logo

খালেদার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহের মামলা

খালেদার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহের মামলা

ঢাকা, ২৫ জানুয়ারি- একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের সংখ্যা নিয়ে ‘বিতর্কিত’ মন্তব্য করায় বিএনপির চেয়ারপাসন বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে এবার রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা হয়েছে। এর আগে একই ঘটনায় নড়াইলে খালেদার বিরুদ্ধে একটি মানহানির মামলা দায়ের করা হয়েছিল। 

সোমবার সকালে ঢাকার সিএমএম আদালতে মামলাটি দায়ের করেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মোমতাজ উদ্দিন আহমদ মেহেদী। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন অ্যাডভোকেট একেএম আমিন উদ্দিন মানিক। মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট রাশেদ তালুকদারের আদালতে সকাল সাড়ে ১১টার দিকে শুনানি অনুষ্ঠিত হতে পারে বলে আদালত সূত্র জানিয়েছে।

এর আগে মোমতাজ উদ্দিন আহমদ মেহেদীর খালেদার ‘বিতর্কিত বক্তব্য’র প্রত্যাহারের জন্য খালেদা জিয়াকে উকিল নোটিশ পাঠান। এর জবাব না পেয়ে খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা করার অনুমতি চেয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আবেদন করেন তিনি। 

আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ২১ জানুয়ারি রাষ্ট্রদ্রোহ মামলার অনুমোদন দেয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। গতকাল রোববার এ অনুমতির কপি হাতে পান তিনি। এরই পরিপ্রেক্ষিতে সোমবার বিচারিক আদালতে মামলা করলেন মোমতাজ উদ্দিন মেহেদী।

প্রসঙ্গত, গেল বছরের ২১ ডিসেম্বর রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে ‘মুক্তিযোদ্ধা সমাবেশে’ খালেদা জিয়া বলেন, ‘মুক্তিযুদ্ধে শহীদের সঠিক সংখ্যা নিয়ে বিতর্ক আছে। আজকে বলা হয়, এত লাখ মানুষ শহীদ হয়েছে। এটা নিয়েও অনেক বিতর্ক আছে’। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নাম উল্লেখ না করে খালেদা জিয়া দাবি করেন, ‘তিনি বাংলাদেশের স্বাধীনতা চাননি। পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হতে চেয়েছিলেন তিনি। জিয়াউর রহমান স্বাধীনতার ঘোষণা না দিলে মুক্তিযুদ্ধ হতো না’।