logo

চীনের খনিধস: ৩৬ দিন পর জীবিত শ্রমিকদের উদ্ধার

চীনের খনিধস: ৩৬ দিন পর জীবিত শ্রমিকদের উদ্ধার

বেইজিং, ২৯ জানুযারি- চীনের শ্যানডংয়ে গত ডিসেম্বরে একটি খনিতে ভূমিধসের ৩৬ দিন পর ধ্বংসস্তুপ থেকে চার শ্রমিককে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়, ধসে পড়া জিপসাম খনি থেকে তাদের নিরাপদে উঠিয়ে আনা হয়েছে।

সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যায়, খনি থেকে একজন বেরিয়ে আসছে এবং উদ্ধারকারীরা তাকে হাসপাতালে নিয়ে যাচ্ছে। গত ২৫ ডিসেম্বরে ঘটা ওই দুর্ঘটনায় ১৭ শ্রমিক খনির ভেতর আটকা পড়ে। পরে চারজনকে জীবিত অবস্থায় পাওয়া যায়। তারাই এখন উদ্ধার পেল। ওই সময় আটকা পড়া এক শ্রমিকের মৃত্যুর খবর জানানো হয়েছিল। বাকী অন্যান্যদের বিষয়ে কিছু জানানো হয়নি।

বিবিসি প্রতিবেদনে বলা হয়, শুক্রবার দিনের শেষভাগে জীবিত শ্রমিকদেরকে মাটির নিচ থেকে তুলে আনা হয়েছে। উপরে তুলে আনার সময় তাদের চোখ কাপড় দিয়ে মুড়িয়ে দেওয়া ছিল। স্থানীয় গণমাধ্যমগুলো জানায়, উদ্ধার পাওয়া শ্রমিকদের অবস্থা স্থিতিশীল। হাসপাতালে তাদের পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হয়েছে।

চারশ’র বেশি জরুরি উদ্ধারকর্মী উদ্ধার অভিযানে অংশ নিয়েছে। আটকে পড়া শ্রমিকদের উদ্ধারের জন্য কয়েক সপ্তাহ ধরে সুড়ঙ্গ খোঁড়া হয়। তার আগে ছোট একটি গর্ত দিয়ে তাদের কাছে পানি ও তরল খাবার পাঠানো হয়।

এর আগে প্রকাশ করা সিসিটিভির একটি ফুটেজে দেখা যায়, ধসে পড়া খনির মধ্যে চার শ্রমিক একসঙ্গে বসে আছে। তাদের একজনকে বলতে শোনা যায়, “আমি এখন নিশ্চিন্ত ও নিরাপদ বোধ করছি। আমরা আপনাদের (উদ্ধারকর্মীদের) আজীবন মনে রাখব।”

ওই খনি দুর্ঘটনার দুইদিনের মাথায় খনির মালিক মা কঙ্গবো খনির একটি কুয়ায় ঝাঁপিয়ে পড়ে আত্মহত্যা করেন। চীনে প্রায়ই খনি দুর্ঘটনা ঘটে। সর্বশেষ এই খনি ধসের কারণ কি তা এখনো নিশ্চিত নয় কর্তৃপক্ষ। দক্ষিণ চীনে নির্মাণকাজ চলাকালে প্রাণঘাতী এক ভূমিধসের কয়েকদিন পর এ খনি ধসের ঘটনা ঘটে।