Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 2.9/5 (64 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ১২-০১-২০১১

আন্তর্দলীয় রাজনৈতিক হত্যকান্ডে মেয়র লোকমানের অতৃপ্ত আত্মা   -সিডনী, অষ্ট্রেলিয়া থেকে মো: রাশেদুল ইসলাম

আন্তর্দলীয় রাজনৈতিক হত্যকান্ডে মেয়র লোকমানের অতৃপ্ত আত্মা  
-সিডনী, অষ্ট্রেলিয়া থেকে মো: রাশেদুল ইসলাম
আজ থেকে প্রায় দুই যুগ আগে স্বৈরাচার এরশাদের ভিত কাঁপিয়ে দিয়েছেন যুবলীগের কর্মী নূর হোসেন। তার শরীরে যে বানী লেখা ছিল ?গনতন্ত্র মুক্তি পাক সৈ?রাচার নিপাত যাক? বাংলাদেশের মানুষ ফিরে পেয়েছে গনতন্ত্র আর নূে হোসেন পরিণত হয়েছেন সৈ?রাচার বিরুদ্ধে আন্দেরনের প্রতিক। আওয়ামীগ , বিএনপি প্রথা গত ভাবে এই দিবসটি পালন করে আসছে  নূূর হোসন দিবস হিসাবে।কিন্তু জাতীর কাছে দুখে:র বিষয় আওয়ামীগ সেই সৈরশাসক এরশাদেকে নিয়ে মহাজোট করেছে । জাতীর জন্য দূভার্গ হল যারা স্বৈরাচার বিরুদ্বে আন্দেলন করে সফল হয়েছিল তারাই হ্মমতার স্বার্থে স্বৈরাচারকে আশ্রয় ? প্রশ্রয় দিচ্ছে। সাংসদীয় গনতন্ত্র মানে বহুদলীয় গনতন্ত্র, বিভিন্ন দলের যে প্রতিদ্বন্বিতা তা নীতি, আর্দশ ও কর্মসূচির। একই দলের এক নেতার সথে অন্য নেতার মতপার্থক্য থাকতে পারে এটাই স?ভাবিক । কিন্তু উপমহাদেশের রাজনীতিতে আর্??দলীয় কোন্দল ও শত্রুতা শুরু থেকেই ছিল,শুধু মাত্র হ্মমতা কিংবা প্রভাব বিস্তার নিয়ে এই ধরনের কোন্দল পরিণত হয় হত্যা অথবা গুপ্ত হত্যার মত ন্যাক্কার জনক কাজ। ঠিক তেমনী দলীয় কোন্দলে হত্যা করা হল নরসিংদির জনপ্রিয় মেয়র লোকমান হোসেনকে। তিনি শুধু মাত্র একজন জনপ্রিয় নেতা ছিলেন না পেয়ে ছিলেন সারা বাংলার শ্রেষ্ঠ মেয়রের পুরস্ক্র পরপর দুবার। সম্ভাবনাময় এই নেতাকে খুন কার হয় নৃশংসভাবে। যদি ও এই হত্যাকান্ড নিয়ে দেশের মিডিয়া ছোখ খোলা রেখেছে  তার পরও সরকারের পহ্ম থেকে তেমন কোন ফাঁকা গুলি কিংবা মিষ্ট কথা ছাড়া প্রথম দশ দিনে কোন অগ্রগতি হয় নায়। লোকমানের  পরিবার থেকে সন্দেহের তীর ,অভিযোগ আর মামলা সব কিছুই হচ্ছে ডাক ও তার মন্ত্রী রাজি উদ্দিন রাজুর অনুসারীদের। এবং যাহা পরবর্তিতে তথ্য সহ এজাহার ভুক্ত আসামীর মুখ থেকে বের হয়ে আসে।

