logo

উত্তর কোরিয়ার নেতাদের বিচারের সময় এসেছে: জাতিসংঘ

উত্তর কোরিয়ার নেতাদের বিচারের সময় এসেছে: জাতিসংঘ

পিয়ংইয়ং, ২৩ জানুয়ারি- উত্তর কোরিয়ার নেতাদেরকে মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে বিচার করার সময় হয়ে এসেছে। জাতিসংঘের উত্তর কোরিয়া বিষয়ক শীর্ষ দূত মারজুকি দারুসম্যান একথা বলেছেন।

তিনি বলেন, গত দুবছরে উত্তর কোরিয়ার মানবাধিকার পরিস্থিতির কোনও উন্নতি না হওয়ায় দেশটির নেতাদেরকে এখন বিচারের কাঠগড়ায় দাঁড় করানো উচিত। উত্তর কোরিয়া ‘বৈরি কর্মকান্ড’ এবং ‘দেশের ঐক্য বিনষ্ট করার অভিসন্ধির’ অভিযোগে এক মার্কিন ছাত্রকে আটক করার কথা জানানোর পর জাতিসংঘ দূত একথা বললেন।

শুক্রবার এক বিবৃতিতে দারুসম্যান বলেন, “মানবাধিকার পরিস্থিতির উন্নতি ঘটানোর জন্য উত্তর কোরিয়াকে চাপে রাখতে দেশটির ওপর অবিরাম রাজনৈতিক চাপ সৃষ্টির পাশাপাশি এখন তাদের নেতাদের অপরাধের দায়ের বিষয়টি নিয়েও মাথা ঘামানো দরকার।”

দুবছর আগে ২০১৪ সালের একটি প্রতিবেদনে মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে উত্তর কোরিয়া সরকারকে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের (আইসিসি) আওতায় বিচার করার জন্য জাতিসংঘ সাধারণ অধিবেশনে সদস্য দেশগুলো নিরাপত্তা পরিষদের কাছে অনুরোধ জানিয়েছিল।

জাতিসংঘ থেকে প্রকাশিত ওই প্রতিবেদনে, উত্তর কোরিয়ার বন্দি শিবিরে অমানবিক নির্যাতন, বন্দিদের না খাইয়ে রাখা, নাৎসি কায়দায় হত্যাকাণ্ডসহ নানা মানবাধিকার লঙ্ঘনের চিত্র তুলে ধরা হয়। তবে এ সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করে জাতিসংঘের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করে উত্তর কোরিয়া।

দু’বছরে পরিস্থিতির কোনও উন্নতি হয়নি জানিয়ে দারুসম্যান বলেন, “দায়ী ব্যক্তিদের সনাক্ত করতে এবং দেশটির শাসক পর্যায়ে মানবাধিকারের অপব্যবহারের সব কর্মকাণ্ডের চিহ্ন খুঁজে পেতে বহু প্রতিষ্ঠান, বেসামরিক গোষ্ঠী, সরকার এমনকি জাতিসংঘও তথ্য সংগ্রহ করছে।”