logo

৫ জানুয়ারির সঙ্কট তীব্রতর হচ্ছে: নোমান

৫ জানুয়ারির সঙ্কট তীব্রতর হচ্ছে: নোমান

আবদুল্লাহ আল নোমান

ঢাকা, ২৩ জানুয়ারি- নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন না হওয়া পর্যন্ত ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির নির্বাচনে ‘সৃষ্ট সঙ্কট’ বাড়তেই থাকবে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান।

শুক্রবার রাজধানীর নয়া পল্টনে এক অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগ সরকারকে ‘কর্তৃত্ববাদী সরকার’ অভিহিত করে তিনি বলেন, “কর্তৃত্ববাদী এই সরকার নির্যাতনের মাধ্যমে দেশ পরিচালনা করছে। জনগণের ওপরে তাদের কোনো বিশ্বাস নেই।

“সেজন্য তারা ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি সৃষ্টি করেছিল। সেদিন দেশনেত্রী খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে সারা দেশের মানুষ তাদেরকে ভোট না দিয়ে তাদের বিরুদ্ধে এক হয়ে প্রতিবাদ করেছিল।”

নির্দলীয় সরকারের দাবি পূরণ না হওয়ায় ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি দশম সংসদ নির্বাচন বর্জন করে খালেদা জিয়ার বিএনপি ও জোটসঙ্গীরা। ওই নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সহিংসতায় অনেক সাধারণ মানুষেরও প্রাণহানি হয়।

নির্বাচনে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন জোট শতকরা ৫ ভাগ ভোট পেয়েছিল দাবি করে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান নোমান বলেন, “৫ জানুয়ারি যে সঙ্কট সৃষ্টি করেছে এই আওয়ামী লীগ ও ১৪ দল; সেই সঙ্কট তীব্র থেকে তীব্রতর হচ্ছে। “দেশের মানুষ যতদিন সুশাসন না পাবে, তাদের ভোটাধিকার ফিরে না পাবে, নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন না হবে; ততদিন পর্যন্ত সঙ্কট আরও তীব্র হবে।”

ছাত্রদলের খিলগাঁও থানা শাখার সাধারণ সম্পাদক নুরুজ্জামান জনি ও নিউ মার্কেট থানা শাখার নেতা মাহবুবুর রহমান বাপ্পীর প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে নয়া পল্টন কার্যালয়ে দোয়া ও মিলাদ মাহফিলের এই অনুষ্ঠান আয়োজন করে কেন্দ্রীয় ছাত্রদল। বিএনপির দাবি, এই দুই ছাত্রনেতা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নির্যাতনে মারা যান।

অনুষ্ঠানে ‘সরকারের দমন-পীড়নের’ সমালোচনা করে আবদুল্লাহ আল নোমান বলেন, “আমাদের কাছে খবর আসছে, অনেক তরুণ ছেলে, তরুণ ভাই- অনেককে পাওয়া যাচ্ছে না। এখনও মাঝেমধ্যে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে, হদিস থাকছে না।” সরকার ‘বন্দুকের জোরে, গায়ের জোরে দেশ শাসন ও লুণ্ঠন’ করছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

নোমান বলেন, “তাদের হাত থেকে দেশকে রক্ষা করতে হলে আমাদের জাতীয় ঐক্য প্রয়োজন। সেই জাতীয় ঐক্যের ডাক দিয়েছেন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া।”

রনি ও বাপ্পীর মৃত্যুকে ‘গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠার আন্দোলনে মহৎ আত্মত্যাগ’ অভিহিত করে তিনি বলেন, “যাদের বেআইনিভাবে হত্যা ও গুম করা হয়েছে, সেসব ঘটনার নিরপেক্ষ বিচার আমরা একদিন করব।”

দোয়া মাহফিলের আগে অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বিএনপির মানবাধিকার বিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার নাসির উদ্দিন অসীম, ছাত্রদলের সহসভাপতি এজমল হোসেন পাইলট, প্রয়াত ছাত্রদল নেতা মাহবুবুর রহমান বাপ্পীর বড় বোন জহুরা আখতার ও নুরুজ্জামান জনির বাবা ইয়াকুব আলী বক্তব্য রাখেন।