লোকমানের এই র্মৃতুতে প্রতিবাদ জানায় নরসিংদী জেলার আওয়ামীগ ও ছাত্র লীগের একটা বড় অংশ । ঠিক পরেরে দিন ছাত্রলীগের ডাকা হরতালে আগুন দিয়ে পুড়ানো হয় এগার সিন্দুর নামে এক্সপ্রেস ট্রেন। লোকমানকে হত্যাকরার কয়েক ঘন্টার মধ্যে সরকার আমাদেরকে হতভাগ করেছে। যখন বিএনপি নেতা খাইরুল কবির খোকনকে  গ্রেফতার করা হয়। কোন কিছু বঝে উঠার আগে সরকার এই হত্যাকান্ডকে অন্য দিকে প্রভাবিত করেছেন। এজাহার ভুক্ত আসামী যার পরিকল্পনায় খোকনকে হত্যা করা হয় সালাউদ্দিন নিজেই সংবাদ মাধ্যমে বলেছেন? লিটনকে কেন গ্রেফতার করা হয়েছে তা তিনি বুঝতে পারছেন না? তা হলে সরকার কেন খোকনকে গ্রেফতার করল ? যেখানে অবিশ্বাস্য ভাবে আদালত থেকে মামলা পত্যহার করলে ও ট্রেনে আগুন দেওয়ার দুটি মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়। যদি ও সাপ্তাহ খানেক মধ্যে উনি জামিন পায়। তাহলে এখন প্রশ্ন আসে সরকার কি নিজের ঘরের সন্ত্রাসী আর গডফাদার দের রহ্মা করার জন্য এত কৈশল সাজিয়েছেন। পুলিশ ফৈজদারী মামলার ৫৪ ধারায় লিটনকে গ্রেফতার করে। কিন্তু গত এক যুগ ধরে আদালত পুলিশের এই মামলার হ্মমতা সীমাবদ্ব বলে সিদ্বান্ত দিয়েছেন।বিশেষ করে কালান্দিয়ার কবির বনাম বাংলাদেশ মামলায় আদালত বলেছেন অপরাধের সংগে জড়িত থাকার  (ক্রডিবল ইনফরমেশন) বিশ্বাস যোগ্য তথ্য থাকলে গ্রেফতার করতে পারবে(৫৪ ডিএলআর২৫৮) এবং পুলিশকে যুক্তি জানাতে হবে (৫৫ ডিএলআর২৫৮) ব্লাসবট বনাম বংলাদেম। তাহলে এখন এটা পরিস্কার লোকমান হত্যাকান্ডের কয়েক ঘন্টার মধ্যে খোকনকে গ্রেফতার করা হয়েছিল প্রকৃত আসামীদের বাঁচানোর জন্য ?

এখন আমাদের একটা প্রশ্ন আছে, যথন বিএনপি হরতালের ডাক দেয় তখন সরকার আগের দিন থেকে প্রশ?ুতি নিয়ে থাকেন। শুরু হয় ধরপাকড়া এমন কি প্রতিটি এলাকায় বসানো হয় ভ্রাম্যমান আদালত। বিনা অজুহাতে শুরু করে গনগ্রেফতার। তাহলে স্বভাবিক ভাবে প্রশ্ন উঠে নরসিংদি হরতালে কোথায় ছিল ভ্রাম্যমান আদালত ? আমাদের  প্রধানমন্ত্রি কি ভাবে এক দেশে দুই আইন  করতে যাচ্ছেন ? মাহাফুজ আনাম স?্রতি এক লেখায় প্রশ্ন তুলেছেন রাজনীতি বিদেরা কি জনগনকে (্ইডিয়ট) ভাবে কিনা? আর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক আসিফ নজরুল তার লেখায় মন্তব্য করেছেন জনগন নির্ভোধ নাকি সরাষ্ট্রমন্ত্রি ? জনগনের আশংকা এখানে সরকার যাতে এই মামলাকে অসত উদ্দেশ্যে অন্যায় ভাবে কাউকে জড়িত না করে। আমাদের ভাবতে কষ্ট হয় যখন এলাকার সাংসদ সাংবাদিকদের বলেন লোকমান হত্যাকান্ডে যাদের অভিযোগ আনা হয়েছে তারা নির্দেশ এই জন্যই বিশিষ্ট কলাম সাংবাদিক সোহরাব হাসানের উত্তর যতার্থ যে, ? নরসিংদির মেয়রকে কি ভ?তে মেরেছ ? সুবিচার চাইতে প্রথম ১৫ দিনে ও প্রধানমন্ত্রির কাছে আসার সুযোগ পাননি নিহতের স্ত্রী, পুত্র ,কন্যারা। আমরা আশা করব এই স্পর্শ কাতর ব্যাপারে সরকারের নীতি নির্ধরকদের উচিত ভেবে চিন্তে সিদ্বান্ত নেওয়া। রাজনীতি যারা করেন তাদের ও ভাবা উচিত তাদের দুটি ছোখ ছাড়া ও জনগনের দুটি ছোখ আছে। যদি  এই হত্যাকান্ডের সুষ্ঠ ও নিরপেহ্ম বিচার না হয় তাহলে বাংলার মাটিতে মানুষের মন খুত খুঁত করবে শহীদ নূর হোসেনের মত লোকমানের অতৃপ্ত আত্মা ।  

অভিমত/মতামত

আরও লেখা

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে