logo

জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান হলেন জিএম কাদের

জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান হলেন জিএম কাদের

রংপুর, ১৭ জানুয়ারি- জাতীয় পার্টির (জাপা) চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ তাঁর ছোট ভাই ও প্রেসিডিয়াম সদস্য জি এম কাদেরকে দলের কো-চেয়ারম্যান ঘোষণা করেছেন। তিনি বলেন, ‘আজ থেকেই গোলাম মোহাম্মদ কাদের দলের কো-চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করবেন। এ ছাড়া আমার অবর্তমানে দলের হালও ধরবেন তিনি।’ আজ রোববার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় রংপুর জেলা জাতীয় পার্টির কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে এই ঘোষণা দেন এরশাদ।

দলে কো-চেয়ারম্যানের কোনো পদ নেই উল্লেখ করে এরশাদ বলেন, আগামী এপ্রিলে দলের যে ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন হবে সেখানে কো-চেয়ারম্যান পদ সৃষ্টি করে তা অনুমোদন করে নেওয়া হবে। এই সম্মেলন অনুষ্ঠানের জন্য একটি প্রস্তুতি কমিটিও ঘোষণা করেন এরশাদ। জিএম কাদেরকে কমিটির আহ্বায়ক ও সাবেক মহাসচিব রুহুল আমীন হাওলাদারকে সদস্যসচিব হিসেবে ঘোষণা করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে এরশাদ বলেন, জাতীয় পার্টি এখন চরম সংকটের মুখে। জাতীয় পার্টি আছে কী নেই সেটা দেশের মানুষ জানে না। দেশের মানুষ লাঙলের নাম ভুলতে বসেছে। দলকে টিকিয়ে রাখার স্বার্থেই জি এম কাদেরকে দলের কো-চেয়ারম্যান করা ছাড়া অন্য কোনো উপায় ছিল না।

দলের সংকটের কারণ সম্পর্কে এরশাদ বলেন, ‘আমার দলের তিন এমপি মন্ত্রী হয়েছেন। আমি নিজেই প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত হিসেবে দায়িত্ব পালন করছি। আমরা বিরোধী দলে আছি না সরকারি দলে আছি সেটা দেশের মানুষ বুঝতে পারছে না। ফলে দল চরম সংকটের মধ্যে পড়েছে। আমার নিজের গড়া দল ধীরে ধীর বিলীন হয়ে যাচ্ছে। এটা হতে পারে না। এখন দলকে শক্তিশালী করতে হলে তিন মন্ত্রী এবং আমাকে পদত্যাগ করতে হবে।’

কবে পদত্যাগ করবেন সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে এরশাদ বলেন, প্রধানমন্ত্রী আমাকে তার বিশেষ দূত করে সম্মানিত করেছেন। আমি তাঁকে বলেছি আমি এবং আমার তিন মন্ত্রী পদত্যাগ না করলে দল টিকিয়ে রাখা যাবে না। আমি প্রধানমন্ত্রীর কাছে বিশেষ দূত থেকে অব্যাহতি চাইব। আশা করি প্রধানমন্ত্রী আমার কথা রাখবেন। এতে করে দেশের গ্রামেগঞ্জে গিয়ে দলকে সুসংগঠিত করতে পারব।

সংবাদ সম্মেলনে দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য জি এম কাদের, সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ নুর আহমেদ টুলু, জেলা জাতীয় পার্টির আহ্বায়ক মোফাজ্জল হোসেন, সদস্যসচিব হোসেন মকবুল শাহরিয়ার আসিফ, মহানগর আহ্বায়ক মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা উপস্থিত ছিলেন।