Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 3.0/5 (90 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print

আপডেট : ০৪-১৯-২০১৮

মাটি খুঁড়ে মিলল ২০০ বছরের পুরনো পর্তুগিজ জাহাজ (ভিডিও সংযুক্ত)

মাটি খুঁড়ে মিলল ২০০ বছরের পুরনো পর্তুগিজ জাহাজ (ভিডিও সংযুক্ত)

লক্ষ্মীপুর, ১৯ এপ্রিল- লক্ষ্মীপুরে মাটি চাপায় প্রায় ২শ বছরের পুরনো ‘পর্তুগিজ জাহাজের’ সন্ধান মিলেছে। রামগতি উপজেলার চররমিজ ইউনিয়নের চরআফজল গ্রামে স্থানীয় এক ব্যক্তি পুকুর খনন করতে গিয়ে জাহাজের দেখা যায়। এ নিয়ে ব্যাপক কৌতূহল সৃষ্টি হয়েছে।

স্থানীয় প্রবীণ ব্যক্তিদের ধারণা, প্রায় ২শ বছর আগে প্রমত্তা মেঘনা নদীতে ডুবে যাওয়া জাহাজ এটি। পর্তুগিজদের ব্যবহৃত জাহাজ এটি। এতে ধনরত্ন ও অস্ত্রসস্ত্রসহ মূল্যবান সম্পদ থাকতে পারে। মাটি খুঁড়ে জাহাজ পাওয়ার খবর লক্ষ্মীপুর ও নোয়াখালীসহ আশপাশের এলাকায় ছড়িয়ে পড়ায় প্রতিদিন লোকজন দেখতে ভিড় করছেন।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, তিন বছর আগে নদী ভাঙনের শিকার মাহফুজ নামের এক ব্যক্তি চরআফজল গ্রামে জমি কিনে বাড়ি করেন। পরিবারের ব্যবহারের জন্য তিনি সম্প্রতি বসত ঘরের পাশে পুকুর খনন করছিলেন। একপর্যায়ে দেখা মেলে জাহাজের। এ খবর ছড়িয়ে পড়ে গ্রাম থেকে গ্রামে।

মাহফুজের ছেলে মো. হেলাল জানান, পুকুর খননে ১০-১২ ফুট গভীরে গেলে জাহাজ দেখতে পাওয়া যায়। এতে পুকুর খনন শেষ করা সম্ভব হয়নি। বর্তমানে খনন কাজ বন্ধ রয়েছে।

এদিকে, অধিক নিশ্চিত হতে মাহফুজ টিউবওয়েল মিস্ত্রি দিয়ে পাইপ বোরিং করায় ঘটনাস্থল এলাকায়। আশেপাশের দুই-তিনশ ফুট এলাকাজুড়ে বোরিং করানো হয়। তাতে দেখা যায়, ১২-১৪ ফুট গভীরে গেলে পাইপ আটকা পড়ে। একইভাবে বেশ কয়েকবার আশপাশের কয়েকটি স্থানে বোরিং করে এলাকার লোকজন নিশ্চিত হয়েছেন এটি বিশাল আকৃতির জাহাজ। পরে বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

ঘটনাস্থলে সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, গত এক ১০ দিন ধরে পুকুরের খনন কাজ বন্ধ রয়েছে। মাটি কাটতে না পারায় পুকুর খনন কাজ বন্ধ রেখেছেন। লোকজন দূর-দুরান্ত থেকে জাহাজের মাস্তুল দেখতে ভিড় করছেন। দেখতে আসা লোকজন মোবাইলে ফোনের ক্যামেরায় ছবি তুলছেন।

বিবিকে পাইলট আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক আবু তাহের জানান, প্রায় ২শ বছর আগে নদী থেকে জেগে উঠে চররমিজ ইউনিয়ন। পরবর্তীতে এখানে ফসল আবাদ ও বসতি গড়ে উঠে। তার আগে এই চরসহ রামগতি উপজেলা বিশাল অংশ ছিল উত্তাল নদী। বঙ্গোপসাগরের সঙ্গে এ নদী ছিল বিশাল। এ রুটে তখন নিয়মিত চলাচল করতো বড় আকৃতির জাহাজ। পুর্তগিজদেরও এই পথে যাতায়াত ছিল। সে সময়ে ডুবে যাওয়া জাহাজ এটি।

চর আফজল গ্রামের বাসিন্দারা বলছেন, জাহাজটি পর্তুগিজদের হতে পারে। তখন প্রাকৃতির দুর্যোগ বা দুর্ঘটনায় এটি নদীতে ডুবে গেছে। পরবর্তীতে আর উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি। এ জাহাজে মূল্যবান সম্পদ থাকতে পারে।

নোয়াখালীর সূবর্ণচর কলেজছাত্র শরিফ ও আকবর জানান, খবর পেয়ে তারা জাহাজ দেখতে এসেছেন। বিষয়টি নিয়ে প্রত্নতত্ত্ব বিভাগ নজর দেয়া প্রয়োজন। তাদের গবেষণায় জানা যাবে, এটি কি এবং এর রহস্য ও ইতিহাস সর্ম্পকে বিস্তারিত।

দৈনিক সংবাদের রামগতি ও কমলনগর প্রতিনিধি সানা উল্লাহ সানু লক্ষ্মীপুরের ইতিহাস-ঐতিহ্য, প্রত্নতত্ত্ব ও ঐতিহাসিক বিষয় নিয়ে একটি বই লিখছেন। জাহাজের সন্ধান প্রসঙ্গে তিনি ধারণা করছেন, এটি মুঘল আমলের পর্তুগিজ কিংবা আরাকান দস্যুদের জাহাজ হতে পারে। রামগতির চর রমিজ নদী গর্ভে থেকে জেগে উঠেছে প্রায় দেড়শ বছর আগে। জাহাজটি তারও আগে নদীতে ডুবে থাকতে পারে।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে রামগতি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আজগর আলী বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পরিদর্শন করেছি। বিষয়টি প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের সংশ্লিষ্টদের জানিয়েছি। বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে দেখা হচ্ছে।

সূত্র: জাগোনিউজ

আর/১০:১৪/১৯ এপ্রিল

লক্ষীপুর

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে