logo

লজ্জা আর ভীতির মধ্যে সিঙ্গাপুরে বাংলাদেশিরা

লজ্জা আর ভীতির মধ্যে সিঙ্গাপুরে বাংলাদেশিরা

সিঙ্গাপুর, ২৩ জানুয়ারি- জঙ্গি কর্মকাণ্ডে সম্পৃক্ত থাকার অভিযোগে ২৬ বাংলাদেশি শ্রমিককে সিঙ্গাপুর সরকার গ্রেপ্তার করে দেশে ফেরত পাঠানোর পর থেকে সেখানে কর্মরত বাকি বাংলাদেশিরা আছেন লজ্জা আর চাকরি হারানোর ভীতির মধ্যে।  

দেশটির গণমাধ্যম স্ট্রেইট টাইমস জানিয়েছে, এ ধরনের ঘটনাকে একটি কলঙ্ক হিসেবে দেখছেন সেখানে বসবাসরত বাংলাদেশি শ্রমিকরা। দেশটির নাগরিকরা বাংলাদেশিদের ব্যাপারে সতর্ক থাকছেন এবং তাদের সন্দেহের দৃষ্টিতে দেখছেন। 

সিঙ্গাপুরে বসবাসরত বাংলাদেশি তথ্য-প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞ মারুফ কুজমান বলেন, ‘আমি চাই না যে আমার এখানকার স্থানীয় সহকর্মীরা আমাকে ভালো চোখে না দেখুক। তারা যদি আমার থেকে দূরে থাকে তবে আমার জন্য তাদের সাথে কাজ করা কঠিন হয়ে যাবে।’

তবে সবচেয়ে বেশি সমস্যায় আছে দেশটির নিম্ন পর্যায়ে কাজ করা শ্রমিকরা, যাদের বলা হয় ‘ব্লু-কলার’ শ্রমিক। এরা প্রধানত কাজ করে নির্মাণ এবং নৌ খাতে। তারা জানায়, তারা দেশটিতে গিয়েছে কাজ করতে, কোনো সমস্যা সৃষ্টি করতে নয়। গ্রেপ্তারকৃতদের কাজের জন্য লজ্জিত বলেও জানায় তারা। তারা আরো জানায়, অভিযুক্তদের এ ধরনের সহিংস বিশ্বাসের সাথেও তারা একমত পোষণ করেন না এবং তাদের কাজকেও তারা ক্ষমা করবেন না।

সিঙ্গাপুরের নৌ খাতে কাজ করা বাংলাদেশি শ্রমিক টুটুল খান (৩৩) বলেন, ‘আমরা এখানে রাজনীতি করার জন্য নয়, কাজ করে দেশে টাকা পাঠানোর জন্য এসেছি। আর ওরা এখানে টাকা উপার্জন করতে আসেনি।’ 

বাংলাদেশ এবং মধ্যপ্রাচ্যে হামলার পরিকল্পনার অভিযোগে গত দুই মাসে ২৭ বাংলাদেশি শ্রমিককে গ্রেপ্তার করে সিঙ্গাপুরের আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা। এদের মধ্যে একজন ব্যতিত বাকি ২৬ জনকে বুধবার দেশে ফেরত পাঠায় সিঙ্গাপুর সরকার।  

সিঙ্গাপুরে বসবাসরত বাংলাদেশিদের সংগঠন ‘সিঙ্গাপুর বাংলাদেশি সোসাইটি’ মোহাম্মদ শহিদুজ্জামান জানান, তারা এ ব্যাপারে বাংলাদেশিদের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধির পদক্ষেপ নিয়েছেন। বিশেষ করে নির্মাণ শ্রমিকদের মধ্যে তারা সচেতনতা সৃষ্টির কাজ করছেন। বাংলাদেশি হাই কমিশনারের সাথে কথা বলার ব্যাপারেও ভাবছে সংগঠনটি।

শহিদুজ্জামান আরো বলেন, ‘সিঙ্গাপুরের বৃহত্তর সম্প্রদায় আমাদের কিভাবে দেখবে- তা নিয়ে আমরা উদ্বিগ্ন।’ সংগঠনটির সদস্যরা তাকে জানিয়েছেন, কর্মক্ষেত্রে সম্ভাব্য প্রতিশোধের ভীতির মধ্যে আছে বাংলাদেশি শ্রমিকরা।

সিঙ্গাপুরে বাংলাদেশের হাইকমিশনার মাহবুব উজ জামান এ বিষয়ে বলেন, ‘এখানে কর্মরত বাংলাদেশিরা শান্তিপ্রিয় এবং আইনের প্রতি অনুগত। উগ্রপন্থীরা সংখ্যায় অল্প এবং তারা দেশের প্রতিনিধিত্ব করেনা।’   

সিঙ্গাপুরের শ্রম বিভাগের প্রধান চ্যান চুন সিং তার এক ফেসবুক পোস্টে দেশটির নাগরিকদের স্মরণ করিয়ে দিয়ে বুধবার লিখেছেন, ‘আমাদের দেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতিতে অধিকাংশ বিদেশি শ্রমিকদের ভূমিকা ইতিবাচক।’

তিনি আরো লিখেছেন, ‘গুটিকয়েক উগ্রপন্থীর কর্মকাণ্ডে সব বিদেশিদের ভূমিকা গুলিয়ে ফেলা সঠিক হবে না। বিদেশি শ্রমিকদের সঙ্গে আমাদের সম্পর্ক সম্প্রীতির।’ সিঙ্গাপুরস্থ বাংলাদেশ হাইকমিশনের কর্মকর্তারা দেশটিতে কর্মরত সব শ্রমিকের সাথে কথা বলার আগ্রহ দেখিয়েছে। বলেছে, শ্রমিকদের সিঙ্গাপুরের আইন কানুন সম্পর্কে ভালোভাবে বুঝিয়ে দেয়ার চেষ্টা করা হবে। বর্তমানে সিঙ্গাপুরে ১ লাখ ৬০ হাজার বাংলাদেশি কর্মরত আছে।