Deshe Bideshe

DESHEBIDESHE

Login
ইউনিজয়
ফনেটিক
English

গড় রেটিং: 0/5 (0 টি ভোট গৃহিত হয়েছে)

print

আপডেট : ০৯-১১-২০১৭

ট্রাম্পের জন্য যে চিঠি রেখে গিয়েছিলেন ওবামা

ট্রাম্পের জন্য যে চিঠি রেখে গিয়েছিলেন ওবামা

নিউ ইয়র্ক, ১১ সেপ্টেম্বর-  ওভাল অফিসে নিজের শেষ মুহূর্তে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা তাঁর উত্তরসূরি নতুন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের জন্য একটি চিঠি রেখে গিয়েছিলেন। সাদা খামের ওপর লেখা ছিল ‘মি. প্রেসিডেন্ট’। আমেরিকার ৪৫তম প্রেসিডেন্টের কাছে হাতে লেখা ওই চিঠিতে ৪৪তম প্রেসিডেন্ট ঠিক কী বার্তা দিয়েছিলেন, তা স্বভাবতই বড় কৌতূহলের কারণ। এত দিন এই চিঠির বিষয়বস্তু সম্পর্কে সুস্পষ্ট কিছু জানা না গেলেও সম্প্রতি মার্কিন প্রচারমাধ্যম সিএনএন চিঠিটি প্রকাশ করেছে। গত ৩ আগস্ট সিএনএন প্রকাশিত ওই চিঠি এ রকম:

প্রিয় প্রেসিডেন্ট, স্মরণীয় এক অভিযাত্রার জন্য আপনাকে অভিনন্দন। কোটি মানুষ আপনার ওপরেই আস্থা রেখেছে। আপনার মেয়াদে সমৃদ্ধি ও নিরাপত্তা আরও বিস্তৃত হবে এই প্রত্যাশা দলমত-নির্বিশেষে আমাদের সবার। এটি একটি স্বতন্ত্র কার্যালয়, যেখানে সাফল্যের জন্য কোনো সুনির্দিষ্ট মানদণ্ড নেই। এ কারণে আমার পক্ষ থেকে কোনো পরামর্শ বিশেষভাবে সহায়ক হবে কি না, তা আমার জানা নেই। তবু আমি আমার বিগত আট বছর মেয়াদে অর্জিত অভিজ্ঞতা থেকে কিছু বলতে চাই।

প্রথমেই বলতে হয় যে, কিছু ভিন্নতা থাকলেও আমরা দুজনই সৌভাগ্যবান। এমন ভাগ্য সবার থাকে না। প্রতিটি শিশু ও পরিবার, যারা পরিশ্রমে আগ্রহী, তাদের জন্য সাফল্যের সিঁড়ি নির্মাণে আমরা আমাদের সাধ্যমতো করব কি না, তা নিতান্তই আমাদের ওপর নির্ভর করছে।
দ্বিতীয়ত, এ বিশ্বের জন্য মার্কিন নেতৃত্ব সত্যিকার অর্থেই অপরিহার্য। আমাদের নিজেদের সম্পদ ও নিরাপত্তা নির্ভর করছে আন্তর্জাতিক স্থিতিশীলতার ওপর। স্নায়ুযুদ্ধ-পরবর্তী সময়ে ধীরে ধীরে আজকের এ স্থিতিশীলতা অর্জিত হয়েছে। বিভিন্ন পদক্ষেপ ও উদাহরণ সৃষ্টির মধ্য দিয়ে এই স্থিতিশীলতা রক্ষা করা আমাদের দায়িত্ব।

তৃতীয়ত, আমরা এ কার্যালয়ে সাময়িক সময়ের জন্য এসেছি। এর মাধ্যমে আমরা আইনের শাসন, ক্ষমতার বিকেন্দ্রীকরণ, সাম্য ও নাগরিক স্বাধীনতার মতো গণতান্ত্রিক বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও ঐতিহ্যের অভিভাবকরূপে আবির্ভূত হয়েছি। এসব অধিকার, ঐতিহ্য ও প্রতিষ্ঠান নির্মাণের জন্য আমাদের পূর্বতনরা যুদ্ধ করেছেন, রক্ত দিয়েছেন। রাজনীতির মাঠের নিত্যকার বাদ-বিসম্বাদের বাইরে এসব গণতান্ত্রিক ঐতিহ্য ও প্রতিষ্ঠানকে সমুন্নত রাখার দায়িত্ব আমাদের। এসব গণতান্ত্রিক উপাদানের শক্তি বৃদ্ধি সম্ভব না হলেও তার যেন ক্ষয় না হয় সে চেষ্টা করাই আমাদের কর্তব্য।
আর সর্বশেষ, অগণিত ঘটনা ও দায়িত্বের মধ্য থেকেও পরিবার ও বন্ধুর জন্য সময় করে নেবেন। তারাই অপ্রতিরোধ্য রূঢ় বাস্তবতার মধ্যে আপনার পথ করে নেওয়ার একমাত্র সহায়ক।

আপনার ও মেলানিয়ার এই দারুণ অভিযাত্রায় মিশেল ও আমার সর্বাত্মক শুভকামনা রইল। একই সঙ্গে আপনাদের যেকোনো প্রয়োজনে আমরা সাধ্যমতো সহায়তা দিতে প্রস্তুত রয়েছি। শুভকামনা বিও (বারাক ওবামা)

ট্রাম্পের কাছে লেখা বারাক ওবামার এই চিঠিতে চারটি সুনির্দিষ্ট পরামর্শ উঠে এসেছে। শুরুতেই তিনি অভিনন্দন জানিয়েছেন নতুন প্রেসিডেন্টকে। একই সঙ্গে এটি বলতেও ভোলেননি যে, দলমত-নির্বিশেষে দেশের সবার সমৃদ্ধি ও নিরাপত্তার জন্য এখন ট্রাম্পের ওপরই আস্থা রাখা উচিত। ২৭৫ শব্দের এই চিঠিতে ওবামা ট্রাম্পকে তাঁর দায়িত্ব সম্পর্কে সচেতন করে দিয়েছেন। একই সঙ্গে এই পদে সাফল্যের যেকোনো পূর্বনির্ধারিত মানদণ্ড নেই তা-ও তিনি উল্লেখ করেছেন।

বারাক ওবামা এই চিঠির বিষয়বস্তু সম্পর্কে এমনকি তাঁর সবচেয়ে ঘনিষ্ঠ সহকর্মীকেও জানাননি। এর বিপরীতে ট্রাম্প তাঁর সঙ্গে সাক্ষাতের উদ্দেশে ওভাল অফিসে যাওয়া অনেককেই এ চিঠি দেখিয়েছেন। আর এ ধরনের একটি সূত্রেই এ চিঠিটি সিএনএনের হাতে এসেছে বলে জানিয়েছে সংবাদমাধ্যমটি।
ট্রাম্পকে লেখা ওবামার এই চিঠি একটি ধারাবাহিকতার অংশ, যা মার্কিন প্রেসিডেন্টরা দীর্ঘদিন ধরে অনুসরণ করে আসছেন। বারাক ওবামা ওভাল অফিসের দায়িত্ব নেওয়ার সময় একইভাবে কিছু পরামর্শ ও শুভকামনা পত্রবদ্ধ করেছিলেন তাঁর পূর্বতন জর্জ ডব্লিউ বুশ।

উত্তর আমেরিকা

আরও সংবাদ

Bangla Newspaper, Bengali News Paper, Bangla News, Bangladesh News, Latest News of Bangladesh, All Bangla News, Bangladesh News 24, Bangladesh Online Newspaper
উপরে