logo

ইরানের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা উঠল

ইরানের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা উঠল

তেহরান, ১৭ জানুয়ারি- নিউক্লিয়ার অস্ত্র তৈরির চেষ্টা থেকে সরে আসার চুক্তি অনুযায়ী সব শর্ত পূরণ করায় ইরানের ওপর থেকে দীর্ঘদিনের আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হয়েছে।বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, এর ফলে বিশ্বজুড়ে তেল বিক্রির ক্ষেত্রে ইরানকে আর বাধার মুখোমুখি হতে হবে না। ইউরোপ, আমেরিকাসহ বিভিন্ন দেশে আটকে থাকা বিলিয়ন বিলিয়ন ডলার এবং বিভিন্ন সম্পদও আবার ব্যবহার করতে পারবে ইরানিরা।  

দীর্ঘ টানাপড়েন শেষে গতবছর জুলাই মাসে ইরানের পরমাণু কর্মসূচি নিয়ে ওই চুক্তিতে পৌঁছায় পরাশক্তিগুলো। এরপর আন্তর্জাতিক আণবিক শক্তি সংস্থা আইএইএ শনিবার জানায়, চুক্তির সব শর্তই তেহরান ঠিকঠাক পূরণ করছে বলে তারা নিশ্চিত হয়েছে।  

আইএইএ’র ওই সবুজ সংকেতের পরই নিষেধাজ্ঞা উঠে যাওয়ার এই ঘোষণা আসে বলে বিবিসির প্রতিবেদনে জানানো হয়। ইউরোপীয় ইউনিয়নের পররাষ্ট্র নীতি বিষয়ক প্রধান ফেদেরিকা মোগেরিনি বলেছেন, আঞ্চলিক শান্তি ও স্থিতিশীলতা বাড়াতে এই চুক্তি বড় ভূমিকা রাখবে বলেই তিনি মনে করেন।

ইরানের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের আরোপিত নিউক্লিয়ার-সম্পর্কিত বাণিজ্যিক নিষেধাজ্ঞাগুলো তুলে নেওয়ার আদেশ দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি।

ইরানি পররাষ্ট্রমন্ত্রী জাভেদ জারিফের সঙ্গে আলোচনারত কেরি অস্ট্রিয়ার রাজধানী ভিয়েনায় এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, “ইরান উল্লেখযোগ্য পদক্ষেপ নিয়েছে, এসব পদক্ষেপ নেওয়া নিয়ে অনেকেই সন্দিহান ছিলেন।

“গত জুলাই থেকে নেওয়া পদক্ষেপের ফলে আজ যুক্তরাষ্ট্র, পুরো বিশ্বে আমাদের বন্ধুরা ও মধ্যপ্রাচ্যের মিত্ররা আরো নিরাপদ হয়েছেন, কারণ নিউক্লিয়ার অস্ত্রের হুমকি হ্রাস পেয়েছে।”


অপরদিকে ট্যুইটারে ইরানি প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি বলেন, “এই আশীর্বাদের জন্য আল্লাহকে ধন্যবাদ এবং ধৈর্যধারী ইরানি জাতির মহানুভবতার প্রতি অভিবাদন।”

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানায়, ভিয়েনা ভিত্তিক আন্তর্জাতিক পরমাণু শক্তি সংস্থার বিবৃতিতে বলা হয়, “চুক্তি বাস্তবায়নের দিনটিকে কার্যকর করার জন্য জুলাই চুক্তি অনুযায়ী যে যে পদক্ষেপ নেওয়ার কথা ইরান তার সবই পালন করেছে।”

এর কয়েক মিনিটের মধ্যেই ব্যাংকিং, স্টিল, শিপিংসহ ইরানের ওপর আরোপিত অন্যান্য নিষেধাজ্ঞা আনুষ্ঠানিকভাবে তুলে নেয় যুক্তরাষ্ট্র। ইউরোপীয় ইউনিয়নও ইরানের ওপর আরোপিত নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু করেছে।

ইরানের পরিবহনমন্ত্রী জানিয়েছেন, ইউরোপীয় বিমান নির্মাতা কোম্পানি এয়ারবাস থেকে ১১৪টি বেসামরিক বিমান কেনার পরিকল্পনা করছে তেহরান। ইরান জানিয়েছে, কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই তেল রপ্তানি প্রতিদিন পাঁচ লাখ ব্যারেলে উন্নীত করতে পারবে তারা।

এসব নিষেধাজ্ঞার কারণে গত পাঁচ বছর ধরে বিশ্বের অন্যতম বড় খনিজ তেল উৎপাদনকারী দেশ ইরান কার্যত আন্তর্জাতিক বাজারের বাইরে থাকতে বাধ্য হয়েছিল।

এই নিষেধাজ্ঞা উঠে যাওয়ার মাধ্যমে মধ্যপ্রাচ্যে সাম্প্রদায়িক সংঘাতে জড়িয়ে পড়া ইরান আর্থিকভাবে লাভবান হবে এবং দেশটির মর্যাদাও বৃদ্ধি পাবে বলে ধারণা করছেন বিশ্লেষকরা।

নিষেধাজ্ঞা উঠে যাওয়ার পাশাপাশি তেহরান পাঁচ মার্কিন বন্দিকে মুক্তি দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে। এসব বন্দির মধ্যে ওয়াশিংটন পোস্টের সাংবাদিক জেসন রেজাইয়ানও আছেন। যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে বন্দি বিনিময় চুক্তির মাধ্যমে এদের মুক্তি দেওয়া হচ্ছে।