logo

খালেদা জিয়া রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে কী এমন বলেছিলেন

খালেদা জিয়া রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে কী এমন বলেছিলেন

ঢাকা, ২৫ জানুয়ারী- একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধে শহীদের সংখ্যা নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্যের জেরে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা দায়ের হওয়ার পর এক অনুষ্ঠানে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শাহ্ মোয়াজ্জেম হোসেন প্রশ্ন রেখেছেন- খালেদা জিয়া রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে কী এমন কথা বলেছিলেন যে তার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহের মামলা দেয়া হলো?  

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অনুমতি পেয়ে সোমবার সকালেই খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে এই মামলাটি করেছেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মোমতাজ উদ্দিন আহমদ মেহেদী।

একই অনুষ্ঠানে বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী অভিযোগ করেছেন, ক্ষমতাসীনরা আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী দিয়ে মানুষ গুম করে মুক্তিপন আদায় করেছে। এমনকি তারা জবর দখলে উচ্চ আদালত থেকে নির্দেশনাও জারি করছে, যা পৃথিবীর ইতিহাসে কোথাও নেই।
 
রিজভী বলেন, অবৈধ এ সরকার সব কিছুই দখল করে নিয়েছে। আর এসবের সহযোগিতা করছে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী। আওয়ামী লীগের ইচ্ছা অনুযায়ী নতুন করে ইতিহাস রচনা করা হচ্ছে। আর এসবের জন্য ক্ষমতাসীনরা উচ্চ আদালত থেকে নির্দেশনাও জারি করছে যা পৃথিবীর ইতিহাসে কোথাও নেই।’
 
তত্ত্বাবধায়ক সরকার প্রসঙ্গ টেনে তিনি বলেন, ক্ষমতাসীন দলের অনেকেই তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা রাখার পক্ষে ছিলেন। কিন্তু শুধুমাত্র একজনের ইচ্ছায় সংবিধান সংশোধন করা হয়েছে। কারণ, শেখ হাসিনা জানতেন, এ সরকার ব্যবস্থা থাকলে তিনি চিরস্থায়ীভাবে ক্ষমতায় টিকে থাকতে পারবেন না।
 
ক্ষমতাসীনদের উদ্দেশে তিনি বলেন, আপনারা প্রস্তুত থাকুন, একদিন বিচারের কাঠগড়ায় আপনাদের দাঁড়াতে হবে। মানুষ হত্যা, গুম-খুন ও নির্যাতন করছেন যারা এর বিরুদ্ধে কথা বলতে চায়, তাদের আপনারা হামলা করে, মামলা দিয়ে মুখ বন্ধ করার চেষ্টা করছেন।

সোমবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে বাংলাদেশ লেবার পার্টি আয়োজিত এক আলোচনা সভায় রিজভী এসব কথা বলেন। আয়োজক সংগঠনের সভাপতি ডা. মোস্তাফিজুর রহমান ইরানের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য দেন বিএনপির আইন বিষয়ক সম্পাদক ব্যারিষ্টার জিয়াউর রহমান, সংগঠনের মহা-সচিব হামদুল্লাহ আল মেহেদী প্রমুখ।