logo

সিন্দুক ভেঙে মিলল আড়াইশ’ সোনার বার

সিন্দুক ভেঙে মিলল আড়াইশ’ সোনার বার

চট্টগ্রাম, ২৬ জানুয়ারি- চট্টগ্রাম নগরীর কোতোয়ালি থানার তামাকুমুণ্ডি লেনের একটি ভবন থেকে জব্দ করা তিনটি সিন্দুক থেকে আড়াইশ’ সোনার বার ও অর্ধ কোটি টাকা পাওয়া গেছে।

‘গোপন সংবাদের ভিত্তিতে’ সোমবার রাতে গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল বাহার মার্কেট নামের ওই ভবনের ষষ্ঠ তলার ৪ নম্বর ও ৮ নম্বর কক্ষে অভিযান চালিয়ে সিন্দুক তিনটি জব্দ করে। সিন্দুক তিনটি জব্দ করার পর গ্যাস কাটার দিয়ে সেগুলো কাটার চেষ্টা করলেও তাতে সফল হয়নি পুলিশ।

তখন চট্টগ্রাম নগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (গোয়েন্দা) বাবুল আক্তার বলেন, “এগুলো থানায় নিয়ে কাটা হবে।” এরপর কোতোয়ালি থানায় ৪ নম্বর কক্ষ থেকে জব্দ করা একটি সিন্দুক ‍খুলে তাতে ২৫০টি সোনার বার পাওয়া যায়। এগুলোর মধ্যে কিছু খোলা অবস্থায় এবং কিছু ১০টা করে প্যাকেটে স্কচটেপ দিয়ে মোড়ানো ছিল।

তিনি বলেন, ৮ নম্বর কক্ষ থেকে আনা সিন্দুকটিতে কিছুই পাওয়া যায়নি। সহকারী কমিশনার মো. কামরুজ্জামান বলেন, তৃতীয় সিন্দুকটি থেকে ৬০ লাখ টাকা পাওয়া গেছে। এক হাজার টাকার নোটের ৬০টি বান্ডেল ছিল। যে দুটি কক্ষ থেকে সিন্দুকগুলো উদ্ধার হয়, সেখান থেকে কিছু কাগজপত্র ও কম্পিউটারের হার্ড ডিস্ক জব্দ করা হয়েছে।

তিনি বলেন, ষষ্ঠ তলার ৪ নম্বর কক্ষটি ৮ ফুট বাই ১০ ফুট। কক্ষটিতে সিসি ক্যামেরা লাগানো ছিল। কক্ষটি জুতা ও ব্যাগের গুদাম হিসেবে ব্যবহারের জন্য আবু আহমদ নামের এক ব্যক্তি ভাড়া নিয়েছিলেন বলে ভবনের বাসিন্দারা জানান। ৮ নম্বর কক্ষটিতে লোকজন থাকত। ওই কক্ষে কম্পিউটার দেখা গেছে।

শাহজালালে ৩৩ কেজি সোনা উদ্ধার
মালয়েশিয়া থেকে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে আসা মালিন্দ এয়ারের একটি উড়োজাহাজ থেকে ৩৩ কেজি সোনা জব্দ করেছেন শুল্ক বিভাগের কর্মকর্তারা।

বিমানবন্দর শুল্ক বিভাগের সহকারী কমিশনার শহীদুজ্জামান সরকার বলেন, সোমবার রাত সোয়া ১১টায় বিমানটি আসার পর গোপন সংবাদের ভিত্তিতে এতে তল্লাশি চালানো হয়। “উড়োজাহাজের আসনের ভেতর থেকে বেশ কয়েকটি সোনার বার উদ্ধার করা হয়, যার ওজন ৩২ কেজি ৭০০ গ্রাম।”

শহীদুজ্জামান বলেন, “চোরাচালানের জন্য ওই সোনার বারগুলো আনা হয়েছে, সেটা নিশ্চিত। কারা এগুলো নিয়ে আসায় জড়িত, তাদের খুঁজে বের করতে চেষ্টা করা হবে।”