logo

খোদ ব্রিটেনে আইএসের প্রশিক্ষণে ৩ বছরের শিশু!

খোদ ব্রিটেনে আইএসের প্রশিক্ষণে ৩ বছরের শিশু!

লন্ডন, ২৪ জানুয়ারী- শিশুসুলভ মনভুলানো হাসি নিয়ে ক্যামেরার সামনে দাঁড়িয়ে ছয় বছরের ব্রিটিশ শিশু। কিন্তু এই শিশু বয়সে তাঁর মনে গেঁথে দেয়া হয়েছে বর্বর ইসলামিক জঙ্গিগোষ্ঠী আইএসের জিহাদি মূল্যবোধ। শুধু এই শিশুটিই নয় তার আট বছরের ভাই এবং মাত্র তিন বছরের বোনকে আইএসের সদস্য হিসেবে গড়ে তোলা হচ্ছে।  

এর আগেও আইএসের পক্ষে সিরিয়া এবং ইরাকের অনেক শিশুর ছবি আমরা দেখেছি। কিন্তু এই প্রথমবারের মতো স্বয়ং ব্রিটেনে শিশুদের আইএসের মতাদর্শে উদ্বুদ্ধ হওয়ার প্রমাণ মিললো।
জানা যায়, বাবার কথা মতোই এসব শিশুরা ধীরে ধীরে জঙ্গিগোষ্ঠী আইএসের মতাদর্শে উজ্জীবিত হচ্ছিল। এই শিশুদের বাবা ব্রিটেনের অন্যতম পরিচিত জঙ্গি ইব্রাহিম অ্যান্ডারসন।
সম্প্রতি ব্রিটেনের সড়কে আইএসের পক্ষে প্রচারণার অভিযোগ আনা হয়েছে ইব্রাহিমের বিরুদ্ধে। ২০১৪ সালের অক্টোবরে এই ছবিগুলো ইব্রাহিমের ক্যামেরায় তোলা হয়েছিল।
দুমাস আগে পুলিশ তার বাসায় তল্লাশি চালিয়ে এই ছবিগুলো খুঁজে পায়। দেশটির বিচারবিভাগেও এই ছবিগুলো দেখানো হয়েছে।


তিন বছর আগে অ্যান্ড্রু অ্যান্ডারসন ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করে খ্রিস্টান থেকে মুসলিম বনে যায়। এর আগে ১৯৯০ সালে পেট্রল স্টেশনে ডাকাতির অভিযোগে তাকে কারাভোগ করতে হয়। তার আগেও গাড়ি চুরির অপরাধে জেলে গিয়েছিলেন অ্যান্ডারসন।

গ্রেপ্তারের আগে স্ত্রী, সন্তান এবং মায়ের সঙ্গে ব্রিটেনের লুটনে থাকতেন অ্যান্ডারসন। তার মা এবং স্ত্রী দুজনই ব্রিটেনের নাগরিক।

দেশটির বিচার বিভাগ জানায়, ৩৮ বছর বয়সী অ্যান্ডারসন এবং তার সহযোগী ৬৩ বছর বয়সী শাহ জাহান খান লন্ডনের কেন্দ্রে অক্সফোর্ড স্ট্রিটে আইএসের সদস্য নিয়োগের জন্য অফিস পরিচালনা করতেন। খানের মোবাইলেও মিলছে অনেক গুরুত্বপূর্ণ ফুটেজ। খানের পরিবারের চারজন সদস্য আইএসে যোগ দিয়েছে বলে জানা যায়।

ব্রিটিশ সংসদ সদস্য ফিলিপ হোলোবোন বলেন, ‘এটি শুধুমাত্র শিশুদের জিহাদে উদ্বুদ্ধ করা নয়, বরং শিশুদের অপব্যবহারেরও অংশ। এই দেশে জন্ম নেয়া কোন শিশুকে আমরা ভবিষ্যত আত্মঘাতী বোমাবাজ হিসেবে বেড়ে উঠতে দিতে পারি না। এসব শিশুদের যথাযথ যতেœর প্রয়োজন।’


লেবাব পার্টির সংসদ সদস্য কিথ ভেজ বলেন, ‘এসব ছবি বিরক্তিকর। এ থেকে বোঝা যায় এই দেশের বাসিন্দারাও আইএসকে সহায়তা করতে প্রস্তুতি নিচ্ছে।’

জঙ্গিরা খুব সতর্কভাবে তাদের সন্তানদের আইএসের মতাদর্শে গড়ে তুলছে। জানা যায়, সিরিয়া এবং ইরাকে আইএসের শাসন প্রতিষ্ঠা করতে লড়ছে একশ’রও বেশি ব্রিটিশ শিশু-কিশোর। এদের প্রত্যেকে বয়স ১৬ বছরের কম।