Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 3.0/5 (5 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print

আপডেট : ১২-০৬-২০১৮

নেতা কর্মীদের মাঝে ক্ষোভ সুজিত নন্দী মনোনয়ন না পাওয়ায়

নেতা কর্মীদের মাঝে ক্ষোভ সুজিত নন্দী মনোনয়ন না পাওয়ায়

চাঁদপুর, ০৬ ডিসেম্বর- চাঁদপুর-৩ নির্বাচনী এলাকায় (চাঁদপুর সদর-হাইমচর) আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী দলীয় মনোনয়ন না পাওয়ায় দলের নেতাকর্মীদের মাঝে ক্ষোভ বিরাজ করছে।

তারা আশা করেছিলেন এবার সুজিত রায় নন্দী মনোনয়ন পাবেন। কিন্তু এবারও তিনি বঞ্চিত হলেন। এ আসনে দলীয় মনোনয়ন দেয়া হয়েছে বর্তমান সাংসদ ডা. দীপু মনিকে।

এতে সুজিত রায় নন্দীর কর্মী-সমর্থকরা হতাশ। তাদের অনেকেই ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। এরই মধ্যে সুজিত রায় নন্দী চাঁদপুর গেলে তাকে কাছে পেয়ে দলের নেতাকর্মী ও সমর্থকরা কান্নায় ভেঙে পড়েন।

শনিবার লঞ্চযোগে চাঁদপুর পৌঁছলে শত শত নেতাকর্মী লঞ্চঘাটে তার সঙ্গে দেখা করতে এসে কান্নাজুড়ে দেন। এ সময় সুজিত রায় নন্দী নিজেও কান্নাজড়িত কণ্ঠে দলের কর্মী-সমর্থকদের সান্ত্বনা দেন।

অনেক কর্মী তাদের ক্ষোভের কথা জানান তাকে। চাঁদপুরের বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধা শাহীন শাহ, হাইমচর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের ডেপুটি কমান্ডার হাফিজ মাস্টার ও ফরক্কাবাদ উচ্চবিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক বীর মুক্তিযোদ্ধা আমিনুল হকসহ অনেকেই বলেছেন, তারা আশা করেছিলেন, এবার অন্তত সুজিত রায় নন্দীকে মনোনয়ন দেয়া হবে।

মুক্তিযোদ্ধা শাহীন শাহ বলেন, মৃত্যুর আগে দেখে দেখে যেত চাই সুজিত এমপি হয়েছেন। দলের একাধিক নেতা নাম প্রকাশ না করে বলেন, নির্বাচনে কী হবে জানি না। তবে আমরা আশাহত হয়েছি।

তবে সুজিত রায় নন্দী বলেন, চাঁদপুর-৩ নির্বাচনী এলাকায় দল যাকে মনোনয়ন দিয়েছে আগামী নির্বাচনে তাকে বিজয়ী করতে সবাইকে একসঙ্গে কাজ করতে হবে। আমাকে মনোনয়ন দেয়া না হলেও আমি দলের সিদ্ধান্তের বাইরে যাব না।

প্রসঙ্গত, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে চাঁদপুর-৩ আসন থেকে এবারও আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন দেয়া হয়েছে ডা. দীপু মনিকে। যদিও তৃণমূলের জরিপ ও ভোটে ২০০৮, ২০১৪ ও এবারের নির্বাচনে দলীয় প্রার্থী হিসেবে সুজিত রায় নন্দী এগিয়ে ছিলেন।

তিনি ১০ বছর ধরে নিজের নির্বাচনী এলাকার সাধারণ মানুষের সুখে-দুঃখে একাত্ম হয়ে কাজ করছেন। দলের নেতাকর্র্মী ছাড়াও তার এলাকার মানুষ যে কোনো বিষয়ে সুজিত রায় নন্দীর সহায়তা চান।

তবে তিনি সাংসদ না হওয়ায় অনেকের কথা হয়তো রাখতে পারেন না। তবে সবার জন্যই তিনি চেষ্টা করেন। এলাকায় উন্নয়নমূলক কাজের সঙ্গে সম্পৃক্ত রয়েছেন তিনি।

সূত্র: যুগান্তর

আর/০৮:১৪/০৬ ডিসেম্বর

চাঁদপুর

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে