logo

নীতি ও আদর্শ থেকে বিচ্যুত হননি আর এ গণি: খালেদা

নীতি ও আদর্শ থেকে বিচ্যুত হননি আর এ গণি: খালেদা

ঢাকা, ১৫ জানুয়ারি- দলের স্থায়ী কমিটির প্রবীণ সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী ড. আর এ গণির ইন্তেকালে গভীর শোক প্রকাশ করে গণমাধ্যমে পাঠানো বাণীতে বিএনপি প্রধান বেগম খালেদা জিয়া বলেছেন, ‘বর্তমান দু:সময়ে ড. আর এ গণির পৃথিবী থেকে বিদায় নেয়া দেশ ও দলের জন্য এক অপূরণীয় ক্ষতি। তিনি মানুষের বাক-ব্যক্তি ও মত প্রকাশের স্বাধীনতা নিশ্চিত করার বিষয়ে আপোষহীনভাবে জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত লড়াই করেছেন। কখনই তিনি নীতি ও আদর্শ থেকে কিঞ্চিত পরিমানও বিচ্যুত হননি।’

শুক্রবার সকালে গণমাধ্যমে পাঠানো এক শোক বাণীতে এসব কথা বলেন খালেদা জিয়া। প্রসঙ্গত, বৃহস্পতিবার মধ্য রাতে রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ড. আর এ  গণি ইন্তেকাল করেন। জানা গেছে, বাদ জুমা ধানমন্ডির ঈদগাহ মাঠে ও বেলা ২টা ৩০ মিনিটে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে জানাজা শেষে বনানীতে তাকে দাফন করা হবে।

আর এ গণির প্রয়োজনীতার কথা স্মরণ করে খালেদা জিয়া বলেন, ‘বর্তমানে সুস্থ পরিবেশে গণতন্ত্র চর্চার চরম সংকটকালে তাঁর মতো একজন বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদের পরামর্শ ও উপস্থিতি ছিল খুবই জরুরি। স্বহৃদয় এই মানুষটি শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের আহ্বানে সাড়া দিয়ে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল-বিএনপির প্রতিষ্ঠাকাল থেকেই নিরলসভাবে দেশ ও দলের জন্য নিবেদিতপ্রাণ হয়ে কাজ করে গেছেন। তিনি শহীদ জিয়ার প্রবর্তিত বাংলাদেশি জাতীয়তাবাদী দর্শন ও বহুদলীয় গণতন্ত্রকে দৃঢ়ভাবে বুকে ধারণ করতেন। যে কারণে শহীদ জিয়া ও আমার অকৃত্রিম সহকর্মী হিসেবে ড. গণি কোন রকম দ্বিধাদ্বন্দ্ব ছাড়াই একাগ্রচিত্তে কাজ করে গেছেন। তাঁর সুচিন্তিত পরামর্শ ছিল অতীব মূল্যবান। সুসময় ও দু:সময় উভয়কালেই তিনি নিজেকে দলের সাথে সম্পৃক্ত রেখেছিলেন। দলের সকল সংকটকালে তিনি পিছিয়ে থাকেননি, বরং দু:সাহসের ওপর ভর করে সংকট মোকাবেলায় এগিয়ে এসেছিলেন ধৈর্য্য, বাক সংযম, স্পষ্টবাদিতা ছিল তাঁর চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য।’

ব্যক্তি আর এ গণির কথা স্মরণ করে তিনি বলেন, ‘ড. আর এ গণি ছিলেন এক অনন্য মেধাবী ব্যক্তি। তাঁর শিক্ষাজীবন ছিল অসংখ্য সফলতায় পরিপূর্ণ। একজন কীর্তিমান শিক্ষাবিদ হিসেবে নানামুখী কর্মকান্ডে তাঁর মেধা ও মননের প্রতিফলন ঘটতো। জ্ঞানদীপ্ত এই মানুষটি সবসময় রাজনীতির সাথে শিক্ষাকে সম্পৃক্ত করতে চাইতেন। এই ক্রান্তিকালে তাঁর মতো একজন অভিভাবকের বেঁচে থাকা অত্যন্ত জরুরি ছিল। আমি তাঁর বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করছি এবং শোকার্ত পরিবারবর্গ, গুণগ্রাহী ও শুভানুধ্যায়ীদের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করছি।”

অপর এক শোকবার্তায় বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বিএনপি জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী ড. আর এ গণির মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। মির্জা ফখরুল তার রুহের মাগফিরাত কামনা করে শোকবিহব্বল পরিবারের সদস্যবর্গ, আত্মীয় স্বজন এবং শুভাকাক্সক্ষীদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।