logo

ভিয়েতনামে স্যাটেলাইট ট্র্যাকিং স্টেশন তৈরি করবে ভারত

ভিয়েতনামে স্যাটেলাইট ট্র্যাকিং স্টেশন তৈরি করবে ভারত

হানই, ২৫ জানুয়ারী- ভিয়েতনামের দক্ষিণাঞ্চলে একটি স্যাটেলাইট ট্র্যাকিং ও ইমেজিং সেন্টার স্থাপন করবে ভারত।

এতে পৃথিবী পর্যবেক্ষণকারী ভারতীয় উপগ্রহের মাধ্যমে চীন এবং দক্ষিণ চীন সাগরসহ নিজ ভূখণ্ড সংলগ্ন অঞ্চলের উপর নজরদারির পাশপাশি ভিয়েতনাম ছবিও পাবে বলে ভারতীয় কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

এই উদ্যোগের ফলে ভারত এবং ভিয়েতনামের বন্ধুত্ব আরো গভীর হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তবে এতে ক্ষুব্ধ হতে পারে চীন। ভিয়েতনাম ও ভারত উভয় দেশের সঙ্গে চীনের দীর্ঘদিনের ভূখণ্ডগত বিরোধ রয়েছে।

কৃষি, পরিবেশগত ও বৈজ্ঞানিক উদ্দেশ্যে ব্যবহারের কথা বলা হলেও নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, পৃথিবী পর্যবেক্ষণকারী উপগ্রহের উন্নত ইমেজিং প্রযুক্তির অর্থ হল এগুলো সামরিক উদ্দেশ্যেও ব্যবহার করা যাবে।

দক্ষিণ চীন সাগরের অধিকার নিয়ে চীনের সঙ্গে উত্তেজনার পরিপ্রেক্ষিতে ভিয়েতনাম বিশেষভাবে অত্যাধুনিক গোয়েন্দানজরদারি ও জরিপ প্রযুক্তির সন্ধান করছে বলে জানিয়েছেন তারা।

সিঙ্গাপুরের এস রাজারাথনাম স্কুল অব ইন্টারন্যাশনাল স্টাডিজের সমুদ্র নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞ কোলিন কোহ বলেন, “সামরিকভাবে দেখলে এই উদ্যোগ পরিষ্কারভাবে উল্লেখযোগ্য। এটি উভয়পক্ষের জন্য সুবিধাজনক পরিস্থিতি তৈরি করবে বলে বোধ হচ্ছে। এতে একদিকে ভিয়েতনামের ফাঁক পূরণ হবে অপরদিকে ভারতীয়দের আওতা বৃদ্ধি পাবে।”

ভারতের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা আইএসআরও ভিয়েতনামের হো চি মিন শহরে এই তথ্যগ্রহণ কেন্দ্রটি স্থাপন করতে প্রয়োজনীয় তহবিলের যোগান দেওয়ার পাশাপাশি এটি স্থাপনের কাজটিও করবে। এখান থেকে ভারতের উপগ্রহগুলোর উৎক্ষেপণ তদারকি করা যাবে বলে জানিয়েছেন ভারতীয় কর্মকর্তারা।

ভারতীয় গণমাধ্যগুলো এই প্রকল্পে দুই কোটি তিন লাখ ডলার ব্যয় হবে বলে জানিয়েছে।

ভারতের ৫৪ বছর বয়সী মহাকাশ কর্মসূচির পরিসর ক্রমান্বয়ে বাড়ছে। প্রতিমাসে একটি উপগ্রহ উৎক্ষেপণ করার সূচি আছে আইএসআরও-র।

ভারতের আন্দামান ও নিকোবার দ্বীপ ছাড়াও ব্রুনেই, ইন্দোনেশিয়ার বিয়াক এবং মরিশাসে আইএসআরও-র উৎক্ষেপিত উপগ্রহগুলোর ফ্লাইট প্রাথমিকভাবে ট্র্যাক করার ‍ভূ-স্টেশন আছে।

ভিয়েতনামের ভূ-স্টেশনটি যুক্ত হলে এই সক্ষমতা আরো বাড়বে বলে আএসআরও-র মুখপাত্র দেবীপ্রাসাদ কার্নিক জানিয়েছেন।