logo

কেজরিওয়ালের মুখে কালি ছুড়ে মারলেন এক নারী!

কেজরিওয়ালের মুখে কালি ছুড়ে মারলেন এক নারী!

নয়াদিল্লি, ১৮ জানুয়ারি- জোড়-বিজোড় ফর্মুলায় দিল্লির দূষণ কমেছে কি না তা নিয়ে চলছে বিতর্ক। দিল্লি সরকারের দাবি, জোড়-বিজোড় ফর্মুলা চলাকালীন দিল্লির দূষণ কমেছে ৫০ শতাংশ। এ পরিস্থিতিতে জোড়-বিজোড় ফর্মুলা সফল করার জন্য দিল্লিবাসীকে ধন্যবাদ জ্ঞাপনের দিনই মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালের মুখে কালি ছুড়ে মারলেন এক নারী।  

রোববার মুখ্যমন্ত্রী লক্ষ্য করে পেনের কালি ছুড়ে মারেন ওই নারী। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়া ও আনন্দবাজার পত্রিকা এমন তথ্যই জানিয়েছে।
কেজরিওয়াল মঞ্চে উঠে বক্তব্য দেয়ার সময় হঠাত্‍‌ এক নারী নিরাপত্তাবলয় ভেদ করে মঞ্চের একেবারে সামনে পৌঁছে যান। তার হাতে ছিল একটি সিডি ও কিছু কাগজ। ওই নারী মঞ্চের সামনে দাঁড়িয়ে সিএনজি ও অটো পারমিট নিয়ে দুর্নীতির অভিযোগ করতে থাকেন। তার মধ্যেই হঠাৎ তিনি কালি ছুড়ে মারেন মুখ্যমন্ত্রীকে! গায়ে কালি লাগলেও কেজরিওয়াল অবশ্য শান্তই ছিলেন। উল্টে মঞ্চ থেকে তিনি পুলিশকে অনুরোধ করেন ওই নারীকে ছেড়ে দিতে। 


এ সময় কেজরিওয়াল বলেন, ‘ওই নারী সিএনজি দুর্নীতি নিয়ে কিছু বলছেন। তার থেকে কাগজপত্র নিয়ে ব্যাপারটা যেন কেউ শুনে নেন।’ কিন্তু পুলিশ তৎক্ষণাৎ নারীকে স্টেডিয়ামের বাইরে নিয়ে যায় ও আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করে।

২০১৪ সালের ৪ এপ্রিলের ঘটনাতে একই রকম গান্ধীগিরি ব্যবহার করেছিলেন অরবিন্দ কেজরিওয়াল।  সেবার দক্ষিণ দিল্লিতে আপ-এর একটি র‌্যালি চলাকালীন কেজরিওয়ালকে থাপ্পড় মারেন এক ব্যক্তি।

পরে ওই ব্যক্তির বাড়িতে পৌঁছে যান কেজরিওয়াল।  বাড়ির দাওয়ায় বসে মন দিয়ে শোনেন তার বিরুদ্ধে কি সেই অভিযোগ। কেজরিওয়ালের কাছে শেষপর্যন্ত ক্ষমাও চেয়ে নেন ওই ব্যক্তি।