logo

আইএস যোদ্ধাদের বেতন কমিয়ে অর্ধেক

আইএস যোদ্ধাদের বেতন কমিয়ে অর্ধেক

দামেস্কো, ২০ জানুয়ারি- আন্তর্জাতিক বাহিনীর বিমান হামলার মধ্যেই যোদ্ধাদের বেতন কমিয়ে অর্ধেক করার ঘোষণা দিয়েছে মধ্যপ্রাচ্যের জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট (আইএস)।যুক্তরাজ্যের দৈনিক ইনডিপেনডেন্ট এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, সিরিয়ার অধিকৃত অঞ্চলে আইএস-এর ‘রাজধানী’ রাকায় ইসলামিক স্টেটের কথিক কোষাগার ‘বায়াত মাল আল-মুসলিমিন’ থেকে মাসখানেক আগে জারি করা এক আদেশে বেতন কমিয়ে দেওয়ার বিষয়টি জানা যায়।    

যুক্তরাষ্ট্র নেতৃত্বাধীন জোট গত বছরের অক্টোবর থেকে ওই এলাকায় অপারেশন ‘টাইডাল ওয়েব টু’ নামে বিমান হামলা চালিয়ে আসছে, আইএস নিয়ন্ত্রিত তেলক্ষেত্র, রসদ সরবরাহের লাইন এবং কোষাগার যার লক্ষ্য।

সেপ্টেম্বরের শেষ থেকে রাশিয়াও আইএসের বিভিন্ন স্থাপনা লক্ষ্য করে আলাদাভাবে অভিযান চালিয়ে আসছে। ইনডিপেনডেন্ট লিখেছে, এই অভিযানে কাজ হচ্ছে বলেই আইএস-এর বেতন কমানোর নথি থেকে ধারণা পাওয়া যাচ্ছে।  

মধ্যপ্রাচ্য বিষয়ক গবেষক আয়মেন জাওয়াদ আল-তামিমি আরবি ভাষার ওই নথি ইন্ডিপেন্ডেন্টকে তর্জমা করে দিয়েছেন। তিনি জানিয়েছেন, ওই নথিতে মুসলমানদের ধর্মগ্রন্থ কোরানের আলোকে ‘সম্পদের জিহাদ ও আত্মার জিহাদ’ নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে।

ওই আদেশে বলা হয়েছে, “যে বিশেষ পরিস্থিতি ইসলামিক স্টেটকে মোকাবেলা করতে হচ্ছে, তাতে সকল মুজাহিদিনের বেতন অর্ধেকে নামিয়ে আনার সিদ্ধান্ত হয়েছে। কেউ এ ক্ষেত্রে ব্যতিক্রম হবে না, সে যে পদেই থাকুক না কেন।”

ক্রমাগত বিমান হামলা আইএসের সক্ষমতায় বড় ধরনের ঘাটতি তৈরি করতে পেরেছে বলে গত নভেম্বর থেকেই দাবি করে আসছেন যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তারা। এই অভিযান চালিয়ে যাওয়ার কথাও তারা বলেছেন।  

জোটে থাকা যুক্তরাজ্যের বিমানবাহিনী যখন গত মাসে তাদের অভিযানের আওতা বাড়িয়ে সিরিয়া থেকে ইরাকে হামলা শুরু করে, তখন তাদের প্রথম লক্ষ্যবস্তু ছিল আইএস এর নিয়ন্ত্রণে থাকা ওমর তেলক্ষেত্র। আইএস পরে ওই তেলক্ষেত্রটি মেরামতের চেষ্টা করলে ব্রিটিশ ড্রোন ও টর্নেডো যুদ্ধবিমান আবারও সেখানে হামলা চালায়।

সর্বশেষ গত ১১ জানুয়ারি এক ভিডিওতে মার্কিন যুদ্ধবিমানের হামলার পর ইরাকের মসুলে আইএসের একটি ‘ক্যাশ ডিস্ট্রিবিউশন সেন্টার’ থেকে টাকা উড়তে দেখা যায়।

মার্কিন বাহিনীর কেন্দ্রীয় কমাণ্ডের প্রধান জেনারেল লয়েড অস্টিনের দাবি, আন্তর্জাতিক বাহিনীর এই অভিযানে আইএস এর হাতছাড়া হয়ে যাচ্ছে ‘কোটি কোটি’  ডলার। সিএনএনকে লয়েড বলেন, বিশাল এই ক্ষতির কারণে আইএস তাদের যোদ্ধাদের বেতন-ভাতা দিতে পারছে না, নতুন যোদ্ধাও জোগাড় করতে পারছে না।