Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 3.0/5 (21 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print

আপডেট : ০৭-০৭-২০১৮

এবার পাগলা মসজিদের দানবাক্সে মিললো ৮৮ লাখ টাকা

এবার পাগলা মসজিদের দানবাক্সে মিললো ৮৮ লাখ টাকা

কিশোরগঞ্জ, ০৭ জুলাই- কিশোরগঞ্জের ঐতিহাসিক পাগলা মসজিদের দান বাক্স থেকে এবার পাওয়া গেছে ৮৮ লাখ ২৯ হাজার ১৭ টাকা। এছাড়া নগদ টাকা ছাড়াও বিভিন্ন বৈদেশিক মুদ্রা ও স্বর্ণালঙ্কার পাওয়া গেছে। এর আগে ৩০ মার্চ দান সিন্দুক খোলার পর ৮৪ লাখ ৯২ হাজার টাকা পাওয়া যায়।

সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, শনিবার সকালে জেলা প্রশাসনের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাগণের উপস্থিতিতে দান সিন্দুকগুলো খোলা হয়। দান সিন্দুক থেকে টাকা খুলে প্রথমে বস্তায় ভরা হয়। এরপর শুরু হয় দিনব্যাপী টাকা গণনা। টাকা গণনায় মসজিদ মাদরাসার ৬০জন ছাত্র-শিক্ষক ছাড়াও রূপালী ব্যাংকের কর্মকর্তারা অংশ নেন।

টাকা গণনার কাজ তদারকি করেন কিশোরগঞ্জ কালেক্টরেটের সিনিয়র নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আবু তাহের সাঈদ। টাকা গণনার কাজ পরিদর্শন করেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) তরফদার মো. আক্তার জামীল, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আলমগীর হোসাইন প্রমুখসহ প্রশাসনের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তারা।


গত ১৩ মে পাগলা মসজিদে দুর্বৃত্তরা টাকা চুরির চেষ্টা চালায়। সে সময় একটি দানবাক্স খুলে এক বস্তা টাকা ও স্বর্ণালঙ্কার নিয়ে পালানোর চেষ্টা করলেও তারা সে টাকা নিয়ে যেতে পারেনি। নৈশপ্রহরীর তাড়া খেয়ে টাকার বস্তা ফেলে রেখেই শেষ পর্যন্ত  দুর্বৃত্তদের পালাতে হয়। সে সময় বস্তা থেকে ৮ লাখ ৪ হাজার ৯৮১ টাকা পাওয়া যায়। এ বছরের শুরুতে ৬ জানুয়ারি মসজিদের ৫টি দান সিন্দুক খুলে গণনা করে সর্বোচ্চ এক কোটি ২৭ লাখ ৩৬ হাজার ৪৭১ টাকা পাওয়া গিয়েছিল। চার মাস ১০দিনে তখন ওই টাকা দান হিসেবে পাওয়া গিয়েছিল। এর আগে গত বছরের ২৬ আগস্ট মসজিদের দান সিন্দুক খুলে গণনা করে এক কোটি ১৫ লাখ ৫৯ হাজার টাকা পাওয়া যায়।

জেলা শহরের নরসুন্দা নদীর তীরে এ মসজিদটির অবস্থান। দেশের অন্যতম আয়কারী ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান হিসেবে স্বীকৃত মসজিদটিকে পাগলা মসজিদ ইসলামী কমপ্লেক্স নামকরণ করা হয়েছে। এ মসজিদের আয় দিয়ে কমপ্লেক্সের বিশাল ভবন নির্মাণ করা হয়েছে। এছাড়া মসজিদের আয় থেকে বিভিন্ন সেবামূলক খাতে অর্থ সাহায্য করা হয়।

জেলা প্রশাসনের সিনিয়র নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আবু তাহের মো. সাঈদ জানান, সবার উপস্থিতিতে আমরা আজ সিন্দুক খুলে গণনার কাজ শেষ করেছি। প্রাপ্ত টাকা রূপালী ব্যাংকে জমা করা হয়েছে। এছাড়া সিংগাপুরী ডলার,  সৌদী রিয়াল, অস্ট্রেলিয়ান ডলার,  মালোয়েশিয়ান রিংগিটসহ বিভিন্ন স্বর্ণালঙ্কার পাওয়া গেছে।

সূত্র: বাংলা ট্রিবিউন

আর/১০:১৪/০৭ জুলাই

কিশোরগঞ্জ

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে