Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 2.9/5 (107 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ১২-১৩-২০১১

স্পেনে বিজয়ফুল কর্মসূচি

সাহাদুল সুহেদ


স্পেনে বিজয়ফুল কর্মসূচি
স্পেনের বার্সেলোনায় বিজয়ফুল কর্মসূচির অংশ হিসেবে বার্সেলোনা বাংলাদেশ এসোসিয়েশন  এবং বার্সেলোনা বাংলা স্কুলের উদ্যোগে  বিজয়ফুল পরা ও আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। গত ১১ ডিসেম্বর বাংলাদেশ এসোসিয়েশনের উদ্যোগে স্থানীয় একটি রেষ্টুরেন্টে বিজয়ফুল কর্মসূচির উদ্বোধন করেন ইংল্যান্ড বিজয়ফুল কর্মসূচির উপদেষ্টা মুক্তিযোদ্ধা সৈয়দ মাহমুদুল হক কয়ছর। তিনি সভায় আগত আরেক মুক্তিযুদ্ধা মফিজুল ইসলামকে নিয়ে সবার হাতে বিজয়ফুল তুলে দেন এবং সবাই একে অপরকে বিজয়ফুল পরিয়ে দেন।  বাংলাদেশ এসোসিয়েশনের সভপতি সুরুজ্জামান জামানের সভাপতিত্বে ও বাংলা কাগজের স্টাফ রিপোর্টার বনি হায়দার মান্নার উপস্থাপনায় বিজয়ফুল কর্মসূচির উপর আলোচনা করেন শাহ জালাল জামে মসজিদ পরিচালনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা মফিজুল ইসলাম, মুক্তার আহমদ, আব্দুল বাছিত কয়ছর, এমদাদুল হক লাভলু, সাব্বির আহমদ দুলাল, শাহ আলম স্বাধীন, আব্দুল জব্বার, শামীম আহমদ, সাহাদুল সুহেদ, আফাজ জনি প্রমুখ। বার্সেলোনা বাংলাদেশ এসোসিয়েশনের সভাপতি সুরুজ্জামান জামান প্রতি বছরই বিজয়ফুল কর্মসূচি পালন করবেন বলে জানান।
মুক্তিযোদ্ধা মফিজুল ইসলাম বলেন, প্রবাসে বসবাসরত বাঙ্গালী নব প্রজন্মদেরকে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস সম্পর্কে জানার আগ্রহ সৃষ্টি করবে এই বিজয়ফুল।
বার্সেলোনা বাংলা স্কুলেও বিজয়ফুল কর্মসূচি পালন করা হয়। গত ১০ ডিসেম্বর বাংলা স্কুলে বিজয়ফুল কর্মসূচির উদ্বোধন করেন ইংল্যান্ড বিজয়ফুল কর্মসূচির উপদেষ্টা সৈয়দ মাহমুদুল হক কয়ছর। এ উপলক্ষে শিশু কিশোররা মুক্তিযুদ্ধের উপর চিত্রাঙ্কন করে ও দেশাত্মবোধক গান পরিবেশন করে। তৌফিকুর রহমান তরফদারের সভাপতিত্বে ও শফিক খানের পরিচালনায় কর্মসূচিতে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মুক্তিযুদ্ধা আলাউদ্দিন হক নেছা, ইকবাল আহমদ, মনিরুজ্জামান মনির, শফিক খান, শিক্ষিকা জিনাত শফিক প্রমুখ। বাংলা স্কুলের উপদেষ্টা মুক্তিযুদ্ধা আলাউদ্দিন হক নেছা ছাত্র ছাত্রীদের একাত্তরের যুদ্ধের কথা শুনান। এবং বিজয়ফুল কর্মসূচির মাধ্যমে নব প্রজন্ম মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস জানতে পারবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
সৈয়দ মাহমুদুল হক কয়ছর বিজয়ফুল কর্মসূচির রূপকার কবি শামীম আজাদ ও বিজয়ফুল কর্মসূচি পালন কমিটির পক্ষ থেকে সবাইকে ধন্যবাদ জানান ও বিজয় মাসে সবাইকে বিজয়ফুল পরার অনুরুধ জানান।
উল্লেখ্য, বিশ্বযুদ্ধে জীবন উৎসর্গকারীদের স্মরণে বৃটেনে চালু থাকা পপি ফুলের আদলে ?বিজয় ফুল? চালু করার ধারণা মূলত বৃটেন প্রবাসী কবি শামীম আজাদের। পপি ফুল বিক্রি করে সে অর্থ যুদ্ধে আহত কিংবা  যুদ্ধে নিহত পরিবারের হাতে তুলে দেয়ার রীতি; বিজয়ফুল বিক্রি করে সেই অর্থও আমাদের মুক্তিযোদ্ধাদের পরিবারের হাতে তুলে দেয়ার পরিকল্পনা রয়েছে। তবে এখন বিজয়ফুল কেবল জামায়  পরা হবে পুরো ডিসেম্বর মাস।  এখনো বিক্রি করার প্রক্রিয়া শুরু হয়নি।
নব প্রজন্ম যারা দেখবে তাদের মা বাবাদের জামায় বিজয় ফুল, স্বভাবতই প্রশ্ন জাগবে। মা বাবারা তখন আমাদের মুক্তিযুদ্ধের কথা তাদের বলবেন, বিজয়ের কথা বলবেন। তাদের জামায়ও বিজয়ফুল থাকবে। ভিনদেশীরাও কৌতুহলী হবে বিজয়ফুল দেখে এবং তাদের জানানো যাবে আমাদের বিজয়গাঁথা একাত্তরের কাহিনী। বৃটেনসহ ইউরোপের বিভিন্ন দেশে প্রবাসী বাংলাদেশীরা ইতোমধ্যে বিজয়ফুল কর্মসূচি চালু করে দিয়েছেন।

স্পেন

আরও সংবাদ

  •  1 2 > 
Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে