logo

মিয়ানমারে অর্ধশতাব্দীতে প্রথমবার বসছে গণতান্ত্রিক সংসদ অধিবেশন

মিয়ানমারে অর্ধশতাব্দীতে প্রথমবার বসছে গণতান্ত্রিক সংসদ অধিবেশন

নেপিদ, ০১ ফেব্রুয়ারী- মিয়ানমারে ৫০ বছরেরও বেশি সময় পর প্রথমবারের মতো নির্বাচিত গণতান্ত্রিক সরকারের অধীনে সংসদ অধিবেশন বসতে যাচ্ছে। দীর্ঘদিনের সেনা শাসনের অবসান ঘটিয়ে নতুন এই অধিবেশনে যোগ দিতে ইতোমধ্যে দেশটির সংসদ ভবনে এসে জড়ো হয়েছেন শতাধিক সংসদ সদস্য।

মিয়ানমারের গণতান্ত্রিক আন্দোলনের নেত্রী অং সান সু চির দল ন্যাশনাল লিগ ফর ডেমোক্র্যাসির (এনএলডি) নির্বাচিত সংসদ সদস্যদের আধিপত্যের মধ্য দিয়ে হতে যাচ্ছে এই অধিবেশন। দলটি গত বছরের নভেম্বরে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে ৮০ শতাংশ আসনে জয়লাভ করেছে।

অধিবেশনে একপাশে যখন রঙ্গিন পোশাকে এনএলডি'র সাংসদরা তখন অন্যপাশে সবুজ রঙয়ের পোশাকে সেনা সদস্যরা। কিন্তু মিয়ানমারের সংবিধান অনুযায়ী এক চতুর্থাংশ আসন সেনাবাহিনীর জন্য সংরক্ষিত রয়েছে।

যেখানে কিছু গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রণালয়েরও দায়িত্ব গ্রহণ করবে দেশটির সেনা কর্মকর্তারা।

সাংবিধানিক বাধা থাকায় প্রেসিডেন্ট হতে পারছেন না অং সান সুচি।

নতুন এই সংসদের প্রথম কাজটি হচ্ছে রাষ্ট্রপতি নির্বাচন করা। সাংবিধানিক বাধা থাকায় প্রেসিডেন্ট হতে পারছেন না দেশটির গণতন্ত্রের আন্দোলনে নেতৃত্ব দেওয়া ১৫ বছরব্যাপী গৃহবন্দী থাকা অবিসংবাদিত নেত্রী অং সান সু চি। কারণ, তার পুত্র ব্রিটেনের নাগরিক।

এদিকে সু চি আগেই বলেছেন, দেশটির গঠিত নতুন নেতার মাধ্যমে তিনি দেশের প্রয়োজনে প্রভাব ফেলতে পারবেন।