logo

আগুনেও পুড়বে না যে ড্রোন (ভিডিও সংযুক্ত)

আগুনেও পুড়বে না যে ড্রোন (ভিডিও সংযুক্ত)

ঢাকা, ২২ জানুয়ারি- ড্রোন এমন সব জায়গায় যেতে পারে যেখানে মানুষ যেতে পারে না। রিমোট দ্বারা নিয়ন্ত্রিত অথবা স্বয়ংচালিত ড্রোনগুলো বিপদজনক এলাকায় কাজ করার জন্য শ্রেষ্ঠ। দেয়াল বেঁয়ে উঠে যাওয়া অথবা আকাশে উড়ে কাজ করার সাথে এবার ড্রোন আগুনকেও জয় করবে। কোরিয়া অ্যাডভান্সড ইনস্টিটিউট অব সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি (কায়ইস্ট) তৈরি করল এমন এক ড্রোন যা এক হাজার ডিগ্রি সেলসিয়াস অথবা ১৮৩২ ডিগ্রি ফারেনহাইট তাপমাত্রায়ও এক মিনিট অনায়াসে অবস্থান করতে পারে। 

ড্রোনটি তৈরি করেছে ফায়ার প্রুফ অ্যারিয়াল রোবট সিস্টেম (ফ্যারস)। প্রতিষ্ঠানটি জানায়, এই ড্রোনটি বিশেষভাবে তৈরি করা হয়েছে। উঁচু বাড়িতে আগুন লাগলে সেখানে ড্রোনটিকে পাঠানো যাবে উদ্ধার কাজের জন্য। বহুতল বিশিষ্ট ভবনগুলোতে আগুন লাগলে প্রবেশ করা কষ্টসাধ্য হয়ে পড়ে। কিন্তু এ ড্রোনটি অত্যাধিক তাপের মধ্যেও নিজের ক্ষতি না করে আগুনে টিকে থাকতে পারবে।

ফ্যারস এর আগে কায়ইস্টের সাথে দেয়াল বেঁয়ে ওপরে উঠার ড্রোন তৈরি করেছিল। ড্রোনের আকাশে উড়ার সাথে দেয়াল বেঁয়ে ওপরে ওঠাটা অনেকটা সুপারম্যানের মত না হলেও ড্রোন বাধা পেয়েও চারপাশে চলাচল করতে পারে এবং ধ্বংসাবশেষ থেকে বের হয়ে আসার রাস্তা খুঁজে নিতে পারে। এটি ছোট খাটো ভেঙ্গে যাওয়া অংশের ওপর চলাচল করতে পারে। 

ড্রোনটির মধ্যে একটি ২ডি লেজার স্ক্যানার, একটি আল্টিমিটার এবং নিষ্ক্রিয়তা পরিমাপক ইউনিট সেন্সর রয়েছে যা স্বয়ংক্রিয়ভাবে নিয়ন্ত্রিত হবে। ড্রোনটি দিয়ে স্থানীয়করণের ফলাফল এবং থার্মাল ইমেজিং ক্যামেরা ব্যবহার করে আগুনে ক্ষতিগ্রস্থ বস্তু এবং কোন মানুষ আগুন লাগা বিল্ডিংয়ের ভেতরে আছে কিনা তা নির্ণয় করা যাবে। ইমেজ প্রসেসিং টেকনোলজি ব্যবহার করে কোথা থেকে আগুনটি লেগেছে তাও নির্ণয় করা যাবে বলে ফ্যারসের পরীক্ষালবদ্ধ ফলাফলে জানা গেছে। 

এই ড্রোনটি আগুন নিরোধক এবং আগুনের শিখায় আক্রান্ত হলেও কাজ করতে স্বক্ষম। ড্রোনটির বডি তৈরি করা হয়েছে অ্যারামিড ফাইবার দিয়ে যার কারণে ড্রোনটির ইলেকট্রিক এবং মেকানিক্যাল উপাদানগুলো সরাসরি আগুন থেকে নিরাপদ। অ্যারামিড ফাইবার চামড়ার নিচে একটি বাতাসের স্তর আছে। এতে একটি থার্মোইলেকট্রিক কুলিং সিস্টেম সমর্থিত পালটিয়ার ইফেক্ট রয়েছে যা দিয়ে নির্দিষ্ট তাপমাত্রা পর্যন্ত  এয়ার লেয়ার আগুনকে রুখে দেয়। 

এটি খুব চমৎকার স্কিল সেট এবং সহজেই আগুনের বিরুদ্ধে কিভাবে এটি টিকে থাকে তা দেখা যায়। ধোয়ার উৎস খোঁজা, আগুনের তীব্রতা নির্ধারণ করা সহ অনেক গুরুত্বপূর্ণ কাজ করা যায় এই ড্রোনের মাধ্যমে। গবেষকরা শিগগিরই এই ড্রোনের বাণিজ্যিক মডেল প্রযুক্তি বাজারে উম্মুক্ত করবে। 

দেখে নিন আগুন নিরোধক ড্রোনটি: