Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 2.9/5 (36 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print

আপডেট : ০৬-০২-২০১৮

আ.লীগে আরেক আমলা, বিএনপির মাঠ ফাঁকা

আলম পলাশ


আ.লীগে আরেক আমলা, বিএনপির মাঠ ফাঁকা
উপরের বাম দিক থেকে মহীউদ্দীন খান , গোলাম হোসেন, এহছানুল হক, আ হ ম মনিরুজ্জামান

চাঁদপুর, ০২ জুন- চাঁদপুর-১ আসনের বর্তমান সাংসদ মহীউদ্দীন খান আলমগীর সাবেক আমলা। আগামী নির্বাচনেও তিনি দলীয় প্রার্থী হওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন। তবে নৌকার টিকিট পেতে মাঠে নেমেছেন আরেক আমলা গোলাম হোসেন।

দলীয় মনোনয়ন চান মহিবুল্লাহ মাহিও। তিনি কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক নেতা। প্রভাবশালী এই তিন নেতার কারণে স্থানীয় নেতা-কর্মীরাও বিভক্ত। এই বিভক্তি বিএনপির জন্য হতে পারে সৌভাগ্যের কারণ। তবে এখন পর্যন্ত দলটির কেউ নির্বাচনী মাঠে নেই।

নৌকা প্রতীক চান তিনজন
বর্তমানে রাজনীতির মাঠে বিএনপির আধিপত্য নেই। তবে নিরুত্তাপ মাঠে উত্তাপ ছড়াচ্ছে প্রার্থিতা নিয়ে আওয়ামী লীগের তিনজনের দৌড়ঝাঁপ।

যুবলীগের সাবেক নেতা ও কচুয়া উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান হেলাল উদ্দিন বলেন, কচুয়ায় মহীউদ্দীন খান আলমগীরের বিকল্প কেউ নেই। আসন্ন নির্বাচনে উড়ে আসা কেউ নৌকার টিকিট পাবেন না।

তবে কচুয়া আওয়ামী লীগের চারজন নেতা বলেন, মহীউদ্দীন খান আলমগীর কচুয়ার মাটি-মানুষের সঙ্গে স্বাভাবিকভাবে মিশতে পারেননি। এ কারণে অনেক নেতা-কর্মী তাঁর থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছেন। অবশ্য বিষয়টি মানতে রাজি নন সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মহীউদ্দীন খান আলমগীর। তিনি বলেন, ‘এবারও আমি নির্বাচনে অংশ নেব। এ আসনে আমার কোনো প্রতিপক্ষ বা প্রতিদ্বন্দ্বী নেই। প্রতি সপ্তাহে আমার নির্বাচনী প্রচারণাসহ গণসংযোগ অব্যাহত রয়েছে।’

মহীউদ্দীন খান আলমগীর থেকে মুখ ফিরিয়ে নেওয়া নেতা-কর্মীরাই ভরসা গোলাম হোসেনের। জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) সাবেক এই চেয়ারম্যান অনুসারীদের নিয়ে নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করেছেন। নিজ গ্রাম হাশিমপুর এলাকায় ওয়ার্ড আওয়ামী লীগে সদস্য পদ নিয়েছেন তিনি।

প্রার্থী হওয়ার বিষয়ে গোলাম হোসেন বলেন, ‘আমি আশা করছি দলীয় মনোনয়ন পাব। দল মনোনয়ন দিলে নির্বাচন করব। না দিলে ভিন্ন কথা।’

দুই আমলার সঙ্গে তরুণ রাজনীতিবিদ মহিবুল্লাহ মাহিও আলোচনায় আছেন। তিনি কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমানে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ উপকমিটির সহসম্পাদক। তিনি বলেন, ‘মনোনয়ন চাইব। তবে নৌকা প্রতীক যাঁকেই দেওয়া হোক, আমি তাঁর পক্ষে কাজ করব।’

বিএনপির ৫ নতুন মুখ
২০০৮ সালে নির্বাচনের পর ক্ষমতায় আসে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন মহাজোট সরকার। তার আগে পরপর তিনবার আসনটি বিএনপির দখলে ছিল। তিনবারই সাংসদ নির্বাচিত হন বিএনপির এহছানুল হক মিলন। সাবেক এই শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী বর্তমানে বিএনপির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদকের পদে আছেন।

কচুয়া উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক মেয়র হুমায়ন কবির বলেন, আসনটি বিএনপির ভোটব্যাংক। কিন্তু আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর বিএনপির নেতা-কর্মীরা হামলা-মামলায় বিপর্যস্ত। তাই নয় বছর ধরে তাঁরা মাঠে নেই। তবে নির্বাচনী বছরে তাঁরা ঠিকই ঘুরে দাঁড়াবেন।

দলীয় নেতা-কর্মীরা বলছেন, সাবেক সাংসদ এহছানুল হক মিলন নিজেও মামলায় জর্জরিত। বর্তমানে তাঁর বিরুদ্ধে চাঁদপুরসহ বিভিন্ন স্থানে ৩৬টি মামলা রয়েছে। প্রায় দেড় বছর জেল খাটার পর তিনি দেশছাড়া। বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রে আছেন।

আগামী নির্বাচনে মিলন অংশ নিতে পারবেন কি না, সংশয় রয়েছে। ফলে এ আসনে বিএনপির প্রার্থী কে হবেন, তা নিয়ে নানা মত আসছে। কেউ কেউ বলছেন, মিলনের স্ত্রী নাজমুন নাহার প্রার্থী হতে পারেন। তবে তিনিও মিলনের মতো বেশ কয়েকটি মামলার আসামি।

এ অবস্থায় অন্তত পাঁচজন ভিন্ন কৌশলে প্রচারণায় আছেন। অবশ্য তাঁদের কেউই কচুয়ায় এসে গণসংযোগ চালাচ্ছেন, এমন নজির নেই।  

এই পাঁচজনের মধ্যে রয়েছেন কচুয়া উপজেলা বিএনপির সহসভাপতি প্রকৌশলী আ হ ম মনিরুজ্জামান দেওয়ান। তিনি সম্প্রতি চাঁদপুরে এক মতবিনিময় সভায় দলীয় মনোনয়ন চাওয়ার কথা জানান দেন।

আরও যাঁদের নাম আসছে তাঁরা হলেন মালয়েশিয়া বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মো. মোশারফ হোসেন, লন্ডনপ্রবাসী বিএনপি নেতা মোহাম্মদ খোরশেদ আলম মজুমদার, মহিলা দলের কেন্দ্রীয় সহসভাপতি নাজমুন নাহার ও সাবেক সাংসদ প্রয়াত রফিকুল ইসলামের স্ত্রী শামিমা আক্তার। তবে কেউ এলাকায় প্রচারণায় নেই।

অন্যান্য দল
এ আসনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী হতে পারেন দলের কেন্দ্রীয় সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও চাঁদপুর জেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান শহীদুল হক। জোটবদ্ধ নির্বাচন হলে তিনি মহাজোটের প্রার্থী হওয়ার চেষ্টা করবেন।

বামপন্থী দলগুলোর তেমন তৎপরতা নেই। বর্তমানে জামায়াতের অবস্থাও একই। তবে এখানে ইসলামী ঐক্যজোটের ভোট আছে। অবশ্য ঐক্যজোটের নেতারা আওয়ামী লীগের সঙ্গে চলেন। তাই আগামী নির্বাচনে তাঁদের ভোট আওয়ামী লীগে যেতে পারে।

আর/১০:১৪/০২ জুন

চাঁদপুর

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে