logo

দেড় যুগেও পূর্ণাঙ্গ রূপ পেলো না ভাসানী বিশ্ববিদ্যালয়

দেড় যুগেও পূর্ণাঙ্গ রূপ পেলো না ভাসানী বিশ্ববিদ্যালয়

টাঙ্গাইল, ১৫ জানুয়ারী- ১৯৯৯ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা টাঙ্গাইলের সন্তোষে মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন। অবকাঠামো সমস্যার কারণে দীর্ঘদিনেও পূর্ণাঙ্গ রূপ পায়নি এ বিশ্ববিদ্যালয়টি। এ কারণে ব্যাহত হচ্ছে যথাযথ শিক্ষা কার্যক্রম ।


সন্তোষে প্রায় ৫৮ একর জমির উপর প্রতিষ্ঠিত মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়। ৫টি অনুষদ ও ১৫টি বিভাগ নিয়ে চলছে এর কার্যক্রম। শিক্ষার্থী কমপক্ষে ৫ হাজার । তাদের জন্য রয়েছে মাত্র ৫টি আবাসিক হল।

হলে সিট না পেয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের বাইরে অবস্থান করছে বেশিরভাগ শিক্ষার্থী। একাডেমিক ভবনও অপর্যাপ্ত। সব মিলিয়ে শিক্ষার্থীদের পাঠদান করতে হিমশিম খাচ্ছেন কর্তৃপক্ষ।শিক্ষার্থীরা বলছেন, তারা হল এবং ল্যাব সুবিধা থেকে বঞ্চিত।


বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রকৌশলী মোঃ আবু তালেব বলেন, ‘ইতোমধ্যেই প্রায় সাড়ে তিনশ’ কোটি টাকার প্রকল্প জমা দেয়া হয়েছে মন্ত্রণালয়ে। ওই অর্থ বরাদ্দ হলে অবকাঠামো সমস্যা কিছুটা কমবে । এবং ওই অর্থ দিয়ে আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে অবকাঠামোগত উন্নয়ন করলে বিশ্ববিদ্যালয়টি পূণাঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ে রূপ নেবে।’

অবকাঠামো সমস্যার কথা স্বীকার কার করে ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ডক্টর মোঃ আলাউদ্দিন বলেন, ‘একাধিক সিফটের মাধ্যমে ক্লাশ চালানো হচ্ছে। অনেকটা জোড়াতালি দিয়েই চলছে বিশ্ববিদ্যালয়ের পাঠদান কার্যক্রম।একটি একাডেমিক ভবনে চারটি চারটি ফ্লোরো চারটি বিভাগের ক্লাস চালানো যায় সেখানে আমাদের চালাতে হচ্ছে আটটি বিভাগের ক্লাস।ক্লাস নেওয়াতেও অনেক ঝামেলা পোহাতে হচ্ছে শিক্ষকদের।’


মজলুম জননেতা মাওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানীর নামে প্রতিষ্ঠিত এ বিশ্ববিদ্যালয়টির প্রায় দেড় যুগ পেড়িয়ে গেছে। তবে এখনও পর্যাপ্ত অবকাঠামো নির্মাণ না হওয়ায় বিড়ম্বনায় পড়তে হচ্ছে ছাত্র-শিক্ষক সবাইকে।

এ ব্যাপারে এখনই কার্যকর ব্যবস্থা নেয়া প্রয়োজন বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।