Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 3.0/5 (10 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print

আপডেট : ০৯-০৪-২০১৮

ইবি শিক্ষার্থীদের অবরোধ অব্যাহত

ইবি শিক্ষার্থীদের অবরোধ অব্যাহত

কুষ্টিয়া, ০৪ সেপ্টেম্বর- ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) আল-ফিকহ অ্যান্ড লিগ্যাল স্টাডিজ ও আরবি ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের শিক্ষার্থীরা দ্বিতীয় দিনের মত অবরোধ কর্মসূচি অব্যাহত রেখেছেন। আইন ও শরিয়াহ অনুষদভুক্ত আল-ফিকহ অ্যান্ড লিগ্যাল স্টাডিজ এবং মানবিক ও সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত আরবি ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের ভর্তি পরীক্ষা থিওলজি অ্যান্ড ইসলামিক স্টাডিজ অনুষদের অধীনে গ্রহণের সিদ্ধান্ত নেয়ার প্রতিবাদে এ অবরোধ কর্মসূচি পালন করেন তারা।

মঙ্গলবার বেলা ১১টায় স্ব-স্ব বিভাগের সামনে এ অবরোধ কর্মসূচি পালন করে তারা।

আল-ফিক্হ অ্যান্ড লিগ্যাল স্টাডিজ বিভাগের শিক্ষার্থীদের দাবি, আইন ও শরিয়াহ অনুষদভুক্ত বিভাগের ভর্তি পরীক্ষা থিওলজি অনুষদের মাধ্যেমে গ্রহণ করার সিদ্ধান্ত সম্পূর্ণ অযৌক্তিক। আল-ফিকহ বিভাগে আইন বিভাগের সমপরিমাণ আইন সম্পর্কিত কোর্স পড়তে হয়। এটি আল-ফিকহ বিভাগকে থিওলজি অনুষদভুক্ত বিভাগে রূপান্তরিত করার হীন চক্রান্ত। আমরা প্রশাসনের কাছে এ সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করার জোর দাবি জানাই। অন্যথায় দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত অবরোধ চালিয়ে যাওয়া হবে।

আরবি ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের শিক্ষার্থীদের দাবি, থিওলজি অ্যান্ড ইসলামিক স্টাডিজ অনুষদভুক্ত বিষয়গুলো ধর্মতত্ত্ব সম্পর্কিত। কিন্তু আরবি ভাষা ও সাহিত্য বিভাগ সাহিত্য সম্পর্কিত। সাহিত্যের সাথে ধর্মতত্ত্বের কোন সম্পর্ক নেই। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ দেশের অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ে কলা অনুষদের অধীনেই আরবি ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের ভর্তি পরীক্ষা গ্রহণ করা হয়। সুতরাং ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে ভিন্ন অনুষদে নেয়া হবে কেন? এসময় ভর্তি পরীক্ষা মানবিক ও সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের অধীনে বহাল রাখার জোর দাবি জানান শিক্ষার্থীরা।

সোমবার আরবি বিভাগের শিক্ষার্থীরা বিষয়টি সমাধানের জন্য অনুষদের ডিন বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গত ১৪ আগস্ট আইন ও শরিয়াহ অনুষদভুক্ত আল-ফিকহ অ্যান্ড লিগ্যাল স্টাডিজ এবং মানবিক ও সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত আরবি ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের ভর্তি পরীক্ষা থিওলজি অ্যান্ড ইসলামিক স্টাডিজ অনুষদের অধীনে গ্রহণের সিদ্ধান্ত নেয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি কমিটি। এ ঘটনার প্রতিবাদে মঙ্গলবার আল-ফিকহ অ্যান্ড লিগ্যাল স্টাডিজ ও আরবি ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের শিক্ষার্থীরা স্ব-স্ব বিভাগের সামনে অবরোধ কর্মসূচি পালন করেছেন।

গত ২৯ আগস্ট থেকে দুই বিভাগের শিক্ষার্থীরা অবরোধ ও স্মারকলিপি প্রদান কর্মসূচি পালন করে আসছেন।

আল-ফিকহ অ্যান্ড লিগ্যাল স্টাডিজ বিভাগের সভাপতি ড. একে মোহা. নুরুল ইসলাম বলেন, এটা শিক্ষার্থীদের যৌক্তিক দাবি। আগামীকাল আমরা বিষয়টি নিয়ে বিভাগের শিক্ষকদের সাথে করে উপাচার্যের সাথে দেখা করব।

আরবি ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক ড. মাহবুবুর রহমান বলেন, থিওলজি অ্যান্ড ইসলামিক স্টাডিজ অনুষদের সাথে আরবি ভাষা ও সাহিত্যের কোন সম্পর্ক নেই। মানবিক ও সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদভুক্ত বিভাগের ভর্তি পরীক্ষা অন্য কোন অনুষদের অধীনে গ্রহণ করা সম্পূর্ণ অযৌক্তিক। আমরা প্রশাসনের সাথে কথা বলে বিষয়টি সমাধানের দাবি জানিয়েছি।

উপাচার্য অধ্যাপক ড. হারুন-উর-রশিদ আসকারী বলেন, শিক্ষার্থীদের উচিৎ তাদের শিক্ষকদের সাথেই কথা বলা। তাদের শিক্ষকদের উপস্থিতিতেই এ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছিল। বিষয়টি বিভাগের শিক্ষকদের মাধ্যমেই লিখিতভাবে জানাতে হবে। যদি একান্তই সমস্যা হয় তবে সমাধান করা হবে।

তথ্যসূত্র: ঢাকাটাইমস ২৪
এইচ/২৩:২৯/০৪ সেপ্টেম্বর

 

শিক্ষা

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে