logo

বয়ফ্রেন্ডের সঙ্গে ঝগড়া? দায়ী আপনার নিজস্বী তোলার প্রবণতা!

বয়ফ্রেন্ডের সঙ্গে ঝগড়া? দায়ী আপনার নিজস্বী তোলার প্রবণতা!

ইদানিং প্রায়ই ঝামেলা ঝঞ্ঝাট লেগেই থাকে শ্রীময়ী এবং রাহুলের মধ্যে। শ্রীময়ী সংবাদমাধ্যমে কর্মরত। রাহুল ব্যস্ত কর্পোরেট চাকুরে। দু’জনের বহুদিনের প্রেমের সম্পর্ক। সম্পর্কের ইক্যুয়েশন কোশেন্টেও কোনও সমস্যা নেই। তবুও মাঝে মধ্যেই দু’জনের মনোমালিন্য দেখা দিচ্ছে। সমস্যা মেটাবার চেষ্টা করলেও যেন মিটছে না সমস্যা।

রাহুল-শ্রীময়ীর মতো সমস্যায় কী আপনিও আক্রান্ত? ইদানিং প্রায়ই কী দু’জনের মধুর সম্পর্কে অযথা তিক্ততা দেখা দিচ্ছে? কেন ভেবে দেখেছেন? আপনি কি অতিরিক্ত নিজস্বী তোলার প্রবণতায় আক্রান্ত? এই প্রবণতাই সব সমস্যার মূলে নয় তো?

মার্কিন মুলুকের ফ্লোরিডা স্টেট বিশ্ববিদ্যালয়ের এক দল গবেষকের দাবি, যে সব ব্যক্তিরা বেশি বেশি নিজস্বী তোলেন এবং সেই সব নিজস্বী বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়ায় ঘন ঘন পোস্ট করেন তাঁদের প্রেমের সম্পর্ক বিভিন্ন সমস্যায় জর্জরিত। একাকীত্বের সমস্যায় ভোগেন সেই সব ব্যক্তিরা।

১৮ থেকে ৬২ বছরের মধ্যে ৪২০ জন ব্যক্তির উপর এই সমীক্ষাটি চালানো হয়েছে। সমীক্ষায় প্রকাশ, যাঁরা নিজস্বী তোলেন তাঁরা নিজেকে সুন্দর দেখতে ভালবাসেন। নিজস্বীতে কাকে কেমন দেখতে তার উপর ভিত্তি করেই তাঁরা লোকেদের সঙ্গে সম্পর্ক রাখতে ভালবাসেন। তাই নিজস্বীতে যদি সঙ্গী অথবা সঙ্গিনীকে দেখতে ভাল না লাগে তা হলেই তুতু ম্যায় ম্যায়! তাই যত নষ্টের গোড়া ওই সেলফি ম্যানিয়া। গবেষণপত্রটি প্রকাশিত হয়েছে ‘সাইবারসাইকোলজি, বিহেভিওর অ্যান্ড সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং নামক জার্নালে।