logo

ইরাকে খ্রিস্টানদের প্রাচীন আশ্রম ধ্বংস করেছে আইএস

ইরাকে খ্রিস্টানদের প্রাচীন আশ্রম ধ্বংস করেছে আইএস

বাগদাদ, ২১ জানুয়ারি- ইরাকে খ্রিস্টানদের সবচেয়ে পুরোনো আশ্রম ধ্বংস করেছে ইসলামিক স্টেট (আইএস)। স্যাটেলাইটে তোলা ছবি দেখে এ বিষয়ে নিশ্চিত হওয়া গেছে।

সেন্ট ইলাইজা নামের ওই আশ্রমটি উত্তরাঞ্চলের শহর মসুলের একটি পাহাড়ের চূড়া ছিল।

বুধবার প্রকাশিত ছবি বিশ্লেষণ করে অলসোর্স এনালাইসিসের বিশেষজ্ঞরা বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

অলসোর্স এনালাইসিস নেটওয়ার্কের স্টেফেন উড গণমাধ্যমকে বলেন, ছবি থেকে ধারণা করা হচ্ছে, ২০১৪ সালের অগাস্ট ও সেপ্টেম্বর মাসের মধ্যে ওই আশ্রমটি ধ্বংস করা হয়েছে। তার দুই থেকে তিন মাস পর আইএস মসুলের নিয়ন্ত্রণ নেয় এবং শহরটি থেকে খ্রিস্টানদের বের করে দেয়।

তিনি বলেন, “ছবিতে দেখা যাচ্ছে, আশ্রমের পাথরের দেওয়াল আক্ষরিক অর্থে চূর্ণ-বিচূর্ণ করে ফেলা হয়েছে। বুলডোজার, ভারি যন্ত্র, বড় ধরনের হাতুড়ি এবং খুব সম্ভবত বিস্ফোরক ব্যবহার করে করে দেওয়ালগুলো গুঁড়িয়ে ধূলোয় মিশিয়ে দেওয়া হয়েছে।”

গত বছর থেকেই মসুলের এক খ্রিস্টান যাজক বার বার বলে এসেছেন, “মসুলে খ্রিস্টান ধর্মের ইতিহাসকে অত্যন্ত বর্বরচিতভাবে মাটির সঙ্গে মিশিয়ে দেওয়া হয়েছে।”

ফাদার পল থাবিত হাবিব বলেন, “একে ইরাক থেকে খ্রিস্টানদের বিতাড়িত করার পদক্ষেপ বলেই মনে করছি আমরা।এ দেশ থেকে আমাদের আস্তিত্ব শেষ করে দেওয়া এবং মুছে দেওয়ার জন্য এটা করা হয়েছে।”

এর আগে ইরাকের নিমরুদ, হাত্রা ও নিনেভেহ শহরের অনেক প্রাচীন স্থাপনা ধ্বংস করেছে আইএস। সিরিয়ার প্রাচীন ঐতিহ্যবাহী পালমিরা নগরীও তারা ধ্বংস করে দিয়েছে।

নিনেভাহ প্রদেশের নিরাপত্তা বাহিনীর একটি সূত্রও বিবিস’কে আলাদাভাবে সেন্ট ইলাইজা আশ্রম পুরোপুরি ধ্বংস হয়ে যাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।