Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print

আপডেট : ০৪-১৫-২০১৮

বাংলাদেশ থেকে মিয়ানমারে ফিরলো প্রথম রোহিঙ্গা পরিবার

বাংলাদেশ থেকে মিয়ানমারে ফিরলো প্রথম রোহিঙ্গা পরিবার

ঢাকা, ১৫ এপ্রিল- জাতিসংঘকে উপেক্ষা করে প্রথম রোহিঙ্গা পরিবারকে ফিরিয়ে নিয়েছে মিয়ানমার। জাতিসংঘ বলছে, প্রত্যাবাসনের জন্য রাখাইন এখনও প্রস্তুত নয়। তা সত্ত্বেও শনিবার বাংলাদেশ থেকে ৫ সদস্যের এক রোহিঙ্গা পরিবারকে ফিরিয়ে নিয়েছে নেপিদো। মিয়ানমার সরকারের এক বিবৃতিকে উদ্ধৃত করে ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স এই খবর জানিয়েছে।

দুই বছরে রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে চলতি বছরের জানুয়ারিতে ঢাকা-নেপিদো প্রত্যাবাসন চুক্তি স্বাক্ষর হয়। এই উদ্যোগ বাস্তবায়নে মিয়ানমার রাখাইনে দুইটি অভ্যর্থনাকেন্দ্র স্থাপন করেছে। এগুলোকে অস্থায়ী শিবির নামে ডাকছে মিয়ানমার। তবে সেখানে বহুল প্রতীক্ষিত ও বিরল সফর শেষে জাতিসংঘের প্রতিনিধি দল সম্প্রতি জানিয়েছে, রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনের জন্য এখনও তৈরি নয় রাখাইন।

সরেজমিন বিভিন্ন স্থান ঘুরে দেখে, এবং সেখানকার স্থানীয় বাসিন্দাদের সঙ্গে কথা বলে জাতিসংঘের সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল উরসুলা মুয়েলার এমন সিদ্ধান্তে পৌঁছান। ৬ দিনের সফর শেষে উরসুলা মুয়েলার সংবাদমাধ্যমকে জানান, স্বাস্থ্যসেবার অপ্রতূলতা, নিরাপত্তা নিয়ে অনিশ্চয়তা আর অব্যাহত স্থানচুত্যির ঘটনা ঘটছে ধারাবাহিকভাবে। এই পরিস্থিতি রোহিঙ্গাদের ফেরত যাওয়ার জন্য সহায়ক নয়। ভবিষ্যতেও প্রত্যাবাসন আদতে সম্ভব কিনা, তা নিয়েও সংশয় প্রকাশ করেন তিনি। তবে জাতিসংঘের এই সংশয়কে আমল না নিয়ে মিয়ানমার প্রত্যাবাসন চুক্তির অংশ হিসেবে প্রথম রোহিঙ্গা পরিবারকে ফিরিয়ে নিলো।

রোহিঙ্গাদের নিজ দেশের জনগোষ্ঠী হিসেবে স্বীকার করতে শুরু থেকেই অস্বীকৃতি জানিয়ে আসছে মিয়ানমার। তাদের 'বাঙালি মুসলমান' আখ্যা দিয়ে বাংলাদেশের বাসিন্দা হিসেবে প্রতিষ্ঠা করতে চায় নেপিদো। শনিবার মিয়ানমার সরকারের এক বিবৃতিতে রোহিঙ্গাদের মুসলিম আখ্যা দিয়ে বলা হয়েছে, ‘৫ সদস্যের এক মুসলিম পরিবার আজ সকালে রাখাইনের তানজিপিওলেটওয়া অভ্যর্থনাকেন্দ্রে এসেছে।’ ওই সরকারি বিবৃতিতে বলা হয়, অভিবাসন ও স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের যাচাইবাছাই শেষে তাদের ফিরিয়ে নেওয়ার সিদ্ধান্ত বাস্তবায়িত হচ্ছে। সমাজ কল্যাণ, ত্রাণ ও পুনর্বাসন মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে তাদের চাল, মশারি, কম্বল, গেঞ্জি, লুঙ্গি সরবরাহ করা হয়েছে বলেও বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়।

রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেওয়ার চলমান প্রক্রিয়ায় তাদের নিবন্ধনের অংশ হিসেবে ন্যাশনাল ভেরিফিকেশন কার্ড-এনভিসি দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছে মিয়ানমার। তবে রোহিঙ্গা সম্প্রদায়ের নেতৃত্ব পর্যায় থেকে এই কার্ডকে নাগরিকত্ব অস্বীকার করে রোহিঙ্গাদের আজীবনের জন্য শরণার্থী করে রাখার পায়তারা বিবেচনা করা হচ্ছে। সরকারের শনিবারের বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, প্রত্যাবাসনের জন্য যাচাইবাছাই শেষে ওই পরিবারকে মিয়ানমার প্রবেশের আগেই এনভিসি কার্ড দেওয়া হয়েছে।

নিউ ইয়র্কভিত্তিক হিউম্যান রাইটস ওয়াচের মতে, সমস্যাগুলোর একটি হলো সহিংসতার সময় খালি হওয়া কমপক্ষে ৫৫টি গ্রাম বুলডোজার দিয়ে গুড়িয়ে দিয়েছে মিয়ানমার। রোহিঙ্গাদের অস্থায়ী শিবিরে রাখার পর তাদের নিজেদের এলাকায় ফিরে যেতে দিতে মিয়ানমার সরকারের প্রতিশ্রুতিকে বিশ্বাস করেন কিনা জানতে চাইলে মুয়েলার বলেন, ‘আমি সত্যি এই পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বিগ্ন’।  মুয়েলার বলেন, ‘আমি পুড়িয়ে দেওয়ার পর বুলডোজার দিয়ে গুড়িয়ে দেওয়া গ্রামগুলো দেখেছি।

আরও পড়ুন: আড়াই ঘণ্টায় গন্তব্যে নিয়ে যাবে ঢাকা-চট্টগ্রাম বুলেট ট্রেন

লোকজনকে তাদের মূল জায়গায় নিয়ে যাওয়ার কোনও প্রস্তুতি আমি দেখিওনি, শুনিওনি’। মিয়ানমার কর্মকর্তারা অবশ্য দাবি করছেন, শরণার্থীদের জন্য আবাসন তৈরির জন্যই গ্রামগুলো বুলডোজার চালানো হয়েছে।  মুয়েলার বলেন, তিনি দেশের ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের কাছে মানবিক ত্রাণ সহায়তা পাঠানোয় সীমাবদ্ধতার বিষয়টি নিয়ে মিয়ানমার কর্মকর্তাদের সঙ্গে আলোচনা করেছেন। তিনি সাহায্য সংস্থাগুলোকেও রাখাইনে প্রবেশ করতে দেওয়ার জন্য চাপ দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন।

জানুয়ারিতে অ্যামনেস্টির সবশেষ গবেষণায় রাখাইনে রোহিঙ্গাদের বহু  গ্রাম জ্বালিয়ে ও  বুলডোজারে  গুড়িয়ে দেওয়ার আলামত উঠে এসেছিল। ফেব্রুয়ারিতে মিয়ানমার সেনাবাহিনী অর্ধশতাধিক গ্রাম বুলডোজার দিয়ে গুঁড়িয়ে দিয়েছে বলে দাবি করে মার্কিন মানবাধিকার সংস্থা হিউম্যান রাইটস। বলা হচ্ছিল, রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে পরিচালিত সামরিক বাহিনীর নিধনযজ্ঞ আড়াল করতেই গ্রামগুলোতে বুলডোজার চালানো হচ্ছে। মার্চের শুরুতে নতুন করে অ্যামনেস্টির দেওয়া বিবৃতি থেকে অন্তত  ৩টি সামরিক ঘাঁটি ও রাস্তাঘাট নির্মাণ চলমান থাকার কথা জানা যায়। সবশেষ এএফপির প্রতিবেদনে উঠে এসেছে রাখাইন বৌদ্ধদের জন্য ‘আদর্শ বৌদ্ধ গ্রাম’ নির্মাণের কথা।
 
সূত্র: বাংলা ট্রিবিউন

আর/০৭:১৪/১৫ এপ্রিল

জাতীয়

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে