুক্ত ছিল বলে মজবুত প্রমাণ রয়েছে৷ সে ছিল ব্রিটেনের মুসলিম নেতা আঞ্জেম চৌধুরির অতি ঘনিষ্ঠ৷ সেই আঞ্জেম চৌধুরি আবার অল -মুহাজিরোরর প্রতিষ্ঠাতা৷ অল্প দিনের মধ্যেই সিদ্ধার্থ হয়ে উঠেছিল ওই কট্টরপন্থী গোষ্ঠীর মুখ্য প্রবক্তা৷ সেই আঞ্জেমও সন্ত্রাসের অভিযোগে ২০১৪ সালের সেপ্টেম্বরে ধরা পড়েছে পুলিশের হাতে৷ ওই একই মামলায় গ্রেন্তার হয়েছিল সিদ্ধার্থও৷ তবে জামিন পেয়ে যায় এক দিনের মধ্যেই৷ তার পাসপোর্টও জমা নিয়ে নেয় সরকার৷ তার পরেও ব্রিটিশ গোয়েন্দাদের ঘোল খাইয়ে স্ত্রী -সন্তান সহ কী করে সে পালিয়ে যায় সিরিয়ায় , সে প্রশ্নই এখন ঘোরাফেরা করছে সব মহলে৷

গত বছর মে মাসে আইএস -এর এই নয়া জিহাদি জন একখানা অনলাইন ব্রশিওর প্রকাশ করে৷ সেখানে মানুষ যাতে ইসলামিক স্টেটের প্রতি আগ্রহী হয় , সে ভাবেই তুলে ধরে একটা 'ফিল গুড ' ব্যাপার৷ এই ব্রশিওরে তখন তত পাত্তা দেননি গোয়েন্দারা৷ কিন্ত্ত তার শেষটা ছিল মারাত্মক --- 'আমরা যখন লন্ডন , প্যারিস ও ওয়াশিংটনের রাস্তায় নামব , তার স্বাদটা কিন্ত্ত খুব তেতো হবে৷ এমন নয় যে তাতে শুধু রক্তবন্যা বইবে , আমরা গুঁড়িয়ে দেব সব মূর্তি, মুছে দেব সব ইতিহাস এবং তার থেকেও বেদনাদায়ক হবে তোমাদের সন্তানদের জোর করে আমরা ধর্মান্তরিত করাব৷ ওরা তখন আমাদের জয় জয়কার করবে , আমাদের পাশে দাঁড়াবে আর তা হবে ওদের পূর্বপুরুষের অভিশাপের ফলে৷ 'আর এই ইতিহাসের কারণেই আপাতত ত্রস্ত ব্রিটিশ প্রশাসন৷ কারণ এই ব্রশিওরে প্যারিসে হামলা করে দখল নেওয়ার কথা বলা হয়েছিল৷ আর মাস কয়েক আগে সেখানের পরিণতি কী হয়েছিল , তা কারও অজানা নয়৷ শ্যাডো হোম সেক্রেটারি অ্যান্ডি বার্নহ্যামের কথায় , 'এ তো নিরাপত্তা নিয়ে মারাত্মক ফাঁক৷ কী করে হল জানি না৷ দেখতে হবে৷ ' লন্ডনের মেয়রও পুরো বিষয়ে নিয়ে অন্ধকারে৷ বললেন , 'কীসের ভিত্তিতে এমন মারাত্মক লোককে জামিন দেওয়া হয়েছে , তা খবর নিচ্ছি৷ ' ঘুম ছুটে গিয়েছে পুলিশেরও৷ আসলে , সব থেকে বড় ভুলটা যে হয়ে গেছে তা এ বার হাড়ে হাড়ে টের পাচ্ছে এমআই৫৷ কিন্ত্ত কী করণীয় , কেমন করে তাকে ফাঁদে ফেলবে গোয়েন্দারা , তা নিয়ে আপাতত কোনও দিশা দেখছে না তারা৷ ইঙ্গ-বঙ্গ তনয় এখন সত্যিই ব্রিটেনের 'পেনাল কোডের কোহিনূর৷ '

ইউরোপ

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে