Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 3.0/5 (20 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print

আপডেট : ০৮-১৬-২০১৮

কাঙালি ভোজে এমপি-ওসির পাশে পুলিশের খাতার পলাতক আসামি

কাঙালি ভোজে এমপি-ওসির পাশে পুলিশের খাতার পলাতক আসামি

কিশোরগঞ্জ, ১৬ আগস্ট- গতকাল ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবসের অনুষ্ঠানে যোগদান শেষে কাঙালি ভোজের খাবার টেবিলে খিচুড়ি খাচ্ছিলেন কিশোরগঞ্জ-২ (পাকুন্দিয়া-কটিয়াদী) আসনের আওয়ামী লীগের এমপি অ্যাডভোকেট মো. সোহরাব উদ্দিন।

তার পাশে বসা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আইনুদ্দিন। খাবার টেবিলের একপাশে বসা পাকুন্দিয়া থানা পুলিশের ওসি আজহার আলী সরকার। এমপির ঠিক পেছনে দাঁড়িয়ে কালো গেঞ্জি পরিহিত অপহরণ মামলার পলাতক আসামি কটিয়াদী উপজেলার বনগ্রাম ইউনিয়ন আওয়ামী যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক সুমন মিয়া। অথচ পুলিশের খাতায় সুমন মিয়া পলাতক।

শোক দিবসে দলীয় এমপির সঙ্গে কাঙালি ভোজে বিতর্কিত এই যুবলীগ নেতার যোগ দেয়া নিয়ে এলাকায় সমালোচনার ঝড় বইছে। সুমন একটি চাঞ্চল্যকর অপহরণ মামলার আসামি। পুলিশের কাছে তিনি ওই মামলার পলাতক আসামি। পুলিশ ও দলের শীর্ষ নেতাদের উপস্থিতিতে এমপির পেছনে দাঁড়িয়ে ছবি তোলার ঘটনা প্রকাশ পেলে অবাক হন স্থানীয়রা।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বনগ্রাম ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক সুমন মিয়া গত ৯ আগস্ট কটিয়াদী মডেল থানায় দায়েরকৃত ব্যবসায়ী মো. জুনায়েদ অপহরণ মামলার অন্যতম আসামি। তার বিরুদ্ধে স্থানীয় এক নারীকে মারধর ও নির্যাতনের অভিযোগও রয়েছে।

গতকাল বুধবার দুপুরে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে কটিয়াদী উপজেলার বনগ্রাম আনন্দ কিশোর স্কুল অ্যান্ড কলেজের অনুষ্ঠানে যোগ দেন স্থানীয় এমপি অ্যাডভোকেট মো. সোহরাব উদ্দিন। অনুষ্ঠান শেষে কলেজ মিলনায়তনে দুপুরের খাবার খান এমপিসহ দলীয় নেতাকর্মীরা।

পুলিশ জানায়, মুক্তিপণের জন্য এক ব্যবসায়ীকে অপহরণের অভিযোগে গত ৮ আগস্ট রাতে যুবলীগ নেতা সুমন, তার ছোট ভাই রাজন ও খালাতো ভাই বাবুসহ সাতজনকে আসামি করে একটি মামলা হয়। এদের মধ্যে রাজন ও বাবুকে গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করলে আদলাত তাদেরকে জেলহাজতে পাঠান।

অপরদিকে অপহরণ মামলার অন্যতম আসামি যুবলীগ নেতা সুমনকে পলাতক দেখালেও তিনি প্রকাশ্যে তাদের সঙ্গে বিভিন্ন অনুষ্ঠানে অংশ নিচ্ছেন।

এ ব্যাপারে কটিয়াদী মডেল থানা পুলিশেল ওসি জাকির রাব্বানী বলেন, ১৫ আগস্টে বনগ্রাম আনন্দ কিশোর স্কুল অ্যান্ড কলেজের অনুষ্ঠানে এমপির সঙ্গে আমি ছিলাম না। তাই বিষয়টি আমার জানা নেই। তবে সুমনকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

কিশোরগঞ্জ-২ (কটিয়াদী-পাকুন্দিয়া) আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট সোহরাব উদ্দিন বলেন, শোক দিবসের কাঙালি ভোজে সাধারণ মানুষের সঙ্গে আমিও অংশ নিয়েছি। আমার পেছনে কোনো মামলার আসামি দাঁড়িয়ে ছিল কিনা সেটি আমার জানা নেই। আমি সুমনকে দেখলে অবশ্যই তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পুলিশকে বলতাম।

সূত্র: জাগোনিউজ২৪

আর/১৭:১৪/১৬ আগস্ট

কিশোরগঞ্জ

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে