Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 3.0/5 (22 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print
আপডেট : ০৮-১০-২০১৮

জাঁকজমকপূর্ণ বাংলা মেলায় দর্শকদের ঢল

জসিম মল্লিক


জাঁকজমকপূর্ণ বাংলা মেলায় দর্শকদের ঢল

টরন্টো, ১০ আগস্ট- টরন্টোবাসীর জন্য ৫ আগষ্ট ছিল একটি আনন্দঘন দিন। অনেকদিন এমন নির্মল আনন্দের সাক্ষাৎ  এই নগরীর মানুষের ঘটছিল না। সেই উপলক্ষ্যটি করে দিয়েছে দ্বিতীয় সম্মিলিত বাংলা মেলার আয়োজকরা। এই দিনটি মানুষ উপচে পড়েছিল ৩৮০ বার্চমাউন্ট রোডে অনষ্ঠানের ভেন্যুতে। তিল ধারণের ঠাই ছিলনা পুরো অনুষ্ঠানস্থলে। হাজার হাজার মানুষের সমাগম ঘটেছিল। দর্শকরা পার্কিংয়ের জন্যে হন্যে হয়ে ঘুরেছেন।


শত শত পার্কিং ছিল ফুল। বিকেল সাড়ে পাঁচটায় মূল অনুষ্ঠান শুরু হলেও দর্শকরা আসতে শুরু করেন দুপুরের পর থেকেই। অনেককেই দেখা
 গেছে আগে ভাগে জায়গা নিতে। দিনটা ছিল চমৎকার রৌদ্রকরোজ্জল। একটু গরম থাকলেও সাথে ছিল ফুরফুরে বাতাস। দুটো মিলে এক সুন্দর মনোরম পরিবেশ তৈরী হয়েছিল। ছিল তাবুর ব্যবস্থা।


অনুষ্ঠান ছিল সবার জন্য উন্মুক্ত। দর্শনীর বিনিময়ে যে অনুষ্ঠান বা গান শুনতে জান নগরবাসী তার চেয়ে বহুণ্ডন আনন্দময় অনুষ্ঠান উপহার দিয়েছেন আয়োজকরা বিনা মূল্যে। মোটকথা ছুটির দিনটি একটি অসাধারন মিলনমেলায় পরিণত হয়েছিল। দৃষ্টিনন্দন জাঁকজমকপূর্ণ অনুষ্ঠানস্থল জুড়ে ছিল রকমারি স্টল আর খাবার দোকান। সামনে ঈদ বলে অনেকেই এই সুযোগে তাদের পছন্দের কাপড়ও কিনতে পেরেছেন।

অনুষ্ঠানের বিভিন্ন পর্যায়ে সংক্ষিপ্ত আলোচনা, ণ্ডরুত্বপূর্ন ব্যাক্তিদের সম্মাননা প্রদান করা হয়। স্কারবোরো সাউথ ওয়েষ্টের এমপিপি ডলি বেগমের শুভেচ্ছা বক্তব্য অনুষ্ঠানে ভিন্নমাত্রা যোগ করে। অনুষ্ঠান শুরু হয় স্থানীয় শিল্পীদের সঙ্গীতের মাধ্যমে। শামাস পেট্রি তার ম্যাজিক দিয়ে দর্শকদের অভিভূত করেন। সুকন্যার শিল্পীরা তাদের অনবদ্য নৃত্য প্রদর্শন করে মুগ্ধ করেন সবেইকে। সবশেষ আকর্ষণ ছিল নূরজাহান আলীম ও কনক চাঁপার সঙ্গীত পরিবশেনা। পিতা আবুদল আলীমের সেইসব বিখ্যাত হারানো দিনের গান গেয়ে শ্রোতাদের পুরনো দিনে ফিরিয়ে নিয়ে যান নূরজাহান। কনক চাঁপা তার সুরেলা কন্ঠে বিখ্যাত সব গান গেয়ে সুরের ঐন্দ্রজালে আবিষ্ট করে রাখেন।


গভীর রাত পর্যন্ত তার সুর ছড়িয়ে পরে চারদিকের বাতাসে এবং হৃদয়ের ইন্দ্রজালে। একটি স্বার্থক অনুষ্ঠান আয়োজন করেন। র‍্যাফেল ড্রতে ছিল আকর্ষনীয় সব পুরষ্কার। র‍্যাফেল ড্রতে প্রথম পুরস্কার ১০০০ ডলার বিজয়ীর টিকেট নাম্বার হচ্ছে ১৭৫১। প্রথম পুরস্কার বিজয়ীকে টিকেট নিয়ে আয়োজকদের সাথে ভোরের আলো কার্যালয়ে যোগাযোগ করার অনুরোধ করেছেন আয়োজকরা। সম্মিলিত বাংলা মেলা সাংস্কৃতি অনুষ্ঠানে সংগীত পরিবেশন করেন নাছরিন খান, সাফায়েত, নভেল, আইরিন আলম, সুমি বর্মন, মৌসুমি, কাজী মম, জৈতী, তানিসা, গৌরি দাস, লীমা, শামীম।


অনুষ্ঠান পরিচালনায় ছিলেন জাকারিয়া রশিদ চৌধুরী, ফারহানা আহমেদ, মম কাজী ও অজান্তা চৌধুরী। সভায় বক্তব্য রাখেন এম.পি.পি ডলি বেগম, কনভেনর আখলাক হোসেন, চেয়ারম্যান মিলাদ আহমদ, সদস্য সচিব জাকারিয়া রশিদ চৌধুরী, রেশাদ চৌধুরী, আহাদ খন্দকার, রণি চৌধুরী ও আরিফ আহমদ।

অনুষ্ঠানের সার্বিক কর্মকান্ড, তত্ত্বাবধান ও সহযোগিতায় ছিলেন জনাব মাহবুব রব চৌধুরী, রেজাউর রহমান, জাকির খান, মকবুল হুসেন মঞ্জু, কামিল আহমেদ, ফয়জুল চৌধুরী, জসিম মল্লিক, কর্ণেল (অবঃ) জাকির হোসেন, স্বপন গাজী, হোসেন আহমেদ (লনি), তপন মাহমুদ, গোলাম রণি, ডঃ মোমিনূল হক মিলন, হাবিবুর রহমান চৌধুরী (মারুফ), আমিনুর রহমান চৌধুরী (বাবু), রেজাউল হাসান,  শাকিল খান, আবুল হাসেম, মজিরুল হক (মুজিব), সৈয়দ আবু আফসর, ফরিদুল ইসলাম চৌধুরী (রাফে), রানা আহমদ, মোঃ আলী শাওন, মাহবুব আহমদ, আলী হোসেন, শওকত আহমেদ, জহির উদ্দিন, মালিহা মনছুর, মোর্শেদা বেগম, শাহাব উদ্দিন, জাকির হোসেন, সালমান আহমদ, সৈয়দা তাহমি, বেলাল হোসেন, রাসেল সিদ্দিকী, আব্দুল আউয়াল, মহসীন ভূঁইয়া, সানী মীর, মম কাজী, লাল মিয়া, মাশরুর হোসেন রিপন, কায়কোবাদ বাবলু, আসাব উদ্দিন, শক্তিদেব, আনিছুর রহমান, সামন ভূইয়া, আব্দুস সালাম, মোহাম্মদ হোসেন, রবিন ইসলাম, অটল আরিফুজ্জাহান, শেখ মোঃ মোতালেব, শাহরিয়ার আহমদ, মহিউদ্দিন, আনিছুর রহমান, মাহমুদ আলী, খন্দকার শাহেদ আহমদ, মোতাহের গাজী, এনায়েত হোসেন, মোঃ আনোয়ার, দেলওয়ার হোসেন, সুবাস, অপূর্ব দাস, ফারুখ খান ও মঈন চৌধুরী প্রমুখ।

আর/০৭:১৪/১০ আগস্ট

কানাডা

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে