logo

১১৮টি উড়োজাহাজ কিনতে এয়ারবাসের সঙ্গে চুক্তি ইরানের

১১৮টি উড়োজাহাজ কিনতে এয়ারবাসের সঙ্গে চুক্তি ইরানের

তেহরান, ২৯ জানুয়ারী- ১১৮টি উড়োজাহাজ কেনার ব্যাপারে ফরাসি প্রতিষ্ঠান এয়ারবাসের সঙ্গে ২৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের চুক্তি করেছে ইরান।

বিবিসি বলছে, পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়ার পর অর্থের দিক থেকে এটাই দেশটির সর্ববৃহৎ চুক্তি।

ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানির ফ্রান্স সফরের সময়ই এই চুক্তি হল।

এয়ারবাসের কাছ থেকে বিভিন্ন মডেলের উড়োজাহাজ কেনার ব্যাপারে চুক্তিটি হয়েছে। এরমধ্যে রয়েছে ৭৩টি বড় এবং ৪৫টি ছোট জেট। বড় উড়োজাহাজগুলোর মধ্যে ১২টি এ৩৮০ সুপার জাম্বোও রয়েছে।

ইরানের এ৩৮০ মডেলের উড়োজাহাজ ক্রয় এয়ারবাসের জন্য একটি বড় ঘটনা। কারণ বিমান নির্মাণকারী এই প্রতিষ্ঠানটি দুই বছর ধরে বিশ্বের সবচে বড় যাত্রীবাহী এই মডেলের উড়োজাহাজ বিক্রির জন্য চেষ্টা চালিয়ে আসছে।

ধারণা করা হচ্ছে, এরফলে এয়ারবাসের এ৩৮০ মডেলের উড়োজাহাজ বিক্রির পালে হাওয়া লাগবে।


সফররত ইরানি প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানির সঙ্গে ফরাসি প্রেসিডেন্ট ফ্রাঁসোয়া অলন্দের বৈঠক।

প্রতিষ্ঠানটির নির্মিত উড়োজাহাজের ১০ভাগ যন্ত্রাংশ যুক্তরাষ্ট্রে তৈরি হয়।

শুধু উড়োজাহাজ সরবরাহ করেই এয়ারবাসের দায়িত্ব শেষ নয়। পাইলটদের প্রশিক্ষণ, বিমানবন্দরের কার্যক্রম পরিচালনা এবং বিমান চলাচল ব্যবস্থার বিষয়ে প্রশিক্ষণ দেওয়াও এর অন্তর্ভুক্ত।

এয়ারবাসের প্রতিদ্বন্দ্বী মার্কিন প্রতিষ্ঠান বোয়িং থেকেও ইরানের উড়োজাহাজ কেনার আগ্রহ রয়েছে।

ইরানি পরিবহনমন্ত্রী আব্বাস আকহন্দি হিসাব করে জানিয়েছেন, দেশের চাহিদা অনুযায়ী আগামী কয়েক বছরে ৪শ’ মধ্যম ও দূরপাল্লার উড়োজাহাজ এবং স্বল্প দূরত্বে যাতায়াতের জন্য ১শ’ উড়োজাহাজ প্রয়োজন।

১৯৯৫ সালে ইরানের উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের পর দেশটির কোম্পানিগুলোর কাছে পশ্চিমা কোম্পানিগুলো কোনো যন্ত্র বা যন্ত্রাংশ বিক্রি করতে পারতো না।

ইরানি বিমান পরিবহন সংস্থাগুলোতে প্রায় ১৪০টি উড়োজাহাজ রয়েছে। এগুলো গড়ে ২০ বছর পুরনো। উড়োজাহাজগুলোর মধ্যে অনেকগুলোকে চলাচল অনুপযোগী ঘোষণা করা প্রয়োজন